ঘুষ এনে দিতে অস্বীকৃতি, জুনিয়র অফিসারের মাথা ফাটালেন সিনিয়র
ঘুষ এনে দিতে অস্বীকৃতি, জুনিয়র অফিসারের মাথা ফাটালেন সিনিয়র

ঘুষ এনে দিতে অস্বীকৃতি, জুনিয়র অফিসারের মাথা ফাটালেন সিনিয়র

অনলাইন ডেস্ক

শরীয়তপুর সদরে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে এক জুনিয়র অফিসারকে চেয়ার দিয়ে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে অফিসার (সাধারণ) ফরিদ উদ্দিন আহাম্মদের বিরুদ্ধে।

গতকাল সন্ধ্যায় উপজেলার একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প অফিসে এ ঘটনা ঘটে।  

আহত ব্যক্তিটির নাম ইলিয়াস খন্দকার (৩০)। তিনি মাদারীপুর সদর উপজেলার ব্রাহ্মনদি গ্রামের আলিফ খন্দকারের ছেলে।  

আহত ইলিয়াস বলেন, গতকাল সন্ধ্যা ৬টার দিকে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সদর উপজেলার অফিসার (সাধারণ) ফরিদ উদ্দিন আহাম্মদ স্যার তার কক্ষে সুপার ভাইজার সফিক, সিও মহিদুল ও আমাকে নিয়ে মিটিংয়ে বসেন।  

আরও পড়ুন: গোপালগঞ্জে ব্যবসায়ী দুলাল হত্যায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

একপর্যায়ে স্যার আমাকে বলেন, যারা মাঠকর্মী আছেন তারা এলাকার সদস্যের মাঝে ঋণ বিতরণ করলে প্রতি সদস্য যেন আমাকে এক হাজার টাকা করে দেয়। এ কথাটা আপনি মাঠকর্মীদের বলে দিয়েন।

তখন আমি অপারগতা প্রকাশ করে বলি, ঘুষের টাকার কথা বলতে পারব না। আমি ঘুষ খাই না, বলতেও পারব না। এ কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে তিনি রুমে থাকা একটি লোহার চেয়ার দিয়ে আমার মাথায় আঘাত করেন। এতে আমি জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে যাই। জ্ঞান ফিরলে দেখি সদর হাসপাতালে আছি। তিনি আমার মাথা ফাটিয়েছেন। আমি ফরিদ উদ্দিন আহাম্মদ স্যারের বিরুদ্ধে মামলা করবো।

আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্পের সদর উপজেলার অফিসার (সাধারণ) ফরিদ উদ্দিন আহাম্মদ বলেন, ইলিয়াস ঠিকমতো মাঠে কাজ করে না। আমি তাকে কাজ করার কথা বলি। কিন্তু টাকার বিষয়ে কিছু বলিনি। তবে তার সঙ্গে আমার ধস্তাধস্তি হয়েছে।

শরীয়তপুর সদরের পালং মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আক্তার হোসেন বলেন,  হাসপাতালে ইলিয়াসকে দেখতে গিয়েছিলাম। সে আমাকে বিষয়টি মৌখিকভাবে জানিয়েছে। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  

ঘটনাটি খুবই দু:খজনক বলে মন্তব্য করে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনদীপ ঘরাই বলেছেন, এ ব্যাপারে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। ঘটনার সত্যতা পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv নাজিম

পাঠকপ্রিয়