তেলের দাম লাফিয়ে বাড়ল, প্রতিবাদ করলে শ্রীঘর অথবা লালঘর: রিজভী

অনলাইন ডেস্ক

তেলের দাম লাফিয়ে বাড়ল, প্রতিবাদ করলে শ্রীঘর অথবা লালঘর: রিজভী

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘করোনাকালে ব্যবসায়ীদের লোকসান হয়েছে বলে তেলের দাম বাড়ালেন, কিন্তু এতে শ্রমজীবী মানুষের যে লোকসান হলো, তাদের বেতন বাড়ালেন না কেন?’

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও শ্রমজীবী মানুষের ভোগান্তির প্রতিবাদে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল আয়োজিত এক মানববন্ধনে নজরুল ইসলাম খান বলেন, সরকারি প্রতিষ্ঠান টিসিবির হিসাবে গত এক বছরে দ্রব্যমূল্য গড়ে ৩৫ শতাংশ বেড়েছে। কিন্তু শ্রমজীবীদের কারও বেতন-ভাতা বাড়েনি।

‘আমরা সাম্প্রদায়িক হামলার নিন্দা জানাই। যাঁরা জড়িত, তাঁদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। কিন্তু রাজনৈতিকভাবে কাউকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে আমরা বাধা দিই।’

দেশ নিয়ে দেশি ও আন্তর্জাতিক যড়যন্ত্র চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যেখানে বিএনপির একটা ছোট কর্মসূচিতে এত পুলিশ থাকে, আর কুমিল্লার মন্দিরে কেন দুজন আনসার সদস্য রাখা হলো না!

মানববন্ধনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, পেঁয়াজের দাম, মরিচের দাম, চালের দাম, তেলের দাম বাড়লে এই সরকারের কী যায় আসে? বাংলাদেশের নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষ বাঁচল না মরল, তাতে তো তাদের কিছু যায় আসে না।

আরও পড়ুন:


পাগলীর জন্ম নেওয়া সন্তানের পিতা এমপি বদি

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে পাকিস্তান

শোয়েব মালিককে ‘দুলাভাই’ ‘দুলাভাই’ বলে ডাকল ভারতীয় দর্শকরা (ভিডিও)

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সয়াবিন তেলের দাম একলাফে সাত টাকা বেড়েছে। পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে একলাফে তেলের দাম সাত টাকা বৃদ্ধি অসম্ভব ব্যাপার। কিন্তু এ দেশে সম্ভব। কে এর প্রতিবাদ করবে? প্রতিবাদ করলে তো আপনাকে যেতে হবে শ্রীঘরে অথবা লালঘরে। এটাই হলো বাস্তব অবস্থা।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

১৮১ ইউপিতে লড়াইয়েই ছিলো না নৌকা

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৮১ ইউপিতে লড়াইয়েই ছিলো না নৌকা

তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার পাঁকা ইউপিতে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী জামানত হারিয়েছেন। তিনি ভোট পেয়েছেন ১২৮১। এই ইউপিতে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। তিনি পেয়েছেন ৫ হাজার ৬৩০ ভোট।

এই অবস্থা শুধু নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার পাঁকা ইউপিতে নয়। তৃতীয় ধাপের ভোটে ১৮১টি ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায়ই ছিলেন না। এমনকি তারা দ্বিতীয় অবস্থানেও ছিলেন না। রবিবার তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৯৭১টি ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলেন। তার মধ্যে ৫২৫টিতে নৌকার প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। আর হেরেছেন ৪৪৬টিতে। এরমধ্যে ১৮১টি ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায়ই ছিলেন না। তারা দ্বিতীয়ও হতে পারেননি।

 এর আগে দ্বিতীয় ধাপের ভোটে ৮৩৩টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ করা হয়। এরমধ্যে ১৩১টি ইউপিতে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিলেন না ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা।

সুনামগঞ্জের ১৭টি ইউপিতে ভোট হয়। এরমধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ জয় পেয়েছেন মাত্র দুটিতে। বাকি ১৫টিতে হেরেছে আওয়ামী লীগ। তবে ১১টিতে দ্বিতীয় স্থানেও নেই ক্ষমতাসীন দল। চারজন জামানত হারিয়েছেন। তবে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার নয়টির মধ্যে একটিতেও জয় পায়নি আওয়ামী লীগ।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

মানুষের সুচিকিৎসার জন্য আন্দোলন, আজব দেশ: গয়েশ্বর চন্দ্র

অনলাইন ডেস্ক

মানুষের সুচিকিৎসার জন্য আন্দোলন, আজব দেশ: গয়েশ্বর চন্দ্র

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

‘ক্ষমা চাওয়ার জন্য খালেদা জিয়ার জন্ম হয়নি’ মন্তব্য করে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, তাকে (খালেদা জিয়া) সুচিকিৎসা দেওয়া রাষ্ট্রের দায়িত্ব। সুচিকিৎসা যে দেশে হয় তাকে সে দেশেই পাঠান। আর যদি ওনার অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো কিছু ঘটে তাহলে এক মুহূর্তও এই সরকার ক্ষমতায় থাকতে পারবে না।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) বিকেলে খুলনা মহানগরীর কেডি ঘোষ রোড়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত বিভাগীয় সমাবেশে গয়েশ্বর বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে ঠাট্টা করার দুঃসাহস দেখাবেন না।

তিনি মন্তব্য করেন, আমরা এমন আজব দেশে বাস করি যেখানে মানুষের সুচিকিৎসার জন্য আন্দোলন করতে হয়। বিনা চিকিৎসায় খালেদা জিয়ার মৃত্যু হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশে এক ঘণ্টাও টিকতে পারবেন না।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনাদের এখন আর রুটিন কর্মসূচি নেই। যতক্ষণ পর্যন্ত খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যবস্থা না করবে ততক্ষণ পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

অনুষ্ঠানে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই চন্দ্র রায় বলেন, সরকারের অযোগ্য মন্ত্রীরা সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিয়ে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ করছে। কারণ তারা খালেদা জিয়াকে তিলে তিলে মেরে ফেলতে চায়। তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

আরও পড়ুন: 


জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম না ফেরার দেশে


news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ঢাবির শতবর্ষ অনুষ্ঠান বর্জন করলেন নুর

অনলাইন ডেস্ক

ঢাবির শতবর্ষ অনুষ্ঠান বর্জন করলেন নুর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি উৎসবের অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন নুরুল হক নুর। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের উদ্যোগ না নেওয়ায় উৎসবের অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা দেন নুর।

আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ ঘোষণা দেন ডাকসুর সর্বশেষ ভিপি নুরুল হক নুর।

বিজ্ঞপ্তিতে নুরুল হক নুর বলেন, শতবর্ষের অনুষ্ঠানে যেখানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দায়িত্ব ছিল শিক্ষার্থীদের নির্বাচিত প্রতিনিধিসহ দলমত নির্বিশেষে ঢাবির দেশবরেণ্য কীর্তিমান সাবেক শিক্ষার্থীদেরকে একত্রিত করা, বিশ্ববিদ্যালয় সেখানে শতবর্ষের অনুষ্ঠানকে একটি সরকার দলীয় অনুষ্ঠানে পরিণত করেছে। তাই সর্বশেষ নির্বাচিত ছাত্র প্রতিনিধি (ভিপি) হিসেবে আমি উক্ত অনুষ্ঠান বর্জন করছি।

বিজ্ঞপ্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়কে প্রশাসনকে দলনিরপেক্ষ ভাবমূর্তি ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ধারণ করে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা ও দ্রুত সময়ের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানান নুর। 

নুরুল হক নুর বলেন, আগামীকাল ১ ডিসেম্বর দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য ও গৌরবের সাথে জড়িত স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে। এটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থী-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী তথা দেশের মানুষের কাছে অত্যন্ত আনন্দের সংবাদ।

আরও পড়ুন:

পৃথিবীর নতুন প্রজাতন্ত্র হিসেবে পরিচিতি পেলো বার্বাডোজ

তানজানিয়ায় বিষাক্ত কচ্ছপের মাংস খেয়ে ৭ জনের মৃত্যু

বাংলাদেশ সৃষ্টির সূচনালগ্ন থেকে এ জাতির ক্রান্তিলগ্নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জাতিকে পথ দেখিয়েছে। শিক্ষা, রাজনীতি, অর্থনীতি, প্রশাসন দেশের প্রতিটি পরতে পরতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনবদ্য অবদান রয়েছে। তাই বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে গর্ব এই দেশের সকল মানুষের।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

খালেদা জিয়ার অবস্থা নিয়ে দেশের মানুষের মাথাব্যথা নেই : প্রতিমন্ত্রী খালিদ

অনলাইন ডেস্ক


খালেদা জিয়ার অবস্থা নিয়ে দেশের মানুষের মাথাব্যথা নেই : প্রতিমন্ত্রী খালিদ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অবস্থা নিয়ে দেশের মানুষের কোনো মাথাব্যথা নেই  বলে মন্তব্য করেছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। 

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া একটি অভিশপ্ত নাম। খালেদা জিয়া বাংলাদেশের কোথায় কীভাবে আছে তা নিয়ে বাংলার ষোলো কোটি মানুষের কোনো মাথাব্যথার কারণ নাই। 

ভোলার চরফ্যাশন বজ্রগোপাল টাউন হলে আজ মঙ্গলবার বেলা ২টায় চরফ্যাশন উপজেলা পরিষদের আয়োজনে সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। সুধী সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন আখন। 

এসময় তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার সন্তান আরাফাত রহমান কোকো মানি লন্ডারিং মামলায় একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি হয়ে, মাদকাসক্ত হয়ে অস্বাভাবিক মৃত্যুবরণ করেছেন। আরেক সন্তান ওই কুলাঙ্গার তারেক লন্ডনে বসে সাজাপ্রাপ্ত আসামি, তিনি আজকে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন। সেই সময় বেগম খালেদা জিয়া চিকিৎসায় আছে কি নাই বাংলাদেশের মানুষ এটা ভাবতে চায় না। কারণ বাংলাদেশে বেগম খালেদা জিয়া একটা অভিশপ্ত নাম। বেগম খালেদা জিয়া বাংলাদেশের পেছনে অন্ধকারের নাম। এই জিয়া পরিবার একটি খুনি পরিবার। 

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনায়েত উল্লাহ

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: ৬ হামলাকারী শনাক্ত


অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ভিপি ও পৌর মেয়র মোরশেদ, প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবুল হাসেম মহাজন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মনির আহমেদ শুভ্র প্রমুখ। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

ঢাকা উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতিকে অব্যাহতি

অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতিকে অব্যাহতি

ঢাকা মহানগর উত্তর শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম হোসেনকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, মো. ইব্রাহিম হোসেনকে ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হলো।

এছাড়া পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সজীব আহমেদ উক্ত পদে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বলেও জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

তবে কি কারণে ইব্রাহিমকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে সে ব্যাপারে কোনো স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি। এদিকে, সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ এবং এর সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলোর এক যৌথসভা শেষে দায়িত্বশীল নেতাদের এ নির্দেশনার কথা জানান দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর