সশরীরে ক্লাস শুরুর তারিখ জানালো ইবি

অনলাইন ডেস্ক


সশরীরে ক্লাস শুরুর তারিখ জানালো ইবি

চলতি মাসের ২৫ তারিখ থেকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) শুরু হচ্ছে সশরীরে ক্লাস।

আজ বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের উপ-রেজিস্ট্রার সাহেদ হাসান স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২০ অক্টোবরে ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে ছুটি ঘোষণায় ওই দিন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে। এ কারণে ২০ অক্টোবর ক্লাস শুরুর পরিবর্তে ২৫ অক্টোবর থেকে সশরীরে ক্লাস শুরু করা হবে। 

এর আগে করোনায় দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর শিক্ষার্থীদের এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে ৯ অক্টোবর আবাসিক হল খুলে দেওয়া হয়। এছাড়া ২০ থেকে সশরীরে ক্লাস শুরুর ঘোষণা দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন:


ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি’র পদোন্নতি


কিন্তু ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে ওইদিন সরকারি ছুটি ঘোষণা করায় পুনরায় ২৫ অক্টোবর থেকে সশরীরে ক্লাস শুরুর তারিখ ঘোষণা করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আবারও বন্ধ হতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: শিক্ষামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

আবারও বন্ধ হতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, করোনা সংক্রমণ বেড়ে গেলে আবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হবে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, আমরা প্রার্থনা করি, আবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিতে হয়, এমন পরিস্থিতি যেন না হয়।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সকালে সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন মন্ত্রী।  

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, যদি তেমন পরিস্থিতি হয়, পরিস্থিতির কারণে যদি প্রয়োজন হয়, অবশ্যই অবশ্যই আমাদের শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য যে কোনো সিদ্ধান্ত আমরা নেব।

দীপু মনি বলেন, তবে এখনো আমাদের এ জাতীয় পরিকল্পনা নেই। আমরা চাই ধারাবাহিক প্রক্রিয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু থাকুক। আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। টেকনিক্যাল কমিটির সঙ্গে আলোচনা চলছে। বিজ্ঞানের বাইরে গিয়ে তো কিছু করতে পারবো না।

করোনার কারণে প্রায় দেড় বছর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় সারাদেশে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন- শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের চেয়ারম্যান সৈয়দ গোলাম ফারুক, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ প্রমুখ।

আরও পড়ুন


আমিনবাজারে ৬ ছাত্রকে হত্যা: ১৩ জনের মৃত্যুদণ্ড

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

এইচএসসির ফল ৩০ দিনের মধ্যে: শিক্ষামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

এইচএসসির ফল ৩০ দিনের মধ্যে: শিক্ষামন্ত্রী

ডা. দীপু মনি

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল আগামী ৩০ দিনের মধ্যে প্রকাশিত হবে। 

আজ বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) হল পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের কোনো সুযোগ নেই। কেউ গুজব ছড়ালে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে সকাল ১০টায় সারাদেশে উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন


এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু আজ

প্রকাশ্যে কাউন্সিলর হত্যা: এবার ‘বন্দুকযুদ্ধে’ প্রধান আসামি নিহত


করোনার পরিস্থিতির কারণে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে দেড় ঘণ্টায় হবে এবারের পরীক্ষা। এ বছর ১৩ লাখ ৯৯ হাজার ৬৯০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। সকালে ও বিকেলে দুই ধাপে আগামী ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে পরীক্ষা।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, এবার সাধারণ নয়টি শিক্ষাবোর্ডে পরীক্ষা দিচ্ছে ১১ লাখ ৩৮ হাজার ১৭ জন শিক্ষার্থী। তাদের ছাত্র পাঁচ লাখ ৬৩ হাজার ১১৩ জন। ছাত্রী পাঁচ লাখ ৭৪ হাজার ৯০৪ জন। মাদরাসা বোর্ডের অধীনে আলিম পরীক্ষা দিচ্ছে এক লাখ ১৩ হাজার ১৪৪ জন। তাদের ছাত্র ৬১ হাজার ৭৩৮ জন এবং ছাত্রী ৫১ হাজার ৪০৬ জন। 

এ ছাড়া এইচএসসি- বিএম/ভোকেশনাল পরীক্ষা দিচ্ছে এক লাখ ৪৮ হাজার ৫২৯ জন। তাদের ছাত্র এক লাখ চার হাজার ৮২৭ জন। ছাত্রী ৪৩ হাজার ৬৪২ জন। 

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু আজ

অনলাইন ডেস্ক

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু আজ

দীর্ঘ আট মাস অপেক্ষা শেষে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে। করোনার কারণে এ বছর তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ের ছয়টি পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আজ প্রথম দিন এইচএসসি পদার্থবিজ্ঞান প্রথম পত্রের পরীক্ষায় বসবে শিক্ষার্থীরা। সকালের পরীক্ষা সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা এবং বিকেলের পরীক্ষা দুপুর ২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। 

আগামী ৩০ ডিসেম্বর এই পরীক্ষা শেষ হবে।

এ বছর পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ১৩ লাখ ৯৯ হাজার ৬৯০ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ছাত্র সাত লাখ ২৯ হাজার ৭৩৮ জন এবং ছাত্রী ছয় লাখ ৬৯ হাজার ৯৫২ জন। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

কুয়েট অধ্যাপকের মৃত্যুকে ঘিরে রহস্যে,উত্তপ্ত ক্যাম্পাস

অনলাইন ডেস্ক

কুয়েট অধ্যাপকের মৃত্যুকে ঘিরে রহস্যে,উত্তপ্ত ক্যাম্পাস

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) অধ্যাপক ড. সেলিম হোসেনের মৃত্যুকে ঘিরে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক ড. মো. সেলিম হোসেন (৩৮) গতকাল মঙ্গলবার আকস্মিক মৃত্যুবরণ করেন।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) দুপুর ৩টার দিকে প্রফেসর ড. সেলিম হোসেন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। তিনি কুয়েটের লালন শাহ হলের প্রভোস্ট ছিলেন।

কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সেজানের নেতৃত্বে কিছু সাধারণ ছাত্র কর্তৃক জেরা, অপমান, অবরুদ্ধ করে রাখা ও মানসিক নির্যাতনে তার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে বুধবার (১ ডিসেম্বর) দিনভর ক্যাম্পাসে উত্তেজনা বিরাজ করে।

এ ঘটনায় মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক ড. মো. আরিফুল ইসলামকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কুয়েট কর্তৃপক্ষ। দ্রুত সময়ের মধ্যে তদন্ত কমিটিকে তাদের প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

ক্যাম্পাসে আন্দোলনরত সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানার, সম্প্রতি লালনশাহ হলের ডিসেম্বর মাসের খাদ্যব্যবস্থাপক (ডাইনিং ম্যানেজার) নির্বাচন নিয়ে কুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সেজান তার অনুগতকে নির্বাচিত করতে মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) ড. মো. সেলিমের অফিসে ঢুকে অশালীন আচরণ ও মানসিক নির্যাতন করেন।

এছাড়া নিজেদের পছন্দের ব্যক্তিকে ওই পদে বসাতে ড. সেলিম হোসেনকে বেশ কয়েকদিন ধরে নিয়মিত হুমকি দিচ্ছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সাদমান নাহিয়ান সেজানের নেতৃত্বে কয়েকজন ছাত্র ক্যাম্পাসের রাস্তায় ড. সেলিম হোসেনকে জেরা করে এবং তাকে অনুসরণ করে তার ব্যক্তিগত কক্ষে (তড়িৎ প্রকৌশল ভবন) ঢোকে।

সিসি টিভি ফুটেজে দেখা যায়, তারা প্রায় আধঘণ্টা ওই শিক্ষকের সঙ্গে রুদ্ধদার বৈঠক করে। এরপর ড. সেলিম হোসেন দুপুরে খাবারের খাওয়ার জন্য বাসায় যান। দুপুর ২টার দিকে তার স্ত্রী লক্ষ্য করেন ড. সেলিম বাথরুম থেকে বের হচ্ছেন না। পরে দরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে নেওয়া হলে, কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় সাধারণ ছাত্ররা বিক্ষুব্ধ ড. মো. সেলিমের কফিনসহ অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে উপাচার্যের কাছে বিচার চান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মামলার জোর দাবি জানান।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনায়েত উল্লাহ

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: ৬ হামলাকারী শনাক্ত


 

এদিকে সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমে এ ঘটনার সিসি টিভি ফুটেজ ছড়িয়ে পড়েছে। শিক্ষক মহলে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। প্রফেসর ড. মো. সেলিম হোসেনের অপমৃত্যুকে কেন্দ্র করে শিক্ষক সমিতি বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায়  কুয়েট অডিটোরিয়ামে এক জরুরি সাধারণ সভা করেন।

সভায় শিক্ষক সমিতি জড়িত ছাত্রদের বহিষ্কার এবং এ ঘটনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত সব ক্লাস, পরীক্ষা বর্জনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়েছে। তবে উপাচার্যের পক্ষ থেকে এ নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো বিবৃতি দেওয়া হয়নি।

এদিকে কুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শোভন সরকারি চাকরি করায় এবং সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সিজান বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত থাকার কারণে কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এইচএসসি পরীক্ষায় ডিএমপির নিষেধাজ্ঞা

অনলাইন ডেস্ক

এইচএসসি পরীক্ষায় ডিএমপির নিষেধাজ্ঞা

এইচএসসি পরীক্ষা, ফাইল ছবি।

সারাদেশে এইচএসসি/ডিপ্লোমা ইন বিজনেস স্টাডিজ, এইচএসসি (ভোকেশনাল), এইচএসসি (বি.এম), ডিপ্লোমা ইন কমার্স ও আলিম পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর ২০২১) থেকে।

১১টি শিক্ষা বোর্ডে এ বছর প্রায় ১৪ লাখ পরীক্ষার্থীর অংশগ্রহণ করার কথা রয়েছে।

সকালে ও বিকেলে দুই ধাপে আগামী ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত তত্ত্বীয় পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে কেন্দ্রগুলোতে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে পরীক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কিছু নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বিপিএম (বার) স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পরীক্ষা কেন্দ্রসমূহের ২০০ গজের মধ্যে পরীক্ষার্থী ব্যতীত জনসাধারণের প্রবেশ সম্পূর্ণরুপে নিষেধ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: 


পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে


 

এ আদেশ আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) হতে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার দিনগুলোতে পরীক্ষা চলাকালীন পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার প্রতিটি পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে দেড় ঘণ্টা করে অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষাকেন্দ্রে পরীক্ষার্থীর সঙ্গে একজনের বেশি অভিভাবক আসতে পারবেন না।

news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর