কিশোরীর দ্বিতীয় বিয়ে এটি, বর বলছেন ‘বাল্যবিয়ে’
কিশোরীর দ্বিতীয় বিয়ে এটি, বর বলছেন ‘বাল্যবিয়ে’

কিশোরীর দ্বিতীয় বিয়ে এটি, বর বলছেন ‘বাল্যবিয়ে’

অনলাইন ডেস্ক

ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিয়ে দেওয়ার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান, কাজীসহ ৯জনকে গ্রেপ্তারের আদেশ দিয়েছেন ঠাকুরগাঁও সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরিফুর রহমান।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকালে জামিন নিতে আদালতে গেলে বালিয়াডাঙ্গী দুওসুও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম, কাজী আব্দুল কাদের ও স্থানীয় সাংবাদিক আবুল কালামসহ ৯জনের জামিন নামঞ্জুর করে তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।  

আদালত সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি একটি সালিসে বালিয়াডাঙ্গি উপজেলা চাড়োল ইউনিয়নের পলাশবাড়ী গ্রামে এক কিশোরীর সঙ্গে একই গ্রামের মিজানুরের (২৬) বিয়ে হয়।

আরও পড়ুন:


পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ওই ব্যক্তি ‌‘ভবঘুরে’

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা হয় রাত আড়াইটা থেকে ৬টার মধ্যে

নিজের শিশুকন্যাকে ব্লেডের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করল বাবা


মিজানুর দাবি করেন, কিশোরীর সঙ্গে জোরপূর্বক তাকে বিয়ে দেওয়া হয়।

এই অভিযোগে ঠাকুরগাঁও কোর্টে ৯জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন মিজানুর।

বর মিজানুর বলেন, অন্যায়ভাবে একটি বিচার সালিসে আমাকে নাবালিকা মেয়ের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাই এই বিষয়ে আমি সঠিক বিচার দাবি করছি।

এদিকে, পুরো বিষয়টিকে রহস্যজনক বলে এর সঠিক তদন্ত দাবি করেছেন আসামির স্বজনরা।

তাদের দাবি, যে মেয়েটিকে নাবালিকা বলা হচ্ছে, এটি তার দ্বিতীয় বিয়ে।

আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবেদুর রহমান বলেন, মিজানুরের করা মামলাটি মিথ্যা এবং উদ্দেশ্যমূলক। ধর্ষণ মামলা থেকে রক্ষা পেতেই মিজানুর ওই মেয়েকে সালিসে বিয়ে করে।

news24bd.tv/তৌহিদ

 

সম্পর্কিত খবর