‌কোনো অপশক্তি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে পারবে না: জিএম কাদের

অনলাইন ডেস্ক

‌কোনো অপশক্তি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে পারবে না: জিএম কাদের

কোনো অপশক্তি বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে পারবে না। সম্প্রীতি বিনষ্টের সব ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করা হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের বুধবার বিকেলে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী, রমনা কালিমন্দির এবং রামকৃষ্ণ মিশন পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের এ কথা বলেন তিনি।

আরও পড়ুন:


আওয়ামী লীগ বলেছে, তারা সেদিকে যাবে না: ফখরুল 

ঢাকা-উত্তরবঙ্গ সড়কে এমন যানজট দেখেনি কেউ

কুমিল্লার ঘটনায় যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তিনি হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে জিএম কাদের বলেন, শুধু হিন্দু সম্প্রদায় নয়, সর্বজনীন দুর্গোৎসবে এ দেশের মুসলিম-বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়ও উৎসবমুখর পরিবেশে অংশ নেয়। আশা করছি, বাংলাদেশে বিরাজমান হাজার বছরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য আরও সমৃদ্ধ হবে। আরও সুসংহত হবে বাংলাদেশে অসাম্প্রদায়িক চেতনা।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

‘অটোপাস ও রাইতের পাস এমপি’ বলায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

‘অটোপাস ও রাইতের পাস এমপি’ বলায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

ময়মনসিংহের নান্দাইলের চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা মো. এমদাদুল হক ভূঞার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। ময়মনসিংহ-৯ নান্দাইল আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিনকে ‘রাইতের পাস এমপি’ বলায় এ মামলা দায়ের করা হয়।মো. এমদাদুল হক ভূঞা চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও বাংলাদেশ চেয়ারম্যান সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক।

বুধবার রাতে নান্দাইল মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ধুরুয়া গ্রামের মৃত আবদুল খালেকের পুত্র মো. তৌফিকুল ইসলাম মামুন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

নান্দাইল মডেল থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান রহমান আকন্দ মামলাটি এফআইআর ভুক্ত করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনা


 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ২৩ নভেম্বর রাতে বাশঁহাটি বাজারে আওয়ামী লীগের এক অংশের তৃণমূল বর্ধিত সভায় ময়মনসিংহ-৯ নান্দাইল আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিনকে কটাক্ষ করে ইউপি চেয়ারম্যান মো. এমদাদুল হক ভূঞা বলেন, ‘২০১৪ সালে অটোপাস, ২০১৮ সালে রাইতের পাস, ২০২৩ সালে হবে উনার গোয়ায় বাঁশ।’

এতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকারের বৈধতা ও বর্তমান সংসদ সদস্যের মর্যাদা মারাত্মকভাবে ক্ষুণ্ণ হয় বলে বাদী এজাহারে উল্লেখ্য করেন। ছাত্রলীগ নেতা মামুন দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করে এই মামলা দায়ের করেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

খালেদা জিয়ার অবস্থা ক্রিটিক্যাল : জাফরুল্লাহ

অনলাইন ডেস্ক

খালেদা জিয়ার অবস্থা ক্রিটিক্যাল : জাফরুল্লাহ

খালেদা জিয়ার অবস্থা গুরুতর জানিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন,  আমি তাকে দেখতে গিয়েছিলাম। তার অবস্থা ক্রিটিক্যাল, কখন কী হয় বলা যায় না, আমরা কেউ জানি না।

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে গণফোরামের একাংশের কাউন্সিলে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, আমি তাদের একটি অনুরোধ করেছি। তারেক রহমানের নেতৃত্ব নিয়ে আমি কোনো কথা বলছি না। আজ তারেকের উচিত প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে ফোন করে বলা। আমাকে পছন্দ করেন আর না করেন, মায়ের জন্য সবাই দোয়া করেন। তার জীবন বাঁচান।

তিনি আরো বলেন, তারেক আরো এক শ বুদ্ধিজীবীকেও ফোন করে বলবেন আপনাদের প্রতি অনুরোধ, আমার মায়ের জীবন বাঁচান। আর মির্জা ফখরুলসহ সবাই প্রতিটি পার্টির কাছে যাবেন এবং বলবেন আসেন, আমরা সবাই ঈদগাহ মাঠে এক ঘণ্টার জন্য সমবেত হই।   


আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বাবা অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক বন্ধু ছিলেন উল্লেখ করে ড. জাফরুল্লাহ বলেন, যখন এরশাদ কোনো আইনজীবী পাচ্ছিলেন না, তখন অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক তাকে সাহায্য করেছিলেন। তার ছেলে আজকের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। এই সরকারের আরেকটা বিচার হবে। দুর্নীতির মামলার বিচার হবে।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনা


 

বিচারপতিদের উদ্দেশে জাফরুল্লাহ বলেন, আপনারা খালেদা জিয়াকে জামিন দিতে পারেন। আমি তো মামলা তুলে নেওয়ার কথা বলছি না। কিন্তু তাকে জামিনটা দিচ্ছেন না। একজন প্রধান বিচারপতি হবেন। প্রধানমন্ত্রী কার দিকে চোখ দেন, সে জন্য একজন বিচারপতিও কথা বলছেন না বলেও জানান তিনি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেল আইভী

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেল আইভী

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী।

শুক্রবার বিকালে গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড ও দলের সংসদীয় বোর্ডের যৌথ সভায় এ মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ সিটিতে দলীয় প্রার্থী হতে চার জন নেতার নাম আসে। এর মধ্যে থেকে আইভীকেই আবারও বেছে নিল আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনা


বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটির ভোট হয়েছিল। প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয় ২০১৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি। সেক্ষেত্রে বর্তমান সিটি করপোরেশনের জনপ্রতিনিধিদের ২০২২ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। তাই মেয়াদ শেষ হওয়ার ছয় মাসের (১৮০ দিন) মধ্যে চলতি বছরের ১১ আগস্ট থেকে আগামী বছরের ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সিটির নির্বাচন করার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

ছাত্র আন্দোলনে হয়রানি করলে জবাব রাজপথে দেবো: নুর

অনলাইন ডেস্ক

ছাত্র আন্দোলনে হয়রানি করলে জবাব রাজপথে দেবো: নুর

ব্ক্তব্য রাখছেন নুরুল হক নুর

নিরাপদ সড়ক ও সারাদেশে সকল শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ পাস ভাড়াসহ ১১ দফা দাবিতে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের হয়রানি না করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর। এসময় তিন কড়া হুঁশিয়ারিও দেন।

তিনি বলেন, সারাদেশে ছাত্রদের হাফ ভাড়া কার্যকর করতে হবে। ছাত্র আন্দোলনে কাউকে হয়রানি করা যাবে না। যদি হয়রানি করা হয়, মামলা দেওয়া হয়, তবে তার জবাব আমরা রাজপথে এসে দেবো।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

গণ অধিকার পরিষদ আয়োজিত নিরাপদ সড়ক, শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর ও জ্বালানি তেলের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। 

নুর বলেন, সরকার ২০১১ সালে পঞ্চদশ সংশোধনী করেছিল মাত্র ৯ দিনের ব্যবধানে। মধ্যরাতে কোর্ট বসিয়ে সাংবাদিককে সাজা দিতে পারেন। সেই নির্যাতনকারী ডিসিকে রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করতে পারেন। আর জনগণের জন্য আইন করতে পারবেন না। মশকরা করেন জনগণের সঙ্গে? আপনাদের দাঁত কেলানি অনেক দেখেছে জনগণ, এবার কিন্তু দাঁত তুলে ফেলবে।

তিনি বলেন, বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমে এসেছে। কিন্তু আওয়ামী সরকার কি কমিয়েছে? এরা চোরের দল, চাটার দল। একবার চুরি করতে পারলে, একবার দাম বাড়ালে, সেখান থেকে আর সরে আসে না।

আরও পড়ুন:


আফ্রিকার ৭ দেশ থেকে এলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন

দুই হাত হারানো ফাল্গুনীকে বিয়ে করলো এনজিও কর্মী সুব্রত

স্বাধীনতার ৫০ বছরে স্বাস্থ্যখাতে অভাবনীয় সাফল্য

ঢাকার যানজটেই শেষ জিডিপির প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা


তিনি বলেন, রামপুরায় এক ছাত্র নিহতের ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতা কয়েকটি বাসে আগুন দিয়েছে। কারা করেছে সেটা তদন্ত সাপেক্ষে বেরিয়ে আসতে পারে। কিন্তু সেটি করার আগেই সরকার বিরোধীদলের ওপর দায় চাপিয়ে দেয়, ছাত্রদের ওপর দায় চাপিয়ে দেয়।

বিক্ষোভ সমাবেশে গণ অধিকার পরিষদের সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক রাশেদ খান, ফারুখ হোসেন, শাকিল উজ্জজামান, সাদ্দাম হোসেন, আবু হানিফ, যুগ্ম সদস্য সচিব মশিউর রহমান, ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আজীবন বঙ্গবন্ধুকে বুকে লালন করে যাবো :কাদের সিদ্দিকী

অনলাইন ডেস্ক

আজীবন বঙ্গবন্ধুকে বুকে লালন করে যাবো :কাদের সিদ্দিকী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, আমি তো আপনাকে ভালোবাসি, আপনার কর্মকাণ্ড ও দলের সমালোচনা করি। আওয়ামী লীগকে বঙ্গবন্ধু কবর দিয়ে গিয়েছিলেন। সে জন্য আমি আওয়ামী লীগ ছেড়েছি। তবে বঙ্গবন্ধুকে ছাড়ি নাই। আজীবন বঙ্গবন্ধুকে আমার বুকে লালন করে যাবো।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে গণফোরাম একাংশের ৬ষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলে বক্তব্যকালে তিনি এ কথা বলেন।

বঙ্গবীর বলেন, ৭৫ সালে সবাই আওয়ামী লীগ হয়েছিল। এমনকি জিয়াউর রহমান পর্যন্ত বাকশালের সদস্য হয়েছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধু মারা যাওয়ার পর কেউ দাঁড়ায়নি। কেউ কথা বলেনি। আমি বলেছিলাম বঙ্গবন্ধুর তিন ছেলে কামাল-জামাল-রাসেল মারা গেলেও আমি কাদের সিদ্দিকী মরিনি। বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিশোধ আমরা নেবই নেব। চেষ্টা করেছি। আজকে যারা ক্ষমতায় আছেন, সেদিন যদি আমি অস্ত্র হাতে না নিতাম, প্রতিবাদ না করতাম, তাহলে বহু নেতাকে কবরে পাঠিয়ে দেওয়া হতো।

এ সময় তিনি বলেন, আমার কাছে মনে হয় জাতীয় একটা সহনশীলতা দরকার। বিএনপিকে দেখতে পারে না আওয়ামী লীগ। আবার বিএনপি দেখতে পারে না আওয়ামী লীগকে। একটা সময় এমন না হয় যে আওয়ামী লীগ মরলে বিএনপির লোক যাবে না, আবার বিএনপির লোক মরলে আওয়ামী লীগ যাবে না। মসজিদে নামাজ পড়তে আওয়ামী লীগ গেলে আওয়ামী লীগের মৌলভী লাগবে, বিএনপি গেলে বিএনপির মৌলভী লাগবে। এরকম ভালো না।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনা


 

গণফোরাম নেতা অধ্যাপক আবু সাইয়িদের সভাপতিত্বে ও জগলুল হায়দার আফ্রিকের পরিচালনায় কাউন্সিলে আরো বক্তব্য দেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জেএসডি সভাপতি আসম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যর সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাইফুল হক, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মনিরুল হক চৌধুরী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম, গণফোরামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু, কাউন্সিল কমিটির সদস্য সচিব অ্যাড. সুব্রত চৌধুরী প্রমুখ।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর