দেশব্যাপী সমাদৃত প্রসুনের 'স্বাস্থ্যসেবা'

অনলাইন ডেস্ক

দেশব্যাপী সমাদৃত প্রসুনের 'স্বাস্থ্যসেবা'

করোনার এই ভয়াল সময়ে স্বাস্থ্য সেবার যখন বেহাল দশা,  ইমার্জেন্সি স্বাস্থ্য সেবা পেতে দ্বারে দ্বারে যখন ঘুরতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে, তখনই  একজন স্বপ্নবাজ তরুণ সিদ্ধান্ত নেন প্রতিটি সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিবেন স্বাস্থ্যসেবা। এ লক্ষ্যেই স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সকল সেবা নিয়ে প্রসুন বেপারীর 'স্বাস্থ্য সেবা লিমিটেড ' এর যাত্রা শুরু।

'চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রায় সকল সমস্যার সমাধান একই প্ল্যাটফর্মে'- প্রায় অসম্ভব এই বিষয়টি সম্ভব করে তুলেছে প্রসুনের 'স্বাস্থ্যসেবা লিমিটেড'।

"To provide a reliable and accessible solution to our clients" এই স্লোগানকে সামনে রেখে দু'জন উদ্যোমী বন্ধুর সহযোগিতায় ২০২১ সালে প্রাতিষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয় স্বাস্থ্যসেবা লিমিটেডের, তবে ২০১৯ থেকেই অলাভজনক কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন তিনি। গ্রাহকদের চিকিৎসা সংক্রান্ত সর্বোচ্চ সেবা দেওয়ার চেষ্টা করেন তারা। সপ্তাহের সাতদিন, দিনরাত ২৪ ঘন্টা ইমার্জেন্সি মেডিকেল সার্ভিস দিয়ে ইতোমধ্যে গ্রাহকের আস্থা অর্জন করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

শুধু মাত্র ইমার্জেন্সি মেডিকেল  সার্ভিস নয় জরুরি এম্বুলেন্স সার্ভিস,  ডক্টর এপয়েন্টমেন্ট এবং সঠিক মেডিকেল তথ্যসেবা নিশ্চিত করে থাকে প্রতিষ্ঠানটি।

করোনার এই দুঃসময়ে অক্সিজেন নিয়ে যখন চরম হাহাকার,  সেসময় জরুরি অক্সিজেন সেবা দিয়ে সাধারণ মানুষের আস্থার প্রতীক হয়ে উঠেছে স্বাস্থ্যসেবা লিমিটেড।

এছাড়াও তাদের ঘরে বসে যেকোনো মেডিকেল টেস্ট এর সুবিধা রয়েছে। হোম সার্ভিসে সঠিক নিয়ম মেনে কভিড-১৯ সহ যেকোনো মেডিকেল টেস্ট করা হয় স্বল্প খরচে।

স্বাস্থ্যসেবার মেইন অফিস ঢাকার প্রাণকেন্দ্র গুলশানে হলেও,  সমগ্র ঢাকা জুড়ে হোম সার্ভিস দিয়ে থাকে প্রতিষ্ঠানটি অনলাইনে টেলিমেডিসিন সেবা দিয়ে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে স্বাস্থ্যসেবা লিমিটেড। তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে (www.sasthyaseba.com) স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত সকল সেবা একসাথে পাওয়া যায় সহজেই। সাথে রয়েছে এনড্রয়েড এপ্লিকেশন।  এছাড়াও রয়েছে হটলাইন নম্বর (09611 530 530) যাতে করে ক্রান্তিকালে রোগীর স্বজনরা অনায়াসে যোগাযোগ করতে পারেন। ফিজিওথেরাপি, নার্স এমনকি রোগীর সেবায় আয়া  সার্ভিস সরবরাহ করেন তারা।  রয়েছে নিজস্ব ব্লাড ব্যাংক যেন প্রয়োজনের সময় রক্ত খুঁজে পাওয়া যায়। হেলথ ইনসুরেন্সের মত সেবাও পাওয়া যাবে স্বাস্থ্যসেবা লিমিটেডে।  

৩০০০ এরও অধিক চিকিংসক এবং প্রায় ২০০ এরও অধিক হাসপাতালের সমন্বিত এই চমৎকার এই উদ্যোগের প্রতিষ্ঠাতা প্রসুন বেপারীর জন্ম ১৭ ডিসেম্বর, ১৯৮৮। সিনেমাপ্রমী এই উদ্যোমী তরুণের শখ ভ্রমণ।  বাসের জানালার পাশে বসে শহর দেখার তাঁর অন্যতম শখ।

আরও পড়ুন:

এক বছরের চেষ্টায় নীলগিরিতে 'মানুষখেকো' বাঘ জীবিত আটক

বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

ফাইনালে কলকাতা-চেন্নাইয়ের সম্ভাব্য একাদশ, সাকিব থাকছেন কি?

আফগানিস্তানে শিয়া মসজিদে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ৩০


কর্পোরেট সেক্টরেও সফল প্রসুন। স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ এমবিএ এর পর কাজ করেছেন ঘরে বাজার নামক ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে। সিইও হিসেবে কর্মরত ছিলেন Soft alligator নামক ই-কমার্স সেক্টরে। এছাড়াও ঢাকা ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস এর প্রতিষ্ঠাতা তিনি।

স্বাস্থ্যসেবায় কাঙ্ক্ষিত পরিবর্তন আনতে কঠোর পরিশ্রম করছেন প্রসুন বিপ্রো। "স্বাস্থ্যসেবা লিমিটেড" প্রসুনের এই উদ্যোগই আগামী দিনে জনসাধারণের স্বাস্থ্যসেবার আস্থার প্রতীক হয়ে উঠবে। আগামী দুইবছরে সমগ্র দেশব্যাপী এই সেবা ছড়িয়ে দেওয়ার স্বপ্ন দেখেন প্রসুন।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

না ফাটিয়ে যেভাবে বুঝবেন ডিম নষ্ট কিনা

অনলাইন ডেস্ক

না ফাটিয়ে যেভাবে বুঝবেন ডিম নষ্ট কিনা

সিদ্ধ ডিম

ডিম আমাদের খাদ্যতালিকার একটি অত্যাবশ্যকীয় উপাদান। ফলে সময় বাঁচাতে অনেকেই একসঙ্গে বেশি পরিমাণে ডিম কিনে সংরক্ষণ করেন। এ ক্ষেত্রে প্রায় ডিম নষ্ট হওয়ার ভয় থাকে। না ফাটিয়ে ডিম নষ্ট নাকি ভালো, তা অনেকেই বুঝতে পারেন না।

কিন্তু লবণের সাহায্যে খুব সহজেই জেনে নেওয়া যায় ডিম নষ্ট কিনা-

ডিম ভাঙার আগে সেটি ভালো নাকি নষ্ট তা বুঝতেও সাহায্য করতে পারে লবণ। এক গ্লাস পানিতে আধা চা-চামচ লবণ ভালোভাবে মেশাতে হবে। এরপর গ্লাসে ডিমটি দিতে হবে। যদি ডিমটি তাজা হয় তবে সেটি ডুবে যাবে আর যদি নষ্ট হয় তবে ভেসে থাকবে।

এছাড়া ডিমের খোসা ছাড়াতে সমস্যা হলে ডিম সিদ্ধ করার সময় পানিতে এক চিমটি লবণ দিয়ে দিলে খুব সহজেই খোসা ছাড়ানো যাবে।

পরবর্তী খবর

বিশ্বের দ্রুততম বৈদ্যুতিক উড়োজাহাজ রোলস-রয়েসের

চন্দ্রানী চন্দ্রা

অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি গতির এক নতুন যুগে প্রবেশ করছে আকাশ যোগাযোগব্যবস্থা। যুক্তরাজ্যের প্রতিষ্ঠান রোলস-রয়েস নতুন তৈরি করেছে বৈদ্যুতিক উড়োজাহাজ স্পিরিট অব ইনোভেশন। যার গতি ঘণ্টায় ৬২৩ কিলোমিটার। 

রোলস-রয়েসের তৈরি এই বৈদ্যুতিক উড়োজাহাজ। নাম দেওয়া হয়েছে স্পিরিট অব ইনোভেশন। প্রতিষ্ঠাটির পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তারা বিশ্বাস করে, বিশ্বের দ্রুতগতির উড়োজাহাজটি স্পিরিট অব ইনোভেশন। এই উড্ডয়নের তথ্য ওয়ার্ল্ড এয়ার স্পোর্টস ফেডারেশনে পাঠানো হয়েছে।

ওয়ার্ল্ড এয়ার স্পোর্টস ফেডারেশন অ্যারোনটিক্যাল ও অ্যাস্ট্রোনটিক্যাল-সংক্রান্ত রেকর্ডের স্বীকৃতি দিয়ে থাকে। তথ্য অনুসারে, গত ১৬ নভেম্বর স্পিরিট অব ইনোভেশনের গতি পরীক্ষা করা হয়। এই উড্ডয়নের সময় ৩ কিলোমিটার উড়েছে ৫৯৯ দশমিক ৯ কিলোমিটার গতিতে এবং ১৫ কিলোমিটার চলেছে ৫৩২ দশমিক ১ কিলোমিটার গতিতে। যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা দপ্তরের টেস্টিং সাইটেও এর পরীক্ষা চালানো হয়। এই উড়োজাহাজের পরীক্ষা যে পাইলট চালিয়েছেন, তার নাম ফিল ও’ডেল। তিনি ফ্লাইট অপারেশনের পরিচালকও। 


আরও পড়ুন:

ঢাবির গ ইউনিটের ফল প্রকাশ, ৭৮ শতাংশই ফেল

বুলগেরিয়ায় বাসে আগুন লেগে নিহত ৪৬

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ আটক ১২৯


রোলস-রয়েসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, পূর্বের যে রেকর্ড ছিল, তার চেয়ে এবারের উড়োজাহাজের গতি ২১৩ কিলোমিটার বেশি। এর আগে ২০১৭ সালে এই রেকর্ড করেছিল সিমেন্স ই-এয়ারক্র্যাফট।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সাগরিকা এখন বাস কন্ডাক্টর

অনলাইন ডেস্ক

সাগরিকা এখন বাস কন্ডাক্টর

আফিক হোসেনকে বল ছুঁড়ে মারার দৃশ্য।

চাকরি না পেয়ে স্নাতক পাস করা সাগরিকা পল্লবী এখন দূরপাল্লার বাসে কন্ডাক্টর। ভারতের চন্দ্রকোনা ঘটনা এটি। সগরিকা রসায়নের স্নাতক সম্পন্ন করেছেন।

তিনি চাকরি না পেয়ে নিজেই স্বনির্ভর হওয়ার পথ বেঁছে নিয়েছেন।

কয়েক মাস আগে স্বাবলম্বী হওয়ার লক্ষ্যে একটি বাস কেনেন সাগরিকা। শুরু করেন পরিবহন ব্যবসা।

এখন ওই বাসটি চন্দ্রকোনা থেকে কলকাতা স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করছে। তাতেই কন্ডাক্টরি করেন সাগরিকা। এই কাজে তিনি পাশে পেয়েছেন তার স্বামীকেও। খবর আনন্দবাজারের।

সাগরিকা বলেন, ‘শুরুতে এই কাজ মেনে নিতে পারেননি পরিবারের অনেকেই। কিন্তু পরে তারা বুঝতে পেরেছেন কোনো কাজই ছোট নয়। তা ছাড়া সৎ পথে উপার্জন তো কোনো অন্যায় নয়।’

আরও পড়ুন: 


পরীক্ষার হলেই মৃত্যু হলো পরীক্ষার্থীর

ঢাকায় এলেন আরও ১৪ পাক ক্রিকেটার


 

প্রতিদিন রাত ৩টার সময় ঘুম থেকে উঠে প্রস্তুত হতে হয়। কাঁধে কন্ডাক্টরি ব্যাগ নিয়ে ভোর ৫টার আগে পৌঁছে যেতে হয় চন্দ্রকোনা টাউন কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যান্ডে। তারপর ভোর সোয়া ৫টা নাগাদ বাস রওনা হয় কলকাতার উদ্দেশে। তখন থেকেই শুরু হয় সাগরিকার কাজ।

বাস কেনার শুরুতে অবশ্য সাগরিকা এই কাজ করতেন না। অন্য কন্ডাক্টর দিয়ে কাজ করানোয় খরচও হতো বেশি। এখন নিজের হাতে সবটা দেখভাল করেন সাগরিকা।

news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ফোন আপনার হাতে কিন্তু নিয়ন্ত্রণ করছে হ্যাকাররা, কী করবেন?

অনলাইন ডেস্ক

ফোন আপনার হাতে কিন্তু নিয়ন্ত্রণ করছে হ্যাকাররা, কী করবেন?

হ্যাকারদের হাত থেকে ফোনকে নিরাপদ রাখতে আমরা কতভাবেই না সতর্ক থাকি। তবে আপনার অজান্তেই চুরি হয়ে যাচ্ছে ব্যক্তিগত সব তথ্য সেদিকে কি সতর্ক আছেন? হ্যাঁ। সত্যই শুনেছেন। সম্প্রতি এমনই একটি ম্যালওয়ারের খোঁজ মিলল। যে 'ফোনস্পাই' ম্যালওয়ার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গোপনীয়তা ধ্বংস করছে। ইতিমধ্যে ২৩টি অ্যাপে চিহ্নিত করা হয়েছে সেই 'ফোনস্পাই' ম্যালওয়ার।  

গুগল প্লে স্টোরে অবশ্য অ্যাপগুলো নেই। তা সত্ত্বেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং কোরিয়ায় রীতিমতো দাপট দেখাচ্ছে। 

এ বিষয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মোবাইল নিরাপত্তা সংক্রান্ত সংস্থা জানিয়েছে, অন্যান্য ম্যালওয়ার ফোনের ফাঁকফোকরের সুবিধা নেয়। তারপর তথ্য চুরি করে নেয়। কিন্তু 'ফোনস্পাই' একেবারে সাধারণ অ্যাপের মতো লুকিয়ে থাকে। কার্যত খালি চোখে ধরা যাবে না।

মেসেজ, ছবির মতো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য চুরি করে নিতে পারে 'ফোনস্পাই'। এমনকি দূর থেকে আপনার ফোনকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে সাইবার অপরাধীরা। অর্থাৎ ফোন নামেই আপনার কাছে থাকবে। কিন্তু তা নিয়ন্ত্রণ করবে হ্যাকাররা।

এছাড়া বিভিন্ন লগইন আইডি, পাসওয়ার্ডের জিনিস চুরি হয়ে যেতে পারে।

তবে চলুন জেনে নিই, কীভাবে ফোনস্পাইয়ের হাত থেকে রক্ষা পাবেন- 

১) তৃতীয়-পার্টি অ্যাপ স্টোর থেকে কোনও অ্যাপ ডাউনলোড এবং ইনস্টল করবেন না। গুগল প্লে স্টোর থেকেই অ্যাপ ডাউনলোড করা যাবে।

আরও পড়ুন:


সেই তিন বোনের পালানোর রহস্য জানা গেল


২) মেসেজ বা ইমেলের মাধ্যমে কোনও সন্দেহজনক লিঙ্ক এলে তাতে ক্লিক করবেন না। ডাউনলোড এবং ইনস্টল করবেন না। গুগল প্লে স্টোর থেকেই অ্যাপ ডাউনলোড করা যাবে।

৩) মেসেজ বা ইমেলের মাধ্যমে কোনও সন্দেহজনক লিঙ্ক এলে তাতে ক্লিক করবেন না। 

news24bd.tv রিমু  

পরবর্তী খবর

আজ বিশ্ব পুরুষ দিবস

পুরুষের ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরার দিন আজ

অনলাইন ডেস্ক

পুরুষের ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরার দিন আজ

আজ ১৯ নভেম্বর, আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস। প্রতি বছর এই দিনে বিশ্বব্যাপী পুরুষদের মধ্যে লিঙ্গ ভিত্তিক সমতা, বালক ও পুরুষদের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করা এবং পুরুষের ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরার প্রধান উপলক্ষ হিসেবে এই দিবসটি উদযাপন করা হয়।

আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস পালন শুরু হয় নব্বইয়ের দশকে। এই দিবস পুরুষদের সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং আর্থ-সামাজিক কৃতিত্বকে স্বীকৃতি দিয়ে উদযাপন করা হয়ে থাকে।

পুরুষ দিবসের ইতিহাস বেশ পুরনো। ১৯৯৪ সালে পুরুষ দিবস পালনের প্রথম প্রস্তাব করা হয়। তবে ১৯২২ সাল থেকে সোভিয়েত ইউনিয়নে পালন করা হতো রেড আর্মি অ্যান্ড নেভি ডে। এই দিনটি পালন করা হতো মূলত পুরুষদের বীরত্ব আর ত্যাগের প্রতি সম্মান জানিয়ে।

২০০২ সালে দিবসটির নামকরণ করা হয় ডিফেন্ডার অফ দ্য ফাদারল্যান্ড ডে। রাশিয়া, ইউক্রেনসহ তখনকার সময়ে সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোতে এই দিবসটি পালন করা হতো। নারী দিবসের অনুরূপভাবেই দিবসটি পালিত হয়।

পরবর্তী খবর