জাকারবার্গের 'মেটাভার্স' পরিকল্পনার নেপথ্যের কারণ
জাকারবার্গের 'মেটাভার্স' পরিকল্পনার নেপথ্যের কারণ

জাকারবার্গের 'মেটাভার্স' পরিকল্পনার নেপথ্যের কারণ

অনলাইন ডেস্ক

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মূল প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তন করে 'মেটা' রাখার ঘোষণা দিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গ। বৃহস্পতিবার রাতে এক ভার্চুয়াল সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন তিনি। খবর বিবিসির।

এই নামবদল কী পরিকল্পনা থেকে করা হয়েছে সে সম্পর্কেও বলেছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির সেবাগুলো ‘মেটাভার্স’ নামের ভার্চুয়াল জগতে রূপান্তরের পরিকল্পনা থেকেই নামটি গ্রহণ করা হয়।  

এছাড়া নতুন ১০ হাজার কর্মী নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি, যাদের মূল কাজ হবে মেটাভার্স তৈরি।

মেটার অধীনে ফেসবুকের সব সেবা অর্থাৎ হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জার, ইনস্টাগ্রাম, অকুলাস ইত্যাদি আগের মতোই পরিচালিত হবে। ধীরে ধীরে এই সেবাগুলো মেটাভার্সের ভার্চুয়াল জগতে যুক্ত হবে।

জাকারবার্গ বলেন, নতুন নামটি তাদের মেটাভার্স তৈরির লক্ষ্যের প্রতিফলন, জনপ্রিয় মূল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সেবার নয়। এখন আমাদের ব্র্যান্ড কেবল একটি পণ্যের সঙ্গে এমনভাবে সম্পৃক্ত যে তা হয়তো আমরা এখন যা করছি, তার পুরোটাই উপস্থাপন করতে পারছে না, ভবিষ্যতের কথা বাদই দিলাম। ’

এছাড়া গ্রিক শব্দ ‘মেটা’র ইংরেজি অর্থ ‘বিয়ন্ড’, যার সঙ্গে তাদের লক্ষ্যও মিলে যায় বলেও জানিয়েছেন মার্ক জাকারবার্গ।  

তবে সবচেয়ে বড় কারণ হলো, ভবিষ্যতে মেটার অন্যান্য সেবার উল্লেখের সময় আর মানুষকে ‘ফেসবুক’ ব্যবহার করতে হবে না। যেমন ইনস্টাগ্রামের মূল প্রতিষ্ঠান এখন ফেসবুক নয়, বরং মেটা।

আরও পড়ুন:

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে চাকরির সুযোগ


news24bd.tv/ নকিব

;