নদীতে ডুবে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীর মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

নদীতে ডুবে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীর মৃত্যু

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে নদীতে গোসল করতে নেমে মোসাব্বির হোসেন ফাহিম (২২) নামে এক মেডিক্যাল শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে।

আজ দুপুরে দিকে উপজেলায় যমুনা নদী থেকে তার মরদেহটি উদ্ধার করে।

ফাহিম বগুড়ার গাবতলী উপজেলার হাতিবান্ধা গ্রামের ফজলুল করিমের ছেলে। তিনি দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

স্থানীয় লোকজন জানান, ১৫ অক্টোবর ফাহিম সারিয়াকান্দি উপজেলার দীঘলকান্দি গ্রামে তার নানার বাড়ি বেড়াতে যায়। শনিবার সকালে গ্রামের কিছু যুবকের সঙ্গে যমুনা নদীতে গোসল করতে নামেন। নদীর ওই স্থানে তেমন স্রোত না থাকলেও বালু উত্তোলনের কারণে ওই জায়গাটি গভীর ছিল।

আরও পড়ুন


দেশে খাদ্যের অভাব হওয়ার কোন আশঙ্কা নেই: প্রধানমন্ত্রী

রাজধানী থেকে ‘আইসের’ বড় চালান জব্দ, মূলহোতাসহ গ্রেপ্তার ২

চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় হচ্ছে আরেকটি হাসপাতাল

শাকিব খানের সঙ্গে তুরস্কে গিয়ে যে ভালোবাসায় পড়েছিলেন বুবলী (ভিডিও)


এতে ফাহিম সেখানে তলিয়ে যান। ঘটনার পরপরই স্থানীয় লোকজন নদীতে খুঁজতে শুরু করে। একপর্যায়ে দুপুর ১২টার দিকে ফাহিমের মরদেহ পাওয়া যায়।

সারিয়াকান্দি থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, মরদেহ উদ্ধারের পর তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

চোরাই গরুসহ বিএসএফের হাতে বাংলাদেশি যুবক আটক

অনলাইন ডেস্ক

চোরাই গরুসহ বিএসএফের হাতে বাংলাদেশি যুবক আটক

ফাইল ছবি

ভারতের অভ্যন্তরে চোরাই গরুসহ বাংলাদেশি চোরাকারবারি মনিরুল ইসলাম নামে এক যুবককে আটক করেছে বিএসএফ। শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) দিবাগত রাতে তাকে আটক করে বিএসএফ। আটক, মনিরুল ইসলাম পোরশা উপজেলার নিতপুর ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে।

বিজিবিকে বিএসএফ জানিয়েছে, শনিবার সকালে ভারতের মালদা জেলার হবিপুর থানায় মামলা দায়ের শেষে পুলিশের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বিজিবি-১৬ (নওগাঁ) ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল রেজাউল কবির। এসময় তিনি বলেন, গতকাল রাতে পোরশায় ভারতীয় সীমান্ত দিয়ে স্থানীয় ৭৮ জন চোরাকারবারি অবৈধ্যভাবে ভারতে প্রবেশ করে গরু- মহিষ আনতে যান। এরপর গরু- মহিষ নিয়ে বাংলাদেশে ফেরার পথে ভারতের মালদা জেলার হবিপুর থানার ভুতপাড়াগ্রাম এলাকায় কেদারিপাড়া ক্যাম্পের সদস্যরা তাদের ধাওয়া করে। এ সময় অন্যরা পালিয়ে আসতে পারলেও মনিরুল ইসলামকে কয়েকটি গরুসহ আটক করে তারা।  

তিনি আরও জানান, ঘটনাটি জানার পর বিজিবির পক্ষ থেকে বিএসএফের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তাকে ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।  

আরও পড়ুন


অর্থনীতির গণ্ডি ছাড়িয়ে প্রাধান্য পাবে মানুষ

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

নির্বাচন নিয়ে হাতুড়ি পেটা ও আঙ্গুল কেটে ফেলার অভিযোগ

বেলাল রিজভী, মাদারীপুর

নির্বাচন নিয়ে হাতুড়ি পেটা ও আঙ্গুল কেটে ফেলার অভিযোগ

হামলায় আহত ব্যক্তি

মাদারীপুর সদর উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যানের কর্মী হবি মাতুব্বরকে (৫৫) হাতুড়ি দিয়ে বেধড়ক ভাবে পিটিয়ে আহত ও চন্দ্রবান বেগমকে (৫০) আঙ্গুল কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে, প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) সন্ধ্যয় কালিকাপুর ইউনিয়নের হোসনাবাদ গ্রামে ঘটেছে। আহতদের উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতল ও আহতর স্বজনরা জানায়, শুক্রবার তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণার শেষ হয়। পরে সন্ধ্যার দিকে কালিকাপুর ইউনিয়নের হোসনাবাদ গ্রামের বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও ঘোড়া মার্কার স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এজাজুর রহমান আকনের কর্মী হোসনাবাদ গ্রামের লতিফ মাতুব্বরের ছেলে হবি মাতুব্বর (৫৫) নিজ এলাকায় ঘোড়া মার্কায় পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছিল। সে সময় নির্বাচনে অংশ নেয়া আনারস প্রতীকে আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু তালেব বেপারীর কর্মী সমর্থক কালু বেপারী, বেলায়েত হোসেন ও দেলোয়ার খানসহ বেশ কয়েকজন মিলে হবি মাতুব্বরকে ধাওয়া করে। হবি দ্রুত দৌড়ে পাশের মৃত সোহরাব মাতুব্বরের ঘরে আশ্রয় নেয়।

এসময় ঘরের ভেতরে ঢুকে আবু তালেব বেপারীর কর্মী সমর্থকরা ব্যাগে করে আনা হাতুড়ি দিয়ে হবি মাতুব্বরকে বেধড়ক ভাবে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। এসময় ঘরে থাকা চন্দ্রবানু বেগম মারধর ফেরাতে গেলে অন্যদের হাতে থাকা ধারালো অস্ত্রের আঘাতে চন্দ্রবান বেগমের ডান হাতের কনিষ্ঠ আঙ্গুল প্রায় সম্পূর্ণ কেটে যায়।

আহত হবি মাতুব্বরের ভাই বাচচু মাতুব্বর বলেন, আমরা বর্তমান চেয়ারম্যান এজাজ আকনের নির্বাচন করি। সেই কারণেই আমার ভাইকে আবু তালেব বেপারীর লোকজন হামলা করে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়েছে। সেই সাথে চন্দ্রবান ভাবীও আমাদের সমর্থক সেও গুরুতর ভাবে আহত। তার একটি আঙ্গুল কেটে গেছে। হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে থানায় মামলা করতে যাব।

এদিকে আহত চন্দ্রবান বেগম বলেন, ‘আমি ঘরের ভেতরে বসে পান খাচ্ছিলাম। হঠাৎ আমাদের ঘরে হবি মাতুব্বর এসে ঢুকলে সাত-আট জন লোক আমাদের ঘরে ঢুকে হবেিক হাতুড়ি দিয়ে পেটাতে শুরু করে। আমি ছাড়াতে গেলে আমাকেও কোপ দেয়। আমার একটি আঙ্গুল প্রায় কেটে গেছে। আমি নিরাপদ মানুষ আমি এই ঘটনার সঠিক বিচার চাই।

মাদারীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম মিঞা জানিয়েছেন, কালিকাপুর ইউনিয়নে একটি মারামারির খবর পেয়েছি। তবে এখনো পর্যন্ত থানায় কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আমরা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

আরও পড়ুন


বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যা মামলার রায় রোববার

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

১৩০ টাকায় চাকরি পেয়ে আনন্দে আত্মহারা

হুমায়ুন কবির সূর্য, কুড়িগ্রাম

১৩০ টাকায় চাকরি পেয়ে আনন্দে আত্মহারা

ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে নির্বাচিতরা

কুড়িগ্রামে ১৩০ টাকা খরচ করে পুলিশের ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরপি) পদে নির্বাচিত হয়ে উচ্ছ্বসিত চাকুরীপ্রাপ্তরা। এভাবে চাকুরী পেয়ে আনন্দে আত্মহারা তারা। মাইকে ফলাফল ঘোষণার পর অভিভাবকসহ নির্বাচিতরা কান্নায় ভেঙে পরেন।

নিয়োগ পরীক্ষায় প্রথম হওয়া জেলার রাজারহাট উপজেলার নাজিমখান ইউনিয়নের মৃত: অজিত কুমার মন্ডলের মেয়ে পূর্ণিমা রানী মন্ডল জানান, ‘এতো সহজে চাকুরী হবে স্বপ্নেও ভাবিনি। দু’বছর আগে বাবা মারা যাওয়ার পর সংসারে নেমে আসে দুর্ভোগ। স্বপ্ন ছিল বিসিএস ক্যাডার সার্ভিস’র পরীক্ষা দিয়ে পুলিশ অফিসার হবার। বাবা-মা দুজনেই উৎসাহ দিতো। সে স্বপ্ন পূরণ না হলেও পুলিশ কনস্টেবল হলাম। কিন্তু কষ্ট একটাই বাবা দেখে যেতে পারল না।’

পূর্ণিমা রানী বর্তমানের নাটোরের আব্দুলপুর সরকারি কলেজে অর্থনীতি বিভাগে অনার্স প্রথম বর্ষে পড়াশুনা করছে। তার মা উর্মিলা রানী অনেক কষ্ট করে তার দুই সন্তানকে মানুষ করছেন। অভাবের কারণে কখনো কখনো পড়াশুনা বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। মেয়ের ১৩০ টাকার চাকুরীতে খুশি মা। মেধার কারণে চাকুরী হওয়ায় সরকার ও পুলিশ বিভাগকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তিনি।

কুড়িগ্রাম পুলিশ বিভাগে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরপি) পদে চাকরির জন্য এবার নির্বাচিত হয়েছেন ৪৩ জন। এদের মধ্যে ৬ জন নারী এবং ৩৭ জন পুরুষ।

গত বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) কুড়িগ্রাম পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে এই ৪৩ জনের প্রাথমিকভাবে ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে। এরপর পুলিশ বিভাগের খরচে তাদের আগামী ৩০ নভেম্বর ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে বিনা খরচে প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষা শেষে নিয়োগপত্র দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রুহুল আমিন। 

তিনি আরও জানান, কুড়িগ্রাম পুলিশ লাইন মাঠে গত ১৪, ১৫ ও ১৬ নভেম্বর তিনদিন পুলিশের ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে চাকরি করতে আগ্রহী প্রার্থীদের শারীরিক মাপ ও শারীরিক সহনশীলতা পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। এতে ১ হাজার ৭২০ জন আবেদনকারীর মধ্যে ৩৪৪ জন উত্তীর্ণ হন। এরপর ১৭ নভেম্বর মাপে ও শারীরিক সহনশীলতা পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ২৪ নভেম্বর লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ১৪০ জনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

ঐদিনই সকাল ১০টা থেকে দিনভর মৌখিক মনসতাত্ত্বিক পরীক্ষা শেষে গভীর রাতে ৪৩ জনকে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত করে তালিকা প্রকাশ করা হয়। এরমধ্যে কুড়িগ্রাম সদরে ১৪ জন উলিপুরে ৫ জন, নাগেশ্বরীতে ৬ জন, চিলমারীতে ২ জন, রাজারহাটে ৬ জন, ফুলবাড়ীতে ৪ জন, ভুরুঙ্গামারীতে ৪ জন, রৌমারী ও রাজিবপুর উপজেলায় ১ জন করে উত্তীর্ণ হয়েছে। 

এই নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য আবেদনকারীদের খরচ হয়েছে মাত্র ১৩০ টাকা। এরমধ্যে ব্যাংক বাবদ ১০০ টাকা এবং অনলাইনে আবেদন পাঠানো বাবদ ৩০ টাকা।

বিষয়টি নিয়ে কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাত আরা জানান, নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরুর আগে কোনো ধরণের তদবির বা দালাল ধরলে তাকে নিয়োগ প্রক্রিয়া থেকে বাদ দেয়া হবে বলে ব্যাপকভাবে প্রচার করা হয়েছিল। ফলে এর সুফল পাওয়া গেছে। এবারে শারীরিক যোগ্যতা ও মেধার ভিত্তিতে নিরপেক্ষ এবং স্বচ্ছতার মাধ্যমে পুলিশের ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন


হরিপুরে বিলুপ্তপ্রায় নীলগাই উদ্ধারের পর মৃত্যু

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

হরিপুরে বিলুপ্তপ্রায় নীলগাই উদ্ধারের পর মৃত্যু

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

হরিপুরে বিলুপ্তপ্রায় নীলগাই উদ্ধারের পর মৃত্যু

মারা যাওয়া নীলগাই

ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা মিনাপুর গ্রামে বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির একটি মাটিয়া ধূসর রঙ্গের পুরুষ নীলগাই আটক করে হরিপুর থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) বিকালে এলাকাবাসি বিলুপ্ত প্রজাতির নীলগাই দেখতে পায়। পরে হরিপুর থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশসহ আশপাশের লোকজনকে নিয়ে সেটিকে ধরা হয়।

খবর পেয়ে স্থানীয় কারিগাও বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা সেখানে উপস্থিত হয় ও বিজিবির নিকট হস্তান্তর করা হয়। সন্ধ্যায় কারিগাও ক্যাম্পে চিকিৎসা দেয়া অবস্থায় নীলগাইটি মারা যায়।

হরিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলাম নীলগাই উদ্ধারের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সাথে সাথেই কারিগাও বিজিবি’র নিকট প্রাণীটি হস্তান্তর করা হয়েছে। ধরার সময় জখম হওয়ায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে নীলগাইটি মারা যায়।

আরও পড়ুন


অস্ট্রেলিয়ার জঙ্গলে নতুন প্রাণী খুঁজে পাওয়ার দাবি!

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

বরিশালে একই পরিবারের ৫ সদস্যের ইসলাম গ্রহণ

অনলাইন ডেস্ক

বরিশালে একই পরিবারের ৫ সদস্যের ইসলাম গ্রহণ

সেন্টু ইসলাম খলিফা ও তার পরিবার

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার একই পরিবারের ৫ সদস্য খ্রিস্টান ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বিকালে বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এনায়েত উল্লাহ্’র আদালতে উপস্থিত হয়ে এফিডেভিটের মাধ্যমে ইসলাম গ্রহণ করে নামও পরিবর্তন করেন তারা। 

তারা হলেন- কলাবাড়িয়া খ্রিস্টানপাড়ার প্রয়াত জুনাষ রায়ের কনিষ্ঠ ছেলে কাঠমিস্ত্রি ছিন্টু রায় (৪৫), তার স্ত্রী লিন্ডা রায় (৩৫), ২ ছেলে ভিক্টর রায় (১৫) ও এডমন্ড রায় (১১) এবং মেয়ে উর্মী রায় (৬)। 

ছিন্টু রায়ের নাম পরিবর্তন করে সেন্টু ইসলাম খলিফা, লিন্ডা রায়ের নাম আয়েশা খলিফা, ছেলে ভিক্টর রায়ের নাম তামিম ইসলাম খলিফা, এডমন্ড রায়ের নাম রিয়াজুল ইসলাম খলিফা এবং উর্মী রায়ের নাম উর্মী ইসলাম খলিফা রাখা হয়েছে। 

সেন্টু ইসলাম খলিফা বলেন, দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন ওয়াজ নছিহত শুনে এবং ইসলামী বই পড়ে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেন তারা।
 
গত বৃহস্পতিবার প্রথমে স্থানীয় মসজিদের ইমামের কাছে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে স্বেচ্ছায় কালেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। একইদিন বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. এনায়েত উল্লাহ্’র আদালতে উপস্থিত হয়ে ইসলাম গ্রহণের বিষয়ে এফিডেভিট করেন এবং ইসলামী আদর্শ নিয়ে বাকী জীবন কাটিয়ে দিতে তারা সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন।

ওই পরিবারের কোনো সাহায্য সহযোগিতা প্রয়োজন হলে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে যাবতীয় ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান নলচিড়া ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম হাফিজ মৃধা।

পরবর্তী খবর