বিশ্রামের যত্ন নেন

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্রামের যত্ন নেন

আজ বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর। বৈদিক জ্যোতিষে ১২টি রাশি- মেষ, বৃষ, মিথুন, কর্কট, সিংহ, কন্যা, তুলা, বৃশ্চিক, ধনু, মকর, কুম্ভ ও মীন-এর ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। একই রকমভাবে ২৩টি নক্ষত্রেরও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়ে থাকে। ভাগ্যরেখা অনুযায়ী আপনার আজকের দিনটি কেমন কাটবে, দেখে নিন। 

মেষ: এটি একটি শারীরিক এবং মানসিকভাবে ক্লান্তিকর সপ্তাহ হতে পারে যদি না আপনি যখনই প্রয়োজনে বিশ্রাম এবং বিশ্রামের যত্ন নেন। আপনার বিষয়গুলিতে এই পর্যায়ে আপনি শেষ কাজটি করতে চান তা হ’ল ঝুঁকি নেওয়া। পেশাগতভাবে বলতে গেলে, আপনি একজন বিজয়ী হতে চলেছেন, কিন্তু শুধুমাত্র যদি আপনি একটি ধারণা অনুসরণ করেন। 

বৃষ: আপনার মেজাজে অংশীদাররা বিস্মিত হবে। তবে ভুলে যাবেন না যে, অন্যরা আপনার বর্তমান সাফল্যের জন্য কিছু কৃতিত্বের অধিকারী। এবং অকৃতজ্ঞ বা অহংকার দেখানো বুদ্ধিমানের কাজ হবে না। যাইহোক, এখনও একটি প্রিয় অভিনব উপভোগ করার সময় আছে। 

মিথুন: যদিও আপনার সঙ্গীর স্থিতিতে বর্তমান পরিবর্তনের দ্বারা উত্সাহিত হওয়ার ভাল কারণ আছে। সর্বদা মনে রাখবেন যে যখন আপনি আশাবাদী বোধ করছেন তখন আপনার আত্মতুষ্টি থেকে রক্ষা করা উচিত। কিছু দিনের মধ্যে মেজাজের পরিবর্তন আসছে। আপনি অনেক বেশি ব্যবসার দিকে যেতে চলেছেন।

কর্কট: পেশাগত অংশীদারিত্ব এবং ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিগত সম্পর্ক আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু পরিস্থিতি ক্রমবর্ধমান জটিল হওয়ায় কমপক্ষে একজন ব্যক্তির সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ চুক্তির সম্ভাবনাগুলি আরও বেশি দূরবর্তী হয়ে উঠছে। আপনি যা করতে পারেন তা হল যতটা সম্ভব সৎ হতে হবে এবং সরাসরি বিষয়টির হৃদয়ে যেতে হবে।

সিংহ: বাড়ির পরিস্থিতি আরও তীব্র হয়ে উঠছে। আপনি সন্দেহ করতে শুরু করেছেন যে আপনি নিজের জন্য যা তৈরি করেছেন তা আপনাকে সেই ধরণের স্থিতিশীলতা এবং নিরাপত্তা প্রদানের জন্য যথেষ্ট যা আপনি এতটা প্রাপ্য। আপনি যদি একটি আদর্শবাদী মোড় নেন তবে আপনার কাজটি সবচেয়ে ভাল হয়। 

কন্যা: আপনার পরিকল্পনার জন্য অংশীদারদের সঙ্গে পরামর্শ করা আবশ্যক। যে কোনও আলোচনা প্রয়োজন। ফলস্বরূপ, একটি আর্থিক প্রকৃতির বিষয় রয়েছে যা একপাশে রাখা যেতে পারে। একটি বিশেষ অংশীদারিত্বকে বিরতি দেওয়ার জন্য এখনও অনেক কিছু বলা যায়। 

তুলা: কমপক্ষে আপনার ব্যবসায়িক বিষয়গুলির ক্ষেত্রে, আপনি হয়তো একটি টার্নিং-পয়েন্টে পৌঁছেছেন। এটা গুরুত্বপূর্ণ যে আপনি আপনার মূল্য বিচারকে এমন মানুষ এবং পরিস্থিতিতে চাপিয়ে দেবেন না যা আপনাকে উদ্বিগ্ন করে না। অল্প বয়সী সম্পর্কের সমর্থন এবং সহানুভূতি প্রয়োজন, তাই তাদের প্রয়োজনের সময়টুকু তৈরি করুন। 

বৃশ্চিক: আজকের মুখোমুখি পরিবেশ উপভোগ করা ছাড়া আপনার আর কোন উপায় নেই। এটা আংশিক  কারণ, যদি আপনি নিজেকে আশেপাশের কিছু খারাপ অনুভূতির মধ্যে ঢুকতে দেন, তাহলে আপনার মনোবল ক্ষতিগ্রস্ত হবে। একবার আপনি একটি আর্থিক ঝামেলা মোকাবেলা করলে আপনি পারিবারিক বিষয়গুলির মুখোমুখি হতে প্রস্তুত হবেন। 

ধনু: আপনার খ্যাতির সময়। যে কেউ শুনতে প্রস্তুত তার কাছে আপনার অর্জনকে রক্ষা করার সময় এসেছে। অন্য কারও মতো, আপনি সেই সমস্ত দীর্ঘ ঘন্টার কঠোর পরিশ্রমের জন্য স্বীকৃতি পাওয়ার যোগ্য, যা ছাড়া অন্য লোকেরা আজ তারা যেখানে ছিল না।

আরও পড়ুন:


ধর্ম অবমাননা মামলায় তসলিমা নাসরিনসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

স্বামী-স্ত্রীসহ তিন জনকে কুপিয়ে হত্যা, ছেলে আটক

মাথার টুপিতে ৭৩৫টি ডিম নিয়ে গিনেস রেকর্ড! (ভিডিও)

দেশে প্রথমবারের মতো শিশুদের পরীক্ষামূলক টিকাদান শুরু আজ


মকর: আপনার আধ্যাত্মিক চাহিদার প্রতি মনোযোগ দেওয়ার গুরুত্ব কখনই ভুলে যাবেন না। জীবনের একটি দিক যা দৈনন্দিন সংগ্রামের চাপের মধ্যে প্রায়শই উপেক্ষা করা হয়। অদ্ভুত উপায়ে আপনি আর্থিকভাবে আরো সফল হবেন যদি আপনি জীবনের বৃহত্তর ছবিতে মনোযোগ দেন। 

কুম্ভ: আজকের চ্যালেঞ্জিং বিষয়গুলি সাম্প্রতিক মাসগুলির সমস্ত অনিশ্চয়তা দূর করতে পারে এবং আশা করি আপনাকে সঠিক দিক নির্দেশ করবে। অতীতকে ধরে রাখবেন না, আপনার আর এটির প্রয়োজন নেই। আপনি আপনার গোপনীয়তা রাখছেন, কিন্তু তারপর এটি এত কল্পনাপ্রসূত হওয়ার অংশ। 

মীন: মঙ্গল আপনার রাশিচক্রের শাসক, আকাঙ্ক্ষার অংশের সঙ্গে সংযুক্ত। এটি একটি ন্যায্য ইঙ্গিত যে আপনার আয় বৃদ্ধি পেতে চলেছে। তাই আপনার খরচ হবে। এটা খুব সহজেই আসা, সহজে যাওয়া একটি প্রশ্ন তাই অতীতে ঝুলে থাকার কোন মানে নেই।

news24bd.tv রিমু   

পরবর্তী খবর

বিয়ের সিদ্ধান্তে যাওয়ার আগে যেসব বিষয় খেয়াল রাখবেন

অনলাইন ডেস্ক

বিয়ের সিদ্ধান্তে যাওয়ার আগে যেসব বিষয় খেয়াল রাখবেন

প্রতীকী ছবি

শীত পড়তে শুরু করেছে। আর শীতকাল মানেই বিয়ের মরসুম। বিয়ে হল দু’জন মানুষের আত্মিক বন্ধন। এই বন্ধনকে দৃঢ় করতে দু’জন মানুষের সমান অবদান থাকে। কোনও একজন যদি খানিক অন্য পথে হাঁটতে থাকেন তাহলে সম্পর্ক তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়তে পারে। তাই শুধু বিয়ের দিনেই নয়, সারাজীবন ভাল থাকতে জীবনসঙ্গীকে নির্বাচনে বাড়তি সতর্কতা প্রয়োজন। প্রকৃত জীবনসঙ্গী পেতে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে চলুন জেনে নেই।   

কথা দিয়ে কথা না রাখা: আপনার সঙ্গী যদি কোনও বিষয়ে আপনাকে কথা দিয়ে বার বার ভঙ্গ করেন তাহলে বুঝবেন তিনি হয়তো কিছু লুকোতে চাইছেন আপনার কাছে।

অস্বাভাবিক ব্যবহার করা: বন্ধু বা আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে অনীহা দেখালে তা নিয়ে ভেবে দেখা উচিত।আপনাকেও যদি তাঁর বন্ধুবান্ধব বা আত্মীয়দের সঙ্গে মিশতে বাধা দেন, তা হলেও বিষয়টা সন্দেহজনক।

বার বার ক্ষমা চাওয়া: যদি আপনার সঙ্গী একই ভুলের পুনরাবৃত্তি ঘটিয়ে থাকেন এবং বার বারই ক্ষমা চেয়ে নেন, সেক্ষেত্রে তাঁকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বাছার আগে ভেবে নিন।

আপনাকে নিয়ন্ত্রণ করছেন: আপনার পোশাক-আশাক, খাওয়া-দাওয়া, গতিবিধি যদি আপনার সঙ্গী দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় সেক্ষেত্রে সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে পারেন।

আরও পড়ুন:


পেয়ারার যত উপকারিতা!


মিথ্যে কথা বলা: লক্ষ্য রাখুন কারণে-অকারণে আপনার সঙ্গী মিথ্যে কথা বলছেন না তো? যদি তা হয়ে থাকে তা সত্যিই ভাবনার বিষয়।

আপনার মতামত তাঁর কাছে গুরুত্ব পাচ্ছে না: সঙ্গীর আত্ম অহংকারের কারণে তাঁর কাছে যদি আপনার মতামত গুরুত্ব না পায় তা হলেও আরও এক বার ভেবে নিন।

news24bd.tv রিমু      

পরবর্তী খবর

দাড়িতে খুশকির সমস্যা সমাধানে সহজ উপায়

অনলাইন ডেস্ক


দাড়িতে খুশকির সমস্যা সমাধানে সহজ উপায়

দাড়িতে খুশকির সমস্যা

মাথার খুশকির সঙ্গে আমরা পরিচিত হলেও অনেকের দাড়িতেও এ সমস্যা দেখ দিতে পারে।  বিষয় নিয়ে একটি ভিডিও তৈরি করে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন ভারতীয় চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মাধুরী আগারওয়াল। আর তারই আলোকে একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

দাড়িতে খুশকির সমস্যা দেখা দিলে তা দূর করতে জেনে নিন এ বিশেষজ্ঞের টিপস—

১. দাড়িতে খুশকির সমস্যা দেখা দিলে আপনার মুখ ধোয়ার জন্য খুব গরম বা খুব ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করবেন না। পরিবর্তে হালকা গরম পানি ব্যবহার করুন।  কারণ এটি ত্বকের প্রাকৃতিক তেলগুলোকে না উঠিয়ে ফেলে ত্বককে ডিহাইড্রেটেড করবে না।

২. দাড়ির খুশকি দূর করতে নিয়মিত শুকনো এক্সফোলিয়েশন ব্যায়াম করা বা মুখে মাসাজ করা উচিত।

৩. মুখ পরিষ্কার করতে ভারসাম্যপূর্ণ পিএইচ সমৃদ্ধ ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে। কারণ এটি ত্বকের হাইড্রেশনের মাত্রা অক্ষত রাখতে নিশ্চিত করবে। আর পিএইচ সমৃদ্ধ ক্লিনজার ব্যবহার করলে তা মুখের ত্বককে আরও বেশি কোমল এবং মসৃণ করে তুলবে।


আরও পড়ুন:

ক্ষেপলেন পাপন, বললেন এতো বাজে পারফরমেন্স ৮ বছরে দেখিনি

কুয়েটে শিক্ষকের মৃত্যু: ছাত্রলীগ নেতাসহ ৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

ইউপি নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে নৌকা পেলেন যারা


৪. খুশকিবিরোধী সাবান ও শ্যাম্পু ব্যবহার করলে আপনার দাড়ি শুকনো হয়ে থাকবে। তাই এগুলো ব্যবহার করা এড়িয়ে চলুন এবং আপনার মুখ নিয়মিত ধোয়ার অভ্যাস করুন।

৫. দাড়ি থেকে খুশকি দূরে রাখতে আপনার দাড়িকে লোশন দিয়ে ময়শ্চারাইজ করুন। এটি দিনে ২-৩ বার করলে তা দাড়ি ভালো রাখতেও সহায়তা করে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

রিবন্ডেড চুলের যত্ন নেওয়ার টিপস

অনলাইন ডেস্ক


রিবন্ডেড চুলের যত্ন নেওয়ার টিপস

ফাইল ছবি

শখের বসে হোক কিংবা অন্য কোনো কারণে অনেকেই চুল রিবন্ডিং করেন। কিন্তু এরপর যে চুলটির বিশেষ যত্ন নিতে হয় তা আমাদের অনেকেরই অজানা। ফলে চুল দুর্বল হয়ে যায়, শুরু হয় চুল পড়া। 

রিবন্ডেড চুলের যত্ন কিভাবে নিতে হয় আসুন সেটা জেনে নেই:-

১. রিবন্ডিং করা চুলের যত্নে অয়েল ম্যাসাজ খুব গুরুত্বপূর্ণ। সপ্তাহে তিন দিন শ্যাম্পু করার এক ঘণ্টা আগে চুলে অয়েল ম্যাসাজ করুন। এতে চুলের স্বাস্থ্য ভালো থাকে। 

২. গোসলের আগে গরম পানিতে তোয়ালে চুবিয়ে আধা ঘণ্টা চুল পেঁচিয়ে রাখুন। এরপর শ্যাম্পু করুন। এতে রক্ত সঞ্চালন বাড়বে। চুলের রুক্ষ ভাব কমবে। তবে ভেজা তোয়ালে অনেকক্ষণ পেঁচিয়ে রাখবেন না, এতে চুলের গোড়া দুর্বল হয়ে যায়।

৩.রিবন্ডেড চুলের জন্য হালকা শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। আজকাল মার্কেটে রিবন্ডেড হেয়ারের জন্য ভালো মানের শ্যাম্পু পাওয়া যায়। শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। রিবন্ডিং করা চুলের জন্য আলাদা শ্যাম্পু কন্ডিশনার পাওয়া যায়। সেগুলো ব্যবহার করুন।

৪.দিনে তিনবার মোটা দাঁতের চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন, এতে মাথার ত্বকের রক্ত সঞ্চালন বাড়ে। তবে ভেজা চুল আঁচড়ানো যাবে না। এতে চুলে অনেক ক্ষতি হয়।

আরও পড়ুন:


আফ্রিকার ৭ দেশ থেকে এলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন

দুই হাত হারানো ফাল্গুনীকে বিয়ে করলো এনজিও কর্মী সুব্রত

স্বাধীনতার ৫০ বছরে স্বাস্থ্যখাতে অভাবনীয় সাফল্য

ঢাকার যানজটেই শেষ জিডিপির প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা


৫. অনেকেই চুল শুকানোর জন্য হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করেন। রিবন্ডিং করা চুলে এটা ব্যবহার করা যাবে না। চুল তাপ থেকে দূরে রাখতে হবে। অতিরিক্ত তাপে চুল ভেঙে যাবে। চুল শুকানোর জন্য তোয়ালে ব্যবহার করতে হবে। তবে তোয়ালে দিয়ে চুল জোরে জোরে ঘষা যাবে না।

৬. চুলের আগা কেটে ফেলার পর চুলে প্রোটিন প্যাক, ডিপ কন্ডিশনিং কিংবা হেয়ার স্পা করতে পারেন। যেমন ডিম একটি, ক্যাস্টর অয়েল এক চামচ, লেবুর রস এক চামচ ও মধু এক চামচ একসঙ্গে মিশিয়ে স্কাল্পে লাগান। এরপর শাওয়ার ক্যাপ বা তোয়ালে দিয়ে মাথা ঢেকে রাখুন। এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করুন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

চর থাপ্পড়ে বাড়বে সৌন্দর্য্য, আগ্রহ বাড়ছে নারীদের

অনলাইন ডেস্ক

চর থাপ্পড়ে বাড়বে সৌন্দর্য্য, আগ্রহ বাড়ছে নারীদের

থাপ্পড় থেরাপি।

ত্বকের সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে মানুষ কত কিছুই না করে থাকে। ছুটে যায় দেশ-বিদেশে। খরচ করে কাড়িকাড়ি টাকা। কিন্তু এবার  নিজেকে সুন্দর করে তুলতে ‘থাপ্পড় থেরাপি’ নামে একটি পদ্ধতি আবিষ্কার করা হয়েছে। অবাক হবেন নিশ্চয়।

সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে অ্যারোমা থেরাপির পাশাপাশি জায়গা করে নিয়েছে ‘থাপ্পড় থেরাপিও’।

মূলত দক্ষিণ কোরিয়ার নারীরাই এই থেরাপির প্রচলন শুরু করেন।

ত্বকের যত্ন নিতে সেখানকার নারীরা নিজেদের গালে থাপ্পড় মারতেন। তারপর এই থেরাপি শুধু দক্ষিণ কোরিয়াতেই সীমাবদ্ধ থাকেনি, ধীরে ধীরে গোটা বিশ্বেও বেশ জনপ্রিয় হয়।

রূপচর্চার অঙ্গ এই ‘থাপ্পড় থেরাপির’ পদ্ধতি হলো হাতের তালুর দ্বারা নিজের উভয় গালেই হাল্কা হাতে, আলতো করে চড় মারা।

আরও পড়ুন: 


৪ অভিজ্ঞ ছাড়াই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে লড়বে পাকিস্তান


যেভাবে কাজ করে থাপ্পড় থেরাপি

হাতের তালু দিয়ে গালে থাপ্পড় মারার ফলে মুখের রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকে। ত্বককে ভীতর থেকে পরিষ্কার করতে সাহায্য করে এই পদ্ধতি। মুখের প্রতিটি অংশে রক্ত প্রবাহ বেড়ে যায়। ফলে ত্বক হয়ে ওঠে জেল্লাদার ও উজ্জ্বল।

news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

কোন বাদাম উপকারী: কাঁচা নাকি ভাজা?

অনলাইন ডেস্ক

কোন বাদাম উপকারী: কাঁচা নাকি ভাজা?

বাদাম

বাদাম স্বাস্থ্যকর স্ন্যাকস হিসেবে বেশ সুপরিচিত। এতে রয়েছে ক্যালরি, প্রোটিন, ফ্যাট, কার্বোহাইড্রেট, ফাইবার, ভিটামিন ই, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, কপার, ম্যাংগানিজ ইত্যাদি। 

বাদাম থেকে শরীরের জন্য উপকারী কোলেস্টেরল পাওয়া যায়। এছাড়া এতে রয়েছে সি-রিঅ্যাক্টিভ প্রোটিন ও ইন্টারলিউকিন  যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। ফাইবার সমৃদ্ধ বাদাম দূর করে হজমের গণ্ডগোল।

বাদাম খেলে হৃদপিণ্ড সক্রিয় থাকে। নিয়মিত বাদাম খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। এমনকি রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে বাদাম। 

বাদাম কাঁচা বা ভাজা দুই অবস্থাতেই খাওয়া যায়। তবে কোন বাদাম খাওয়া বেশি উপকারী? 

দুই ধরণের বাদামেই রয়েছে উপকারিতা। কাঁচা বাদামে অনেক সময় ব্যাকটেরিয়া থাকে যেগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আবার ভাজা বাদাম হারিয়ে ফেলে কিছু পুষ্টিগুণ।

ফলে বাইরে থেকে সরাসরি ভাজা বাদাম না কিনে কাঁচা বাদাম কিনে তা বাড়িতে ভেজে খেতে পারেন। এতে বাইরের অতিরিক্ত লবণ, চিনি কিংবা তেল থেকে মুক্ত থাকা যাবে।

আরও পড়ুন:

আইপিএলে নিজের বেতন কমালেন কোহলি


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর