কুমিল্লার ঘটনায় যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

কুমিল্লার ঘটনায় যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনার উদ্দেশ্যমূলক। কোনো স্বার্থান্বেষী মহল এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেছেন, এ ঘটনায় ইতিমধ্যে কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে ,খুব দ্রুতই গ্রেপ্তার করা হবে।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) সচিবালয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

‘কুমিল্লায় কয়েকজন সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যারা এসব কাজে উস্কানি দিয়েছেন তাদেরকেও গ্রেপ্তার করা হবে।’

আরও পড়ুন:


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইপিএল নিয়ে জুয়া, ৩ জনের সাজা

চট্টগ্রাম আদালত এলাকায় বোমা হামলা মামলার রায় আজ

টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে আদালতে ট্রাম্প

যুবলীগ নেতার সঙ্গে ভিডিও ফাঁস! মামলা তুলে নিতে নারীকে হুমকি


কুমিল্লার ঘটনায় তদন্ত চলছে ,যারাই করেছেন তাদের নিশ্চিত করে গ্রেপ্তার করা হবে।

তিনি আরও বলেছেন, দেশের সকল পুজা পন্ডমে সিসিটিভির ক্যামেরার আওতায় আনা হবে।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

রাজনৈতিক দলের উস্কানিতে রাস্তায় শিক্ষার্থীরা: ওবায়দুল কাদের

অনলাইন ডেস্ক

রাজনৈতিক দলের উস্কানিতে রাস্তায় শিক্ষার্থীরা: ওবায়দুল কাদের

ছাত্র আন্দোলনে ভিডিও ফুটেজ দেখে উস্কানিদাতাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সকালে মানিক মিয়া এভিনিউতে বিআরটিএ আয়োজিত সড়ক নিরাপত্তা এবং গণসচেতনতা বৃদ্ধিমূলক কার্যক্রমে অংশ নিয়ে এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন সাধারণ শিক্ষার্থীদের না, এটি একটি রাজনৈতিক দলের উস্কানি।

নিরাপদ সড়ক এবং অর্ধেক বাস ভাড়া নিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সব দাবি মেনে নেবার পরও কাদের অনুপ্রবেশে মধ্যরাতে আন্দোলন হচ্ছে এবং যে কোন ঘটনা মুহূর্তের মধ্যে বাঁশের কেল্লা লাইভ করছে বলে প্রশ্ন তোলেন ওবায়দুল কাদের। স্কুলের পোশাক পরে একটি দলের মহানগরের নেত্রী এসব উস্কানি দিচ্ছেন এমন ভিডিও ফুটেজ আছে বলেও জানান কাদের।

তিনি আরও বলেন, নিরাপদ সড়কের আন্দোলন যে কারণে হচ্ছে, সেই কারণগুলো অযৌক্তিক না, আমি স্বীকার করি। ছাত্র-ছাত্রীরা যখন আন্দোলন থামিয়ে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করছে ঠিক তখনই রাজনৈতিক উস্কানি দিয়ে তাদের মাঠে নামানো হচ্ছে। এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক।  

ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, করোনা মহামারীর কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনার অনেক ক্ষতি হয়েছে। অনেক মূল্যবান সময় নষ্ট হয়ে গেছে। তারা ক্যাম্পাসে ফিরে যাক। পড়াশোনায় মনোনিবেশ করুক। ছাত্র-ছাত্রীদের নিকট এটাই আমাদের পরামর্শ। 

আরও পড়ুন


রাজশাহীর সেই মেয়রের অবৈধ মার্কেট উচ্ছেদ

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

ইউপি নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে নৌকা পেলেন যারা

অনলাইন ডেস্ক

ইউপি নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে নৌকা পেলেন যারা

প্রতীকী ছবি

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে পঞ্চম ধাপের জন্য রংপুর বিভাগের একাংশ এবং খুলনা ও বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

শুক্রবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগ সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের মুলতুবি সভায় এই প্রার্থিতা চূড়ান্ত করা হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, সভায় পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে খুলনা ও বরিশাল বিভাগ এবং রংপুর বিভাগের দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:


কুমিল্লায় জোড়া খুন: নেপথ্যে কারা, জানতে চায় পরিবার


ইউপিতে নৌকার টিকিট পেলেন যারা

রংপুর বিভাগ : দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার মন্মথপুরে ওয়াদুদ আলী, চণ্ডিপুরে মজিবর রহমান সরকার, মোমিনপুরে আবদুর রাজ্জাক সরকার, মোস্তফাপুরে ভবতোষ রায়, হাবড়ায় আনিসুজ্জামান সরকার, হামিদপুরে রেজওয়ানুল হক, বেলাই চণ্ডিতে নুর মোহাম্মদ রাজা, হরিরামপুরে মোজাহিদুল ইসলাম আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

খুলনা বিভাগ : কুষ্টিয়া জেলার কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ-হরিপুরে সম্পা মাহামুদ, বটতৈলে মোমিন মণ্ডল, আলামপুরে আব্দুল হান্নান, আইলচারায় মোতালেব হোসেন, উজানগ্রামে সাবুবিন ইসলাম, হরিনারায়ণপুরে মহিউদ্দিন, পাটিকাবাড়ীতে মোহাম্মদ সাইদুর রহমান, ঝাউদিয়ায় জহুরুল ইসলাম, আব্দালপুরে আরব আলী, মনোহরদিয়ায় শহিদুল ইসলাম, গোস্বামীদুর্গাপুরে লাল্টু রহমান।

ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার ত্রিবেনীতে সেকেন্দার আলী মোল্যা, মির্জাপুরে ফিরোজ আহমেদ, দিগনগরে জিল্লুর রহমান, কাঁচেরকোলে সালাহউদ্দীন জোয়ার্দার, সারুটিয়ায় মাহামুদুল হাসান, হাকিমপুরে কামরুজ্জামান, ধলহরান্দ্রে মতিয়ার রহমান, বগুড়ায় শফিকুল ইসলাম, আবাইপুরে মুখতার আহমেদ মৃধা, উমেদপুরে সাব্দার হোসেন মোল্লা, দুধসরে সাহাবুদ্দিন, ফুলহরিতে জামিনুর রহমান। হরিণাকুণ্ডু উপজেলার ভায়নায় নাজমুল হুদা, জোড়াদহে জাহিদুল ইসলাম, তাহেরহুদায় আতিয়ার রহমান, দৌলতপুরে শেরেগুল ইসলাম, কাপাশহাটিয়ায় মশিউর রহমান জেয়ার্দার, ফলসীতে নিমাই চাঁদ মণ্ডল, রঘুনাথপুরে আবদুল কাদের, চাঁদপুরে আজিজুর রহমান আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার ত্রিমোহিনীতে শেখ অহিদুজ্জামান, সাগরদাঁড়িতে অলিয়ার রহমান, মজিদপুরে মনোজ কুমার তরফদার, বিদ্যানন্দকাটিতে সামছুর রহমান, মঙ্গলকোটে আবদুল কাদের বিশ্বাস, কেশবপুরে গৌতম রায়, পাঁজিয়ায় জসীম উদ্দীন, সুফলাকাটিতে গোলাম কিবরিয়া মনি, গৌরীঘোনায় হাবিবুর রহমান, সাতবাড়ীয়ায় শামছুন্নাহার বেগম, হাসানপুরে তৌহিদুজ্জামান। যশোর সদর উপজেলার হৈবতপুরে আবু সিদ্দিক, লেবুতলায় আলীমুজ্জামান, ইছালীতে ফেরদৌসী ইয়াসমিন, নওয়াপাড়ায় রাজিয়া সুলতানা, উপশহরে এহসানুর রহমান, চুড়ামনকাটিতে দাউদ হোসেন, দেয়াড়ায় লিয়াকত আলী, রামনগরে নাজনীন নাহার, কচুয়ায় লুৎফর রহমান ধাপক, নরেন্দ্রপুরে মোদাচ্ছের আলী, বসুন্দিয়ায় রিয়াজুল ইসলাম খান, চাঁচড়ায় সেলিম রেজা, আরবপুর মীরে আরশাদ আলী, কাশিমপুরে শরিফুল ইসলাম, ফতেপুরে শেখ সোহরাব হোসেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার শোভনালীতে শম্ভু চরণ মণ্ডল, বুধহাটায় মাহবুবুল হক, কুল্যায় আবদুল বাছেত, দরগাহপুরে শেখ মিরাজ আলী, বড়দলে আবদুল আলীম মোল্যা, আশাশুনিতে হোসেনুজ্জামান, শ্রীউলায় আবু হেনা ম. সাকিলুর রহমান, খাজরায় শাহ নেওয়াজ, আনুলিয়ায় শাহাবুদ্দীন সানা, প্রতাপনগরে শেখ জাকির হোসেন, কাদাকাটিতে দীপংকর কুমার সরকার। কলারোয়া উপজেলার কেরালকাতায় মোরশেদ আলী, কুশোডাংগায় আসলামুল আলম। শ্যামনগর উপজেলার ভুরুলিয়া জাফরুল আলম, শ্যামনগরে জহুরুল হায়দার, ঈশ্বরীপুরে শোকর আলী আওয়ামী লীগের।

বরিশাল বিভাগ : ভোলা জেলার ভোলা সদর উপজেলার ইলিশায় মোহাম্মদ সোহরাওয়ার্দী, পশ্চিম ইলিশায় মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, ধনিয়ায় এমদাদ হোসেন কবির, শিবপুরে জসিম উদ্দিন, আলীনগরে বশির আহাম্মদ, চরসামাইয়ায় মহিউদ্দীন মাতাব্বর, ভেলুমিয়ায় আবদুছ সালাম, ভেদুরিয়ায় আবদুল হাই, উত্তর দিঘলদীতে লিয়াকত হোসেন, দক্ষিণ দিঘলদীতে ইফতারুল হাসান, রাজাপুরে মিজানুর রহমান, বাপ্তায় ইয়ানুর রহমান মনোনয়ন পেয়েছেন। পিরোজপুর জেলার ভাণ্ডারিয়া উপজেলার ইকরি ইউপিতে হুমায়ূন কবির। মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানীসাফায় হারুন অর রশিদ, দাউদখালীতে ফজলুল হক খান, টিকিকাটায় রফিকুল ইসলাম রিপন, বড়মাছুয়ায় আয়েশা আক্তার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

‘অটোপাস ও রাইতের পাস এমপি’ বলায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

‘অটোপাস ও রাইতের পাস এমপি’ বলায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

ময়মনসিংহের নান্দাইলের চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা মো. এমদাদুল হক ভূঞার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। ময়মনসিংহ-৯ নান্দাইল আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিনকে ‘রাইতের পাস এমপি’ বলায় এ মামলা দায়ের করা হয়।মো. এমদাদুল হক ভূঞা চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও বাংলাদেশ চেয়ারম্যান সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক।

বুধবার রাতে নান্দাইল মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ধুরুয়া গ্রামের মৃত আবদুল খালেকের পুত্র মো. তৌফিকুল ইসলাম মামুন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

নান্দাইল মডেল থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান রহমান আকন্দ মামলাটি এফআইআর ভুক্ত করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনা


 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ২৩ নভেম্বর রাতে বাশঁহাটি বাজারে আওয়ামী লীগের এক অংশের তৃণমূল বর্ধিত সভায় ময়মনসিংহ-৯ নান্দাইল আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিনকে কটাক্ষ করে ইউপি চেয়ারম্যান মো. এমদাদুল হক ভূঞা বলেন, ‘২০১৪ সালে অটোপাস, ২০১৮ সালে রাইতের পাস, ২০২৩ সালে হবে উনার গোয়ায় বাঁশ।’

এতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকারের বৈধতা ও বর্তমান সংসদ সদস্যের মর্যাদা মারাত্মকভাবে ক্ষুণ্ণ হয় বলে বাদী এজাহারে উল্লেখ্য করেন। ছাত্রলীগ নেতা মামুন দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করে এই মামলা দায়ের করেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

খালেদা জিয়ার অবস্থা ক্রিটিক্যাল : জাফরুল্লাহ

অনলাইন ডেস্ক

খালেদা জিয়ার অবস্থা ক্রিটিক্যাল : জাফরুল্লাহ

খালেদা জিয়ার অবস্থা গুরুতর জানিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন,  আমি তাকে দেখতে গিয়েছিলাম। তার অবস্থা ক্রিটিক্যাল, কখন কী হয় বলা যায় না, আমরা কেউ জানি না।

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে গণফোরামের একাংশের কাউন্সিলে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, আমি তাদের একটি অনুরোধ করেছি। তারেক রহমানের নেতৃত্ব নিয়ে আমি কোনো কথা বলছি না। আজ তারেকের উচিত প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে ফোন করে বলা। আমাকে পছন্দ করেন আর না করেন, মায়ের জন্য সবাই দোয়া করেন। তার জীবন বাঁচান।

তিনি আরো বলেন, তারেক আরো এক শ বুদ্ধিজীবীকেও ফোন করে বলবেন আপনাদের প্রতি অনুরোধ, আমার মায়ের জীবন বাঁচান। আর মির্জা ফখরুলসহ সবাই প্রতিটি পার্টির কাছে যাবেন এবং বলবেন আসেন, আমরা সবাই ঈদগাহ মাঠে এক ঘণ্টার জন্য সমবেত হই।   


আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বাবা অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক বন্ধু ছিলেন উল্লেখ করে ড. জাফরুল্লাহ বলেন, যখন এরশাদ কোনো আইনজীবী পাচ্ছিলেন না, তখন অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক তাকে সাহায্য করেছিলেন। তার ছেলে আজকের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। এই সরকারের আরেকটা বিচার হবে। দুর্নীতির মামলার বিচার হবে।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনা


 

বিচারপতিদের উদ্দেশে জাফরুল্লাহ বলেন, আপনারা খালেদা জিয়াকে জামিন দিতে পারেন। আমি তো মামলা তুলে নেওয়ার কথা বলছি না। কিন্তু তাকে জামিনটা দিচ্ছেন না। একজন প্রধান বিচারপতি হবেন। প্রধানমন্ত্রী কার দিকে চোখ দেন, সে জন্য একজন বিচারপতিও কথা বলছেন না বলেও জানান তিনি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেল আইভী

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেল আইভী

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী।

শুক্রবার বিকালে গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড ও দলের সংসদীয় বোর্ডের যৌথ সভায় এ মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ সিটিতে দলীয় প্রার্থী হতে চার জন নেতার নাম আসে। এর মধ্যে থেকে আইভীকেই আবারও বেছে নিল আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনা


বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটির ভোট হয়েছিল। প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয় ২০১৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি। সেক্ষেত্রে বর্তমান সিটি করপোরেশনের জনপ্রতিনিধিদের ২০২২ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। তাই মেয়াদ শেষ হওয়ার ছয় মাসের (১৮০ দিন) মধ্যে চলতি বছরের ১১ আগস্ট থেকে আগামী বছরের ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সিটির নির্বাচন করার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর