সম্পত্তির জেরে মা-বাবা, ভাইকে কুপিয়ে হত্যা!

অনলাইন ডেস্ক

সম্পত্তির জেরে মা-বাবা, ভাইকে কুপিয়ে হত্যা!

স্বামী-স্ত্রীসহ তিন জনকে কুপিয়ে হত্যা করার অভিযোগে বড় ছেলে সাদ্দাম হোসেনকে (২৮) আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ থানার উত্তর সোনাপাহাড় গ্রামে। মা-বাবা ও ছোট ভাইকে হত্যায় সাদ্দামের স্বীকারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জোরারগঞ্জ থানার ওসি নূর হোসেন মামুন। তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা একটি ছুরি বাড়ির পেছন থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সাদ্দামের স্ত্রীকেও আটক করা হয়েছে। 

নিহতরা হলেন, মো. মোস্তফা সওদাগর (৫৬), তার স্ত্রী জোসনারা বেগম (৪৫) এবং তাদের ছোট ছেলে আহামদ হোসেন (২৫)।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মরদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (চমেক) মর্গে পাঠায় পুলিশ। 

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও নিহতদের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পরিবারের সম্পত্তি ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে তিন বছর ধরে নুরুল মোস্তফার সঙ্গে তাঁর বড় ছেলের বিরোধ চলছিল। মেজো ছেলে, স্ত্রী এবং একমাত্র মেয়ের নামে সম্পত্তি দলিল করে দেন মোস্তফা। এ থেকে বিরোধের সূত্রপাত।

স্থানীয় জোরারগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নম্বর মধ্যম সোনাপাহাড় ওয়ার্ডের সদস্য মনির আহম্মদ ভাসানী জানান, সম্পত্তি নিয়ে মোস্তফার সঙ্গে বড় ছেলে সাদ্দাম এবং ছোট ছেলে আলতাফ হোসেনের বনিবনা ছিল না। তবে এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে কোনো সালিস-দরবারও হয়নি।

নিহত নুরুল মোস্তফার ছোট ছেলে আলতাফ হোসেন জানান, ঘটনার রাতে তিনি মিরসরাইয়ের বারইয়ারহাট পৌর এলাকায় একটি মাছের আড়তে কর্মরত ছিলেন। ভোরবেলায় ফোনে খবর পেয়ে তিনি বাড়িতে আসেন। এ সময় আলতাফ বলেন, ‘মেজো ভাইয়ের আগে আমি বিয়ে করায় বাবা আমাকে তিন বছর আগে বাড়ি থেকে বের করে দেন। এরপর থেকে পরিবারের সঙ্গে আমার কোনো যোগাযোগ ছিল না।’

গতকাল সকালে প্রথমে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ, এরপর পিআইবি ও চট্টগ্রাম সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিটের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহের ডিএনএ ও হত্যাকাণ্ডের বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেন। এরপর দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (মিরসরাই সার্কেল) মোহাম্মদ লাবিব আব্দুল্লাহ উপস্থিত সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা বাড়ির ভেতর ডাকাতির কোনো আলামত পাইনি। ঘরের মূল্যবান জিনিসপত্র গোছানো ছিল। আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি পারিবারিক বিরোধ বিশেষ করে সম্পত্তি ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে নির্মম এ খুনের ঘটনা ঘটেছে।’ হত্যাকাণ্ডের পর ছাদেক হোসেন সাদ্দাম ও তাঁর স্ত্রী আইনুন নাহারকে আটক করা প্রসঙ্গে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘ঘরের ভেতরে সাদ্দামকে স্ত্রীসহ অক্ষত পাওয়া গেছে। তাই আমরা তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নিয়েছি। থানায় তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।’

আরও পড়ুন:


আজ বিজয়া দশমী

মনোনয়ন ফরম কিনতে গিয়ে জানলেন ১১ বছর আগেই মৃত!

জালিয়াতি থেকে রক্ষা পেল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ৩৫৫ কোটি টাকা

মাথার টুপিতে ৭৩৫টি ডিম নিয়ে গিনেস রেকর্ড! (ভিডিও)


পুলিশ আরো জানায়, নিহত নুরুল মোস্তফা ও জোসনা আক্তারের গলায় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো ছুরির আঘাত পাওয়া গেছে। তাঁরা দুজন একই কক্ষে মেঝেতে পড়ে ছিলেন। নিহত আহমদ হোসেনের গলা কাটা অবস্থায় নিজের শয়নকক্ষের মেঝেতে পড়ে ছিল।

news24bd.tv রিমু   

পরবর্তী খবর

চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে কলেজছাত্র নিহত

রফিকুল আলম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে কলেজছাত্র নিহত

হাসপাতালে নিহত আজিম

চাঁপাইনবাবগঞ্জের বটতলাহাট এলাকায় দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে আজিম (২২) নামে এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। নিহত আজিম পৌর এলাকার বটতলাহাট মাউড়িপাড়া মহল্লার হযরত আলীর ছেলে এবং নামোশংকরবাটী কলেজের এইচএসসি’র দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

এ ঘটনায় আরো ২ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। আহতরা হলো, নতুন হাট মন্ডলপাড়ার আব্দুল হাই এর ছেলে আব্দুল আলিম (১৮) ও বড়িপাড়ার আব্দুস সাত্তারের ছেলে ইমন (১৪)।

সোমবার রাত সোয়া ৯টার দিকে বটতলাহাট মাউরিপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

আহত আলিম জানান, পার্ক থেকে বের হয়ে যাওয়ার সময় কিছু বুঝে উঠার আগেই কে বা কারা পিছন দিক থেকে এসে আজিমকে ছুরিকাঘাত করে। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মোজাফফর হোসেন জানান, সোমবার রাত সোয়া ৯টায় বটতলা হাটের পাশে মাউড়িপাড়া এলাকায় ছুরিকাঘাতে এক যুবক নিহত হয়। বর্তমানে তার মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খাঁন জানান, নতুনহাট এলাকার দু’পক্ষের সাথে মোবাইল নিয়ে গোলমাল হয় এবং এর জের ধরেই প্রতিপক্ষরা আজিমকে ছুরিকাঘাত করলে সে মারা যায়। তিনি আরও জানান, নির্বাচনের আগের রাতে এই ঘটনা ঘটলেও এর সাথে রাজনৈতিক বা নির্বাচনের কোন সংশ্লিষ্ঠতা নেই।

আরও পড়ুন


হাফ পাসের বিষয়ে সিদ্ধান্ত আজ

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

রামপুরা ব্রিজ অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

অনলাইন ডেস্ক

রামপুরা ব্রিজ অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

রামপুরা ব্রীজে শিক্ষার্থীদের অবরোধ

সড়ক দুর্ঘটনায় একরামুন্নেছা স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী মাঈনুদ্দিন নিহতের প্রতিবাদে রাজধানীর রামপুরা ব্রিজ অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে এই বিক্ষোভ শুরু হয়। ফলে এই সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

গতকাল সোমবার (২৯ নভেম্বর) রাতে  রামপুরায় দুটি বাসের প্রতিযোগিতায় চাপা পড়ে নিহত হয় মাঈনুদ্দিন। এ ঘটনার জেরে রাতেই বেশ কয়েকটি বাসে অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষুব্ধ জনতা।

রামপুরার একরামুন্নেছা স্কুল অ্যান্ড কলেজের বাণিজ্য শাখা থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল মাঈনুদ্দিন। স্কুলের খাতায় তার নাম মঈন ইসলাম।

দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে মাঈনুদ্দিন সবার ছোট। বড় ভাই মনির ছোট একটি চাকরি করেন। মূলত বাবার টিনের ছোট্ট চায়ের দোকানের আয় থেকেই সংসার চলে। বড় হয়ে সংসারের হাল ধরতে চেয়েছিল সে।

তাদের গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। প্রায় ১৫ বছর রামপুরা এলাকায় বসবাস করছে তার পরিবার। স্কুল জীবন ও বাবার চায়ের দোকানে সহযোগিতা করার কারণে ওই এলাকায় বেশ পরিচিত ছিল মাঈনুদ্দিন। ছিল মেধাবী ছাত্রও।

মাঈনুদ্দিন নিহত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে রামপুরা বাজার এলাকায় বেশ কয়েকটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ঘটনায় ঘাতক বাসের চালককে আটক করা হয়েছে বলে তাৎক্ষণিক জানায় পুলিশ।

আরও পড়ুন:

ছাত্রাবাস থেকে ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

বাবা-মায়ের পর পরিবারের তৃতীয় চেয়ারম্যান সাফিয়া পারভীন

মনিরুল ইসলাম মনি, সাতক্ষীরা

বাবা-মায়ের পর পরিবারের তৃতীয় চেয়ারম্যান সাফিয়া পারভীন

নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান সাফিয়া পারভীন

সাতক্ষীরা কালিগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে একই পরিবারের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে টানা তিনবার জয় ধরে রেখেছে মোশারাফ পরিবার। বাবা-মা এবং সর্বশেষ মেয়ে টানা এই হ্যাটট্রিক জয়ে আনন্দে ভাসছে পুরো পরিবার ও তাদের কর্মী সমর্থকরা।

দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে পরিবারের তৃতীয় সদস্য হিসাবে জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে জয় ছিনিয়ে এনেছেন সাফিয়া পারভীন। গত নির্বাচনের পূর্ব মুহুর্তে ইউপি চেয়ারম্যান বাবা মোশাররফ হোসেন দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন। পরবর্তীতে মা আকলিমা খাতুন নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। মায়ের পরে এবার কন্যা সাফিয়া পারভীন তার নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের জিএম রবিউল বাহার এবং নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শ্যামলী রানী বাপ্পিসহ ৮ জন প্রার্থীকে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

কালীগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগরের দায়িত্ব প্রাপ্ত রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবুল কালাম আজাদ জানান, বিজয়ী প্রার্থী লাঙ্গল প্রতীকের সাফিয়া পারভীন পেয়েছেন ৭ হাজার ২৩৮ ভোট। নিকটতম প্রার্থী স্বতন্ত্র প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের জিএম রবিউল বাহার পেয়েছেন ৬ হাজার ৮৭৫ ভোট। আর নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শ্যামলী রানী বাপ্পি পেয়েছেন ৩৮৫ ভোট।

আরও পড়ুন


স্কুলছাত্র নিহত: ৯ বাসে আগুনের ঘটনায় যা বলছে পুলিশ

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

ছাত্রাবাস থেকে ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

ছাত্রাবাস থেকে ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

প্রতীকী ছবি

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার ইদ্রিশ আহমদ ছাত্রাবাস থেকে রিয়াজুল ইসলাম জনি নামে এক শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার সকালে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 

রিয়াজুল দিনা ফজলুল হক সরকারি কলেজের ছাত্র। তার বাড়ি দিনাজপুর জেলার কাহরোল উপজেলার চকমোরম গ্রামে।

শিবগঞ্জ থানার ওসি ফরিদ হোসেন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সোমবার সকালে জানালা দিয়ে রিয়াজুল ইসলাম জনির ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে শিক্ষার্থীরা পুলিশে খবর দেয়।

পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। ধারণা করা হচ্ছে সে আত্মহত্যা করেছে। 

তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার আগ পর্যন্ত এটি আত্মহত্যা কিনা জানা সম্ভব নয় বলে জানায় পুলিশ।

আরও পড়ুন:

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির নতুন সভাপতি সায়েম সোবহান আনভীর


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

কাউন্সিলরসহ জোড়া খুন: দুই আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

অনলাইন ডেস্ক

কাউন্সিলরসহ জোড়া খুন: দুই আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

বন্দুকযুদ্ধে নিহত সাব্বির হোসেন ও সাজন

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়দ মোহাম্মদ সোহেল ও আওয়ামী লীগ কর্মী হরিপদ সাহাকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় এজাহারভুক্ত দুই আসামি জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) ও থানা পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন- এই হত্যা মামলার তিন নম্বর আসামি নগরীর সুজানগর এলাকার বাসিন্দা রফিক মিয়ার ছেলে মো. সাব্বির হোসেন (২৮) ও মামলার পাঁচ নম্বর আসামি সংরাইশ এলাকার কাকন মিয়ার ছেলে সাজন (৩২)। নিহতদের মরদেহ বর্তমানে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে।

সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে কুমল্লা নগরীর সংরাইশ গোমতী বেড়িবাঁধ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহতের ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা জেলা ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সত্যজিৎ বড়ুয়া।

এসময় তিনি বলেন, সোমবার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে গোপন সংবাদে মাধ্যমে জানতে পারি আলোচিত এই জোড়া খুনের মামলার এজহারনামীয় আসামিসহ অজ্ঞাতনামা আসামিরা সংরাইশ ও নবগ্রাম এলাকায় অবস্থান করছে। খবর পেয়ে কোতয়ালি মডেল থানা এবং ডিবি পুলিশের একাধিক টিম আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করে। রাত প্রায় ১টার দিকে সদর উপজেলার গোমতী নদীর বেড়িবাঁধের সংরাইশ বালুমহল সংলগ্ন এলাকায় ডিবি ও থানা পুলিশের টিম পৌঁছালে আসামিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছুঁড়তে থাকে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।

গোলাগুলি শেষ হলে ঘটনাস্থলে ওই দুইজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরবর্তীতে তাদেরকে চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এই ঘটনায় পুলিশের তিনজন সদস্য আহত হয়েছেন। আহত পুলিশ সদস্যদের উন্নত চিকিৎসার জন্য পুলিশ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

সত্যজিৎ বড়ুয়া আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত একটি ৭.৬৫ পিস্তল, একটি পাইপ গান, পিস্তলের অব্যবহৃত গুলি,  গুলির খোসা এবং কার্তুজের খোসা  উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, ২২ নভেম্বর বিকেল ৪টার দিকে কুমিল্লার পাথরিয়াপাড়া থ্রি স্টার এন্টারপ্রাইজে কাউন্সিলর কার্যালয়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন কাউন্সিলর সোহেল ও হরিপদ সাহা। জোড়া খুনের ঘটনায় গত ২৩ নভেম্বর রাতে কাউন্সিলর সোহেলের ছোট ভাই সৈয়দ মো. রুমন বাদী হয়ে ১১ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

আরও পড়ুন


সপ্তমবারের মতো ডি’অর এর মালিক মেসি

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর