সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা, লাশ গুমে সহায়তা করে খুনির বাবা

নাটোর প্রতিনিধি

সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা, লাশ গুমে সহায়তা করে খুনির বাবা

নাটোরের লালপুর উপজেলার চংধুপইল ইউনিয়নের আব্দুলপুর মধ্যপাড়া গ্রামের শিশু নুসরাত জাহান বাবলীকে (৭) একা পেয়ে প্রথমে ধর্ষণ ও পরে হাঁসুয়ার আঘাতে হত্যা করে কিশোর ইলিয়াস হাসান ইমন (১৫)। 

মৃত্যু নিশ্চিতের পর মৃতদেহ গুম করার উদ্দেশ্যে বস্তায় ভরে টয়লেটের ট্যাংকিতে ভরে রাখে ইমন। একদিন পর বাবলীর মৃতদেহ আবার ট্যাংকি থেকে তুলে বাবলীর বাড়ি অদূরে একটি ধানক্ষেতে ফেলে রাখে। 

নিখোঁজের পূর্বে বাবলী ইমনদের বাড়িতে আসার কথা জানাজানি হলে বাবা ফাইজুল ইসলাম জিজ্ঞাসা করলে ইমন হত্যার কথা স্বীকার করে। তখন বাবা ফাইজুল বস্তাবন্দি মৃতদেহটি দূরের আরেকটি ধানক্ষেতে ফেলে আসে। 

আজ রোববার (২৪ অক্টোবর) জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচন করেন জেলা পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা।

এর আগে শনিবার রাতে কিশোর ইমন ও তার বাবা ফাইজুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে লালপুর থানা পুলিশ। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত হাঁসুয়াটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। বাবলী ওই গ্রামের বাবু হোসেনের মেয়ে।

আরও পড়ুন:


স্বামীকে হত্যার পর হাত-পা কেটে পাতিলে রাখেন দ্বিতীয় স্ত্রী!

যে ক্লাবের সদস্য হতেই লাগে দেড়শ' কোটি টাকা

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের বিতর্কিত কিছু ঘটনা

লাখ টাকায় স্ত্রীকে বৃদ্ধের কাছে বিক্রি করে দিলো স্বামী!


পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন, গত ১৯ শে অক্টোবর নিহত বাবলী ও হত্যাকারী ইমনসহ বেশ কয়েকজন শিশু পিকনিকের জন্য প্রতিবেশি আরশেদ আলীর বাড়িতে যায়। রান্না শেষে গোসলের জন্য সবাই বাড়ি গেলে ইমনও তার বাড়িতে চলে যায়। ইমন তার বাড়িতে একাকী থাকা অবস্থায় শিশু বাবলী তার বাড়িতে যায়। এ সময় বাবলীকে একা পেয়ে ধর্ষণ করে ইমন। বাবলী কান্নাকাটি করলে ইমন তার গলা চেপে হত্যার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে বাবলী নিস্তেজ হয়ে পড়লে ধারালো হাঁসুয়ার উল্টোদিক দিয়ে ঘাড়ে আঘাত করলে বাবলীর মৃত্যু হয়।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, বাবলীকে হত্যার পর তাৎক্ষণিক মরদেহ বাড়ির পরিত্যক্ত টয়লেটে ফেলে দেয় কিশোর ইমন। পরদিন ২০ অক্টোবর রাতে টয়লেট থেকে মৃতদেহ তুলে বাবলীর বাড়ির ৫০০ মিটার দূরে জিয়া মেম্বারের আম বাগানের পাশের ধানক্ষেতে ফেলে রাখে। পরদিন বাবা ফাইজুল ইমনের কাছে জানতে চান তাদের বাড়িতে বাবলীর আসার ঘটনা সত্য কি না। এ সময় বাবার কাছে হত্যা ও মরদেহ রেখে আসার স্থান বলে দেয় ইমন। তখন বাবা ফাইজুল ছেলেকে বাঁচাতে ধানক্ষেত থেকে বস্তাটি সরিয়ে আরেকটু দূরে মাসুদ রানার ধানক্ষেতে ফেলে আসে।

লিটন কুমার সাহা আরও বলেন, হত্যার দিন দুপুরে আরশেদ আলীর বাড়িতে মেয়েকে খুঁজে না পেয়ে বাবা বাবু হোসেন আত্মীয় স্বজনদের জানানোর পাশাপাশি আব্দুলপুর এলাকায় মাইকিং ও রেলস্টেশনে পোস্টারিং করেন। নিখোঁজের চতুর্থ দিনে বাবা বাবু জানতে পারেন তার বাড়ির ৭০০ মিটার দূরে একটি জমিতে বস্তাাবন্দি অবস্থায় একটি মৃতদেহ পড়ে আছে। এ সময় বাবু সেখানে গিয়ে মেয়ের অর্ধগলিত মরদেহ শনাক্ত করেন।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারেক জোবায়ের, লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফজলুর রহমান, গোয়েন্দা পুলিশের ইনচার্জ জালাল উদ্দীনসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: ৬ হামলাকারী শনাক্ত

অনলাইন ডেস্ক

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: ৬ হামলাকারী শনাক্ত

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ সাহা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ৬ হামলাকারীকে শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গ্রেফতার মাে. রাব্বি ইসলাম অন্তু (১৯) সোমবার (২৯ নভেম্বর) আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন।

কুমিল্লায় প্রকাশ্য দিবালোকে কাউন্সিলর সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ সাহাকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় হিট স্কোয়াডে ছিলেন ছয়জন। খুনের আগে মামলার ৫ নম্বর আসামি সাজনের বাসায় বৈঠক হয়। এদিকে এজাহারনামীয় প্রধান আসামি শাহ আলম ও নাজিমের সিসিটিভি ফুটেজ পুলিশের হাতে এসেছে। ২৮ সেকেন্ডের ওই ফুটেছে দেখা যায় শাহ আলম ও নাজিম গুলি করতে করতে দৌড়াচ্ছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কুমিল্লা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সোহান সরকার বলেন, ‘আমরা সিসিটিভি ফুটেজ দেখে শাহ আলম ও নাজিমকে চিহ্নিত করেছি। তথ্যানুসন্ধানে আমরা নিশ্চিত হয়েছি হিট স্কোয়াডে ছিলেন ছয়জন। তারা হলেন এজাহারনামীয় ১ নম্বর আসামি শাহ আলম, ২ নম্বর আসামি জেল সোহেল, ৩ নম্বর আসামি সাব্বির হোসেন, ৫ নম্বর আসামি সাজন। এ ছাড়া স্থানীয় নাজিম নামে এক যুবক ও ফেনী থেকে আগত অজ্ঞাত এক আসামি রয়েছেন।’ 

পুলিশ কর্মকর্তা সোহান সরকার আরও বলেন, ‘অনুসন্ধানে আমরা আরও জানতে পেরেছি সাজনের বাসায় বৈঠক শেষে কিলিং মিশনে আসেন অন্য আসামিরা।’ 

সোহান সরকার আরও জানান, কিলিং মিশনে থাকা অপরাধীদের গ্রেফতারে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে রয়েছে। 

উল্লেখ্য, ২২ নভেম্বর বিকাল ৪টার দিকে মহানগরীর পাথরিয়াপাড়ায় কাউন্সিলর কার্যালয়সংলগ্ন থ্রি স্টার এন্টারপ্রাইজে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন কাউন্সিলর সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ সাহা। গুলিবিদ্ধ হন আরও পাঁচজন। জোড়া খুনের ঘটনায় ২৩ নভেম্বর রাতে কাউন্সিলর সোহেলের ছোট ভাই সৈয়দ মো. রুমন বাদী হয়ে ১১ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন।

 news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

হোটলে যুবকের লাশ, উধাও কথিত স্ত্রী ও ছোট ভাই

অনলাইন ডেস্ক

হোটলে যুবকের লাশ, উধাও কথিত স্ত্রী ও ছোট ভাই

একটি হোটেলে এক যুবকের লাশ রেখে তার কথিত স্ত্রী ও ছোটভাই উধাও হয়েছে। লাশ উদ্ধারের পর তাদের খুঁজছে পুলিশ। সোমবার বিকাল ৩টায় সিলেট নগরীর দরগাহ গেটের হোটেলের একটি কক্ষ থেকে লাশটি উদ্ধার হয়।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হোটেলের ম্যানেজারকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনা ঘটেছে দরগাহ গেটের জমজম আবাসিক হোটেলে।

পুলিশ জানায়, উদ্ধার করা লাশটি মোরশেদ (৪৭) নামের একজনের। তার বাড়ি  নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও থানার সেনপাড়া গ্রামে। তার পিতার নাম মাকু মিয়ার ছেলে।

হোটেল সংশ্লিষ্টরা জানান, রোববার রাত ১১টার দিকে মোরশেদ, তার কথিত স্ত্রী সাথী আক্তার (৩০) ও ছোট ভাই বাবু মিয়া (২৯) জমজম হোটেলে উঠেন। তারা তৃতীয় তলার একটি ডাবল ও একটি সিঙ্গেল রুম ভাড়া নেন। 

সোমবার দুপুরে এক হোটেল কর্মচারী নিয়মিত রুম সার্ভিসে তৃতীয় তলায় গিয়ে দেখতে পান, ডাবল রুমের খাটের ওপর মোরশেদের নিথর দেহ পড়ে আছে। জানার পর পুলিশ গিয়ে মোরশেদের লাশ উদ্ধার করে।

আরও পড়ুন:


ফের মেয়র নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর ভাতিজা

হেফাজত মহাসচিব নুরুল ইসলাম জিহাদী না ফেরার দেশে

পীরগঞ্জে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত বেড়ে ৩


 

কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ আলী মাহমুদ জানান, লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে মৃতদেহে কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। হোটেলের ম্যানেজারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। 

 news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বাসচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু, সড়ক অবরোধ-অগ্নিসংযোগ

অনলাইন ডেস্ক

বাসচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু, সড়ক অবরোধ-অগ্নিসংযোগ

রাজধানীর রামপুরায় বাসচাপায় এক শিক্ষার্থী মারা গেছে। শিক্ষার্থীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ঘটনাস্থলে জড়ো হয়ে সড়ক অবরোধ করেছে উত্তেজিত জনতা। পাশাপাশি তারা বাসে আগুন দিয়েছে।   

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ওই ছাত্রের সঙ্গে বাস ভাড়া নিয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়ে বাসের হেলপার। পরে তাকে ধাক্কায় দিলে, রাস্তায় পড়ে যায় সে। এরপর চলন্ত বাস, তার মাথার উপর দিয়ে চালিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনা স্থলেই তার মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন:


ফের মেয়র নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর ভাতিজা

হেফাজত মহাসচিব নুরুল ইসলাম জিহাদী না ফেরার দেশে

পীরগঞ্জে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত বেড়ে ৩


সোমবার রাত পৌনে এগারোটার দিকে রামপুরা বাজারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করে রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, বাসচাপায় রামপুরা বাজারের সামনে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় উত্তেজিত জনতা সড়ক অবরোধ করেছে।

 news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী গ্রেফতার

কক্সবাজারের টেকনাফের নয়াপাড়া নিবন্ধিত ক্যাম্প এলাকায় অভিযান চালিয়ে দেশীয় তৈরি একটি ওয়ান শুটার গানসহ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী আব্দুর রহিম প্রকাশ রইক্কাকে (৩৪) গ্রেফতার করেছে (এপিবিএন) পুলিশ।এপিবিএন পুলিশের দাবী, গ্রেফতার সেই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী সালমান শাহ গ্রুপের সক্রিয় সদস্য।

সোমবার সকালে ঐ ক্যাম্প এলাকা থেকে অস্ত্রসহ তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেফতারকৃত রোহিঙ্গা ওই ক্যাম্পের বাসিন্দা হাবিবুর রহমানের ছেলে। 

সোমবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) অধিনায়ক এসপি মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম তারিক।

আরও পড়ুন:


ফের মেয়র নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর ভাতিজা

হেফাজত মহাসচিব নুরুল ইসলাম জিহাদী না ফেরার দেশে

পীরগঞ্জে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত বেড়ে ৩


 

তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নয়াপাড়া রেজিস্ট্রার ক্যাম্পে এপিবিএনের একটিটিম অভিযান পরিচালনা করে।এসময় ডি ব্লকের বটতলা মোড় থেকে সালমান শাহ গ্রুপের দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী আব্দুর রহিম প্রকাশ রইক্কাকে (৩৪) গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। তার হেফাজতে থাকা দেশীয় তৈরি একটি ওয়ান শুটার গান উদ্ধার করা হয়। ​তার বিরুদ্ধে অপহরণ,চাঁদাবাজি,ছিনতাই,মারামারিসহ নানা অপরাধ সংঘটনের অভিযোগ রয়েছে। এসব অভিযোগে তার বিরুদ্ধে টেকনাফ মডেল থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। 

 news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

পাঁচ রাউন্ড গুলিসহ আটক ৩

অনলাইন ডেস্ক

পাঁচ রাউন্ড গুলিসহ আটক ৩

তিন যুবককে ২টি এলজি ও ৫ রাউন্ড গুলিসহ আটক করেছে র‍্যাব-৭। চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন খেজুরতলী জেলে পাড়া এলাকায় থেকে গতকাল রোববার রাত সাড়ে ১২টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃত ব্যক্তিরা হলো- কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়ার পরান সিকদার পাড়ার মোঃ রফিকের ছেলে মো. তারেক, আবুল কালামের ছেলে মো. মিজবাহ উদ্দিন ও মোসলেহ উদ্দিনের ছেলে মো. শাহেদ।

আরও পড়ুন:

নির্বাচনে হেরে যাওয়ায় কম্বল ফেরত নিলেন প্রার্থী!

অভিবাসন ইস্যুতে ব্রিটেনের সঙ্গে কাজ করতে চায় ফ্রান্স

মাসুদের প্রেমিকা হতে যাচ্ছেন মিম

র‍্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) নিয়াজ মোহাম্মদ চাপল সংবাদমাধ্যকে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাতে র‍্যাব-৭ এর একটি আভিযানিক দল ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করেন। এসময় তাদের থেকে ২টি এলজি এবং ৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, আটককৃতরা চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় অস্ত্র ক্রয়-বিক্রয়সহ চাঁদাবাজি ও বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর