সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান ১৪ দলের

অনলাইন ডেস্ক

সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান ১৪ দলের

কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে জাতি-ধর্ম শ্রেণি-বর্ণ নির্বিশেষে দেশের সকল মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ১৪ দল। 

আজ বিকেল ৩টায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে অনুষ্ঠিত সভায় এই আহ্বান জানান কেন্দ্রীয় ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ। সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য এবং কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আমির হোসেন আমু এমপি। সভা পরিচালনা করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি। 

সভার বক্তৃতায় আমির হোসেন আমু বলেন, দেশের চলমান উন্নয়ন-অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে যারা দেশ ও দেশের মানুষের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে সেই অপশক্তিকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে সরকার বদ্ধপরিকর। 

তিনি বলেন, তারা কেন কুমিল্লাকে বেছে নিল? কেন তারা নোয়াখালীকে বেছে নিল?  আজকে তা খুঁজে বের করা লাগবে। আমি মনে করি, এই কাজ উগ্রবাদীগোষ্ঠী দ্বারা পরিচালিত আর এর পিছনে ইন্ধন দিয়েছে বিএনপি-জামাত চক্র। রাজনৈতিক ও সামাজিক কার্যক্রমের মাধ্যমেই এদেরকে মোকাবিলা করতে হবে। 

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দৃঢ়তার সাথে আমরা সামনের দিকে আগ্রসর হচ্ছি। তাই আমাদের সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে। দেশীয় ও আন্তজার্তিক ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। সহায়ক শক্তিগুলোকে কাজে লাগাতে হবে। আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল রাজনৈতিক শক্তির সহযোগিতা কামনা করছি। আমরা ঐক্যবদ্ধভাবেই এই উগ্র-সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে মোকাবিলা করবো। 

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি বলেন, এসব ঘটনা আমরা পাকিস্তান আমল থেকে দেখে আসছি। সেই ৬০-এর দশক থেকে এসব হয়ে আসছে। ইসলাম গেল গেল বলে তখন থেকে অপপ্রচার চালিয়ে আসছে এই অপশক্তি। কিন্তু স্বাধীন বাংলাদেশে ইসলাম স্বমহিমায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আজকে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই তা সম্ভব হয়েছে। আমি চাই, ১৪ দল ইস্পাত কঠিন হয়ে সব  মোকাবিলা করবে এবং তার পথ দেখাবেন শেখ হাসিনা। 

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, সত্যিকার অর্থে ধর্মবিশ্বাসী কোন মানুষ এই হামলা করতে পারে না। সারাদেশের অনেক মন্দিরে হামলা হয়েছে। ভাঙচুর হয়েছে। মানুষ নিহত হয়েছে। আমরা ভিডিওতে দেখিছি- কীভাবে তারা এই নারকীয় তাণ্ডব চালিয়েছে।

তিনি বলেন, রামু, নাসিরনগর, কুমিল্লা সব ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা। সামপ্রদায়িকতা এতো বেশি বিস্তার লাভ করছে যে, তা সব দলেই আছে। এদের সম্পর্কে দলমত নির্বেশেষে নির্মোহ বিশ্লেষণ করে আইনের আওতায় আনতে হবে। এ সময় তিনি সংখ্যালঘুদের সুরক্ষায় বিশেষ আইন করা এবং সমস্ত পাঠ্যক্রমে সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী বিষয়বস্তু অন্তর্ভুক্ত করার আহ্বা জানান।  

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, কুমিল্লার হামলার পিছনে কারা ছিল? ৭১-এর পরাজিত শক্তি বিএনপি-জামাতিরাই। তারা দাঙ্গার জন্য উস্কে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু তা হয়নি। সুতরাং এটা আমি জঙ্গি হামলা হিসেবেই দেখবো। এটা পরিকল্পিত হামলা। এটা রাজনৈতিক হামলা। সরকারকে বিপদে ফেলতেই এই হামলা করা হয়েছে। সরকারকে উৎখাত করতে এবং আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখেই এই হামলা। ধর্মকার্ড ব্যবহার করে বাংলাদেশকে হেয় করতেই তাদের ঘৃণ্য এই অপকৌশল। বিএনপি-জামাতের পার্টনারশিপে এসব হামলা সংঘটিত হচ্ছে। 

সাম্যবাদী দলের সভাপতি কমরেড দিলীপ বড়ুয়া বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। অর্থনীতিতে ভারত-পাকিস্তানের চয়েও এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। কিন্তু সাম্প্রদায়িকগোষ্ঠী তা সহ্য করতে পারছে না। তারা ধর্মের নামে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। কুমিল্লার ঘটনা কোন বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এটা রাজনৈতিক মদদপুষ্ট। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা এই অপশক্তিকে মোকাবিলা করতে সক্ষম হবো। এসময় তিনি কেন্দ্রীয় ১৪ দলকে  বিভিন্ন এলাকায় সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী সভা ও প্রচারণা চালানোর পরামর্শ দেন।

গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডাঃ শাহাদাত হোসেন বলেন, বাঙালি জাতিসত্তাকে এক সঙ্গে করে বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে তখন উগ্রবাদীদের সহ্য হচ্ছে না। সামপ্রদায়িক অপশক্তি দেশকে পিছিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। কুমিল্লার ঘটনার জন্য যারা দায়ী তাদেরকে বিচারের আওতায় আনতে হবে। 

আরও পড়ুন


বঙ্গবন্ধু যেতেই গুলি বন্ধ করল বিডিআর

মানুষের সঙ্গে যেভাবে কথা বলতেন বিশ্বনবী

সূরা বাকারা: আয়াত ১২৮-১৩৩, আল্লাহর নির্দেশ ও হয়রত ইব্রাহিম (আ.)

কলকাতা প্রেস ক্লাবে ‘বঙ্গবন্ধু মিডিয়া সেন্টার’


 

তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী বলেন, বিএনপি-জামাত আর উগ্রবাদ সব একই সূত্রে গাঁথা। আমাদের আরও সচেতন হতে হবে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনীকে সচেষ্ট থাকতে হবে। ২০২৩ সালের নির্বাচনের আগে এমন আরও আঘাত আসতে পারে। যা শক্তভাবে প্রতিহত করতে হবে। ধর্মের নামে যা হচ্ছে, ইসলাম তা সমর্থন করে না। 

জাতীয় পার্টি জেপি’র প্রেসিডিয়াম মেম্বার এজাজ আহমেদ মুক্তা বলেন, ৭১-এর পরাজিত শক্তিরা থেমে নেই। তারা সারাদেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য উন্মাদ হয়ে গেছে। এরা দেশকে পাকিস্তানি ভাবধারায় ফিরিয়ে নিতে চায়। দেশের দুর্দিনে আমরা কখনো চুপ করে ছিলাম না, থাকবো না। 

গণতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সভাপতি জাকির হোসেন বলেন, বাংলাদেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি-জামাত। এদের আইনের আওতায় আনার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা হবে আন্দোলনে: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা হবে আন্দোলনে: ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানো এই সরকারের জন্যই দরকার, নইলে দেশের মানুষ ক্ষমা করবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা নিশ্চত করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন:


ফেসবুকে মন্ত্রীর পোস্ট, ‘মন চাইছে আত্মহত্যা ক‌রি’


news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

আইন আদালতের তোয়াক্কা করে না বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

আইন আদালতের তোয়াক্কা করে না বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আইন আদালতের প্রতি আস্থা নেই বলেই বিএনপি নেতারা বেগম জিয়ার বিদেশে যাওয়ার বিষয়ে আইন কোন বাধা নয়, বাধা হচ্ছে সরকার বলে বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যে প্রমাণিত হয়েছে, তারা দেশের আইন আদালতের কোন তোয়াক্কা করে না।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সকালে মন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বিএনপি নেতাদের বিভিন্ন বক্তব্যের জবাবে এসব কথা বলেন।

বেগম জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার ক্ষেত্রে আইন নয়, এই অবৈধ সরকার বাধা,- বিএনপি মহাসচিবের এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বিএনপি মহাসচিবের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, সরকার যদি অবৈধই হয় তাহলে এই অবৈধ সরকারের কাছে দাবী করছেন কেন?

তিনি আরও বলেন, আর এই সরকার অবৈধই বা কি করে হয়? সংসদেতো আপনাদেরও বৈধভাবে প্রতিনিধিত্ব রয়েছে। 

হাফ ভাড়া নিয়ে সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ঢাকা সিটিতে বেশকিছু পরিবহনের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়ার যে সিদ্ধান্ত, তা বাস্তবায়ন না করার অভিযোগ রয়েছে। শিক্ষার্থীদের প্রতি সংবেদনশীল হয়ে হাফ ভাড়ার সিদ্ধান্তটি বাস্তবায়ন করার জন্য পরিবহন মালিক শ্রমিকদের আবারও অনুরোধ করেন তিনি।

মন্ত্রী, পরিবহন মালিক শ্রমিকদের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, কথা দিয়ে কথা রাখুন। আপনাদের সিদ্ধান্ত আপনারাই কেন লঙ্ঘন করছেন?

আরও পড়ুন


নগরকান্দায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে, চালক নিহত

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

বিভিন্ন জায়গায় সর্বনিম্ন ভোটে লজ্জার হার, বিব্রত আ. লীগ

অনলাইন ডেস্ক

বিভিন্ন জায়গায় সর্বনিম্ন ভোটে লজ্জার হার, বিব্রত আ. লীগ

তিন ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে গতকাল পর্যন্ত ৭৪ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতীক নৌকা নিয়ে মাত্র ৯৯ ভোট পেয়ে জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়ার রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে।এমনকি সর্বনিম্ন ভোটে লজ্জার হারের ঘটনাও ঘটছে। এমন পরিস্থিতি খোদ দলের ভিতরেই প্রশ্ন উঠেছে, এসব প্রার্থীদের মনোনয়নের তালিকা পাঠায় কারা? কীভাবে তারা নৌকা পান। এসব নিয়ে চলছে আলোচনা সমালোচনা।

ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন পেলেও তৃতীয় ধাপে ১৮১ ইউপিতে তৃতীয় অবস্থানেও থাকতে পারেনি নৌকার প্রার্থীরা। দলীয় বিদ্রোহী, বিএনপির ‘স্বতন্ত্র’ প্রার্থীদের কাছেও পরাজয় হচ্ছে। বারবার তাগাদা দিয়েও বিদ্রোহীদের দমন করা যাচ্ছে না। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে অনেকটা নিয়ন্ত্রণহীন তৃণমূল।

তৃতীয় ধাপে ৪৭ দশমিক ০৬ শতাংশ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পরাজয় ঘটেছে। নির্বাচনী সংঘাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যসহ নিহত হয়েছেন ১৩ জন।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, ইউপি নির্বাচন একেবারেই প্রান্তিক পর্যায়ের। এখানে গোষ্ঠী, পরিবার ও পেশিশক্তি ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। এবাড়ি-ওবাড়ি দ্বন্দ্ব থাকে। ইউপি নির্বাচন এলে এসব দ্বন্দ্ব উসকে ওঠে। 

আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, তৃণমূল থেকে যে তালিকা আমরা পাচ্ছি, সেটি কি আসলেই মাঠের চিত্র নাকি নেতা-এমপিদের পছন্দের প্রার্থী? মনোনয়ন যাদেরকে দেওয়া হচ্ছে সেখানে কি তৃণমূলের চাওয়ায় হচ্ছে, নাকি চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে? সেগুলো এখন বিচার বিশ্লেষণের সময় এসেছে। কারণ আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক দল হিসেবে দেউলিয়া হয়ে যায়নি যে ৯৯ ভোট পায়। একটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগসহ সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের দলীয় পদ-পদবি আছেন এমন নেতারাও ভোট দিলে হাজার ছাড়িয়ে যাবে।  উৎসবমুখর ভোট এখন দলের জন্য বিব্রতকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

নির্বাচন শুরু হলেই কেন্দ্র ও তৃণমূল থেকে বলা হয়, দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গেলেই ব্যবস্থা। প্রথমে সাময়িক বহিষ্কার করা হলেও পরে স্বপদে বহাল করা হয়। এখানেই শেষ নয়, তাদের দলীয় পদ-পদবি দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সভা কাল

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সভা কাল

আওয়ামী লীগের সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভা আগামীকাল (২ ডিসেম্বর) বৃহস্পতিবার বিকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত হবে।

আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সভায় সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগের সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনায়েত উল্লাহ

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: ৬ হামলাকারী শনাক্ত


দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সংশ্লিষ্ট সকলকে যথাসময়ে সভায় উপস্থিত থাকার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এক কেন্দ্রে নৌকা পেলো ৩ ভোট!

অনলাইন ডেস্ক

এক কেন্দ্রে নৌকা পেলো ৩ ভোট!

আওয়ামী লীগ দলীয় নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী একটি কেন্দ্রে ২ হাজার ৪৩৩ ভোটারের মধ্যে ভোট পেয়েছেন মাত্র ৩টি। ৩ ভোটের বিষয়ে বিভিন্ন মহলে চলছে মুখরোচক আলোচনা।সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ জনাকীর্ণ বিভিন্ন স্থানে আলোচনায় স্থান পেয়েছে নৌকা প্রতীকে মাত্র ৩ ভোট পাওয়ার বিষয়টি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বল্প নোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে  নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী সেলিম খন্দকার মাত্র ৩ ভোট পান। 

জানা যায়, ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত তৃতীয় ধাপে সরাইল উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে সরাইল সদর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল জব্বার মোটরসাইকেল প্রতীকে ৯ হাজার ১২৬ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। একই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সেলিম খন্দকার ৫ হাজার ৭১৩ ভোট পেয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন।

নির্বাচন পর্ববর্তী আলোচনায় বিভিন্ন কেন্দ্রে প্রার্থীদের প্রাপ্ত ভোটের কাউন্ট-ডাউনে আলোচনায় স্থান পেয়েছে নোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সেলিম খন্দকার ৩ ভোট পাওয়ার বিষয়টি।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনায়েত উল্লাহ

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: ৬ হামলাকারী শনাক্ত


 

আওয়ামী লীগ দলীয় অনেক নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ২ হাজার ৪৩৩ জন ভোটারের ওই কেন্দ্রে ১ হাজার ৬০১ জন ভোটার ভোট প্রদান করলেও আওয়ামী লীগের দলীয় নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়েছেন কেবল ৩ জন! নৌকা প্রতীকে এক কেন্দ্রে ৩ ভোট পাওয়ার এ বিষয়টি বিভিন্ন মহলে মুখরোচক আলোচনার সৃষ্টি করেছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর