এগুলো সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা নয়, রাজনৈতিক চক্রান্ত: আব্বাস

অনলাইন ডেস্ক

এগুলো সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা নয়, রাজনৈতিক চক্রান্ত: আব্বাস

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, আজকে চারদিকে হাহাকার, শুধু আওয়ামী লীগ ছাড়া। কারণ হচ্ছে তারা তো উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে। প্রতিটি দ্রব্যের দাম বাড়ছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ এ নিয়ে কোনো কথা বলবে না। কারণ আওয়ামী লীগ কখনো অভাব দেখেনি। 

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে কৃষক দলের মানববন্ধনে মির্জা আব্বাস বলেন, আমরা ইতিমধ্যে খেয়াল করেছি, এই দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে বহু লোক না খেয়ে থাকে। বেশকিছু ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় এসেছে। কিন্তু মিডিয়াতে আসে না। আজকে মিডিয়াকে কন্ট্রোল করা হচ্ছে। আজকে মানুষের কথা বলার অধিকার নেই। তাই অনেক কিছুই আমাদের দৃষ্টিতে আসছে না।

সম্প্রতি ঘটে যাওয়া সাম্প্রদায়িক ঘটনাগুলো সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা নয়, এটা হচ্ছে রাজনৈতিক চক্রান্ত বলে মন্তব্য করেন বিএনপির এ নেতা।

আরও পড়ুন: আবাসিক এলাকায় গ্যাস সংযোগ দিতে হাইকোর্টের রুল

দেশের মানুষের মুখে কুলুপ এঁটে দেওয়ার জন্য এই চক্রান্ত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আব্বাস বলেন, আগামীতে আমরা নির্বাচিত সরকার চাই। নির্বাচিত সরকার হলেই এই দেশের অশান্তি থামবে। নির্বাচিত সরকার এ দেশের ভালো-মন্দ দেখবে। আওয়ামী লীগকে দিয়ে এ দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়ন কখনোই সম্ভব নয়।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি'র আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান, কৃষকদলের সভাপতি হাসান জাফির তুহিন, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, যুগ্ম-সম্পাদক মোশারেফ হোসেন এমপি প্রমুখ বক্তব্য দেন।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মানুষ আ.লীগকে চায়না বিএনপির ওপর আস্থা নেই : জিএম কাদের

অনলাইন ডেস্ক

মানুষ আ.লীগকে চায়না বিএনপির ওপর আস্থা নেই :  জিএম কাদের

আওয়ামী লীগকে দেশের মানুষ আর চায় না আর বিএনপির ওপর আস্থা নেই। কিন্তু  সাধারণ মানুষ জাতীয় পার্টির ওপর থেকে আস্থা হারায়নি । বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা জনবন্ধু গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

আজ দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এর বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে বাংলাদেশ জনদল (বিজেডি) নেতৃবৃন্দের সাথে এক মতবিনিময় সভায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান জনবন্ধু গোলাম মোহাম্মদ কাদের এ কথা বলেন। 

তিনি বলেন, ১৯৯১ সালের পর থেকে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি বারবার রাষ্ট্র ক্ষমতায় গিয়ে মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। তাই আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ওপর বিরক্ত দেশের মানুষ। নতুন প্রজন্ম এবং বিশিষ্ট ব্যক্তি যারা রাজনীতির মাধ্যমে দেশ ও মানুষের সেবা করতে চায় তারা ইচ্ছে করলেই আওয়ামী লীগে যোগ দিতে পারছে না। আবার বিএনপির যে অবস্থা তাতে কেউই বিএনপিতে যোগ দিতে চাইবে না। কিন্তু দীর্ঘ ৩১ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে থেকেও জাতীয় পার্টি তৃণমূল পর্যায়ে সংগঠিত আছে। নতুন প্রজন্ম আর বিশিষ্টজনদের জন্য জাতীয় পার্টির দরজা খোলা আছে। দেশ ও মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করার সর্বোত্তম প্লার্টফর্মের নাম জাতীয় পার্টি। 

গোলাম মোহাম্মদ কাদের  বলেন, দেশের প্রত্যান্ত অঞ্চলে আমাদের নেতা জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও সফল রাষ্ট্রপতি পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এর বিশাল ভোট ব্যাংক আছে। এখন আমাদের কাজ হচ্ছে, দলকে আরো সংগঠিত করা।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনা


 

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টির মহাসচিব মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপা, এডভোকেট মোঃ রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, দফতর সম্পাদক-২ এমএ রাজ্জাক খান, যুগ্ম দফতর সম্পাদক সমরেশ মন্ডল মানিক, কেন্দ্রীয় নেতা লোকমান হোসেন ভূঁইয়া রাজু। বাংলাদেশ জনদল (বিজেডি) নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জনদলের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জয় চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মখলেছুর রহমান হাবিব, আবুল হাশেম সরকার, মহাসচিব সেলিম আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব এসএম হারুন অর রশীদ, মনিরুজ্জামান নয়ন, সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হাসান, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. ফিরোজ মিয়া, তথ্য সম্পাদক মাসুম বিল্লাহ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম খান, নির্বাহী সদস্য লিটন সরকার, হারুন অর রশীদ।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

পাকিস্তানের জার্সি-পতাকা নিয়ে স্টেডিয়ামে যাওয়াদের যা বললেন মন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

পাকিস্তানের জার্সি-পতাকা নিয়ে স্টেডিয়ামে যাওয়াদের যা বললেন মন্ত্রী

পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান

সুনামগঞ্জের ছাতকে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, ‘পাকিস্তানের পতাকা-জার্সি পড়ে যারা স্টেডিয়ামে ক্রিকেট খেলা দেখতে যান এটা আমাদের জন্য কলঙ্কজনক ও লজ্জাজনক কাজ।’ এসময় তাদের মুক্তিযোদ্ধা ও দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যার পর এ সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন তিনি।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেছেন,  যারা সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বিনষ্ট করে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায় জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তাদেরকে কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে।

‘পশ্চিমারা এক সময় বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি বলতো। কিন্তু গত ১২ বছরে বাংলাদেশ উন্নতি অবাক বিস্ময় নিয়ে তাকিয়ে দেখছে। যে পাকিস্তান আমাদের শোষণ করে করাচি-ইসলামাবাদ গড়েছিল সেই পাকিস্তান অর্থনীতিতে আমাদের অর্ধেকও না’ বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

তিনি বলেন, আমাদের প্রতিবেশী বিশাল ভারতের চেয়ে আমাদের মাথাপিছু আয় বেশি। আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণে এই অভূতপূর্ব উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে।

আরও পড়ুন:


ফেসবুকে মন্ত্রীর পোস্ট, ‘মন চাইছে আত্মহত্যা ক‌রি’


news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা হবে আন্দোলনে: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা হবে আন্দোলনে: ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানো এই সরকারের জন্যই দরকার, নইলে দেশের মানুষ ক্ষমা করবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা নিশ্চত করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন:


ফেসবুকে মন্ত্রীর পোস্ট, ‘মন চাইছে আত্মহত্যা ক‌রি’


news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

আইন আদালতের তোয়াক্কা করে না বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

আইন আদালতের তোয়াক্কা করে না বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আইন আদালতের প্রতি আস্থা নেই বলেই বিএনপি নেতারা বেগম জিয়ার বিদেশে যাওয়ার বিষয়ে আইন কোন বাধা নয়, বাধা হচ্ছে সরকার বলে বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যে প্রমাণিত হয়েছে, তারা দেশের আইন আদালতের কোন তোয়াক্কা করে না।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সকালে মন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বিএনপি নেতাদের বিভিন্ন বক্তব্যের জবাবে এসব কথা বলেন।

বেগম জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার ক্ষেত্রে আইন নয়, এই অবৈধ সরকার বাধা,- বিএনপি মহাসচিবের এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বিএনপি মহাসচিবের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, সরকার যদি অবৈধই হয় তাহলে এই অবৈধ সরকারের কাছে দাবী করছেন কেন?

তিনি আরও বলেন, আর এই সরকার অবৈধই বা কি করে হয়? সংসদেতো আপনাদেরও বৈধভাবে প্রতিনিধিত্ব রয়েছে। 

হাফ ভাড়া নিয়ে সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ঢাকা সিটিতে বেশকিছু পরিবহনের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়ার যে সিদ্ধান্ত, তা বাস্তবায়ন না করার অভিযোগ রয়েছে। শিক্ষার্থীদের প্রতি সংবেদনশীল হয়ে হাফ ভাড়ার সিদ্ধান্তটি বাস্তবায়ন করার জন্য পরিবহন মালিক শ্রমিকদের আবারও অনুরোধ করেন তিনি।

মন্ত্রী, পরিবহন মালিক শ্রমিকদের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, কথা দিয়ে কথা রাখুন। আপনাদের সিদ্ধান্ত আপনারাই কেন লঙ্ঘন করছেন?

আরও পড়ুন


নগরকান্দায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে, চালক নিহত

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

বিভিন্ন জায়গায় সর্বনিম্ন ভোটে লজ্জার হার, বিব্রত আ. লীগ

অনলাইন ডেস্ক

বিভিন্ন জায়গায় সর্বনিম্ন ভোটে লজ্জার হার, বিব্রত আ. লীগ

তিন ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে গতকাল পর্যন্ত ৭৪ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতীক নৌকা নিয়ে মাত্র ৯৯ ভোট পেয়ে জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়ার রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে।এমনকি সর্বনিম্ন ভোটে লজ্জার হারের ঘটনাও ঘটছে। এমন পরিস্থিতি খোদ দলের ভিতরেই প্রশ্ন উঠেছে, এসব প্রার্থীদের মনোনয়নের তালিকা পাঠায় কারা? কীভাবে তারা নৌকা পান। এসব নিয়ে চলছে আলোচনা সমালোচনা।

ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন পেলেও তৃতীয় ধাপে ১৮১ ইউপিতে তৃতীয় অবস্থানেও থাকতে পারেনি নৌকার প্রার্থীরা। দলীয় বিদ্রোহী, বিএনপির ‘স্বতন্ত্র’ প্রার্থীদের কাছেও পরাজয় হচ্ছে। বারবার তাগাদা দিয়েও বিদ্রোহীদের দমন করা যাচ্ছে না। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে অনেকটা নিয়ন্ত্রণহীন তৃণমূল।

তৃতীয় ধাপে ৪৭ দশমিক ০৬ শতাংশ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পরাজয় ঘটেছে। নির্বাচনী সংঘাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যসহ নিহত হয়েছেন ১৩ জন।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, ইউপি নির্বাচন একেবারেই প্রান্তিক পর্যায়ের। এখানে গোষ্ঠী, পরিবার ও পেশিশক্তি ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। এবাড়ি-ওবাড়ি দ্বন্দ্ব থাকে। ইউপি নির্বাচন এলে এসব দ্বন্দ্ব উসকে ওঠে। 

আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, তৃণমূল থেকে যে তালিকা আমরা পাচ্ছি, সেটি কি আসলেই মাঠের চিত্র নাকি নেতা-এমপিদের পছন্দের প্রার্থী? মনোনয়ন যাদেরকে দেওয়া হচ্ছে সেখানে কি তৃণমূলের চাওয়ায় হচ্ছে, নাকি চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে? সেগুলো এখন বিচার বিশ্লেষণের সময় এসেছে। কারণ আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক দল হিসেবে দেউলিয়া হয়ে যায়নি যে ৯৯ ভোট পায়। একটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগসহ সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের দলীয় পদ-পদবি আছেন এমন নেতারাও ভোট দিলে হাজার ছাড়িয়ে যাবে।  উৎসবমুখর ভোট এখন দলের জন্য বিব্রতকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

নির্বাচন শুরু হলেই কেন্দ্র ও তৃণমূল থেকে বলা হয়, দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গেলেই ব্যবস্থা। প্রথমে সাময়িক বহিষ্কার করা হলেও পরে স্বপদে বহাল করা হয়। এখানেই শেষ নয়, তাদের দলীয় পদ-পদবি দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর