পাঁচদিন কিশোরীকে, তিনদিন তরুনীকে ধর্ষণ পুলিশের ছেলের!

অনলাইন ডেস্ক

পাঁচদিন কিশোরীকে, তিনদিন তরুনীকে ধর্ষণ পুলিশের ছেলের!

সুমন মিয়া (৩৫) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে এক কিশোরী (১৪)  ও এক তরুণীকে(২৬) ধর্ষণের অভিযোগ উঠছে। ধর্ষণের পৃথক দুই ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। থানায় অভিযোগ করার পরও আইনগত ব্যবস্থা না নেওয়ায় আতঙ্কে রয়েছে ভুক্তভোগী দুই পরিবার।

অভিযুক্ত সুমন মিয়া নেত্রকোনার মদন উপজেলার তিয়শ্রী ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা সাহের উদ্দিনের ছেলে।  ধর্ষক স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী পরিবারের সন্তান হওয়াই থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার ৯ দিন পরও এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন ভু্ক্তভোগীরা।

মদন থানার ওসি মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম জানিয়েছেন, এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়নি। ভুক্তভোগী পরিবার চাইলে তাদের সব ধরনের আইনি সহযোগিতা দেওয়া হবে।

সূত্রে জানা গেছে, দুই সন্তানের জনক সুমন মিয়া। গত ১৭ অক্টোবর উপজেলার এক তরুণীকে বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসে। তাকে ৩ দিন আটকে রেখে ধর্ষণ করে ২১ অক্টোবর কৌশলে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। এ ঘটনায় ওই তরুণী ২৬ অক্টোবর সুমন মিয়ার বিরুদ্ধে মদন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে ওই তরুণীকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়ে ওই দিনই (২১ অক্টোবর) অপর এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে বাড়ি নিয়ে ধর্ষণ করে সুমন। ওই ছাত্রীর বাবা ২২ অক্টোবর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর স্থানীয় মাতবররা কয়েক দফা সালিশ বৈঠক করেন। পরে ২৫ অক্টোবর অভিযুক্ত সুমন মিয়ার কাছ থেকে ওই স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে নিজ পরিবারের জিম্মায় দিয়ে দেন স্থানীয়রা।

ভুক্তভোগী তরুণী গণমাধ্যমকে বলেন, বিয়ের আশ্বাস দিয়ে সুমন আমাকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। তিন দিন তার বাড়িতে আটকে রেখে আমাকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দিয়েছি। 

আরও পড়ুন:


নিউজিল্যান্ডকে মেরে তক্তা বানাতে চেয়েছিল ভারত: শোয়েব

প্রধানমন্ত্রীর জলবায়ু সম্মেলনে যাওয়া স্ববিরোধী: রিজভী

ভারতের সেমিফাইনালে ওঠা হবে অলৌকিক: আফ্রিদি

প্রায় ১২ ওভার কোন বাউন্ডারি ছিল না ভারতের!


 

অপর স্কুলছাত্রীর বাবা অভিযোগ করে বলেন, আমার স্কুলপড়ুয়া মেয়েকে রাতে জোরপূর্বক বাড়ি থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায় সুমন মিয়া। পরদিনই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। আমার মেয়েকে আটকে রেখে ধর্ষণ করেছে সে। থানায় অভিযোগ দেওয়ার ৫ দিন পর স্থানীয় মাতবররা আমার মেয়েকে বাড়িতে দিয়ে যান। লজ্জায় আমরা মুখ দেখাতে পারছি না। 

সুমনের তার বড়ভাই সুজন মিয়া  এই অভিযোগের বিষয়ে বলেন, স্কুলছাত্রীকে মাতবররা তার পরিবারের লোকজনের কাছে ফিরিয়ে দিয়েছেন। অন্য মেয়েটি এখনো আছে। থানায় দেওয়া অভিযোগ দুই মীমাংসা করার জন্য চেষ্টা করছি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

‌‘যুবলীগের সভা’ নিয়ে দ্বন্দ্ব, ১০ জনকে ছুরিকাঘাত

অনলাইন ডেস্ক

‌‘যুবলীগের সভা’ নিয়ে দ্বন্দ্ব, ১০ জনকে ছুরিকাঘাত

ছুরিকাঘাত, প্রতীকী ছবি।

যশোরে জেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা নিয়ে দলীয় প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে ১০জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে পাঁচজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে যশোর শহরের মাইকপট্টি, তসবীর সিনেমা হল ও জজ কোর্ট এলাকায় ছুরিকাঘাতের এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালে ভর্তিরা হলেন- ইসমাঈল হোসেন হ্যাপী (১৯), টিটু হোসেন (২১), খায়রুল ইসলাম (১৮), রাসেল (২০) ও আকিবুল (১৭)।

অন্যরা হলেন- শামীম হোসেন (১৮), রাব্বি (১৮), জয় আহমেদ (১৭), গোষ্ট গোপাল (২০) ও সোহাগ (২১)। তবে এ ব্যাপারে দায়িত্বশীল কোনো নেতৃবৃন্দের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আহতদের সূত্রে জানা গেছে, বর্ধিত সভা উপলক্ষে আসা নেতৃবৃন্দকে যশোর সার্কিট হাউস থেকে শহরের চিত্রা মোড়ে একটি অভিজাত আবাসিক হোটেলে নিয়ে যাওয়ার সময় তারা পেছনে ছিলো। এ সময় অজ্ঞাত একদল দুর্বৃত্ত তাদের ছুরিকাঘাত করে।

ডিবি পুলিশের ওসি রুপণ কুমার সরকার বলেন, ছিনতাইকারী হ্যাপি তার ব্যক্তিগত আক্রোশে দুপুরে শহরের আর এন রোডে শামিমকে ছুরিকাঘাত করে। এরই জের ধরে শামীমের লোকজন জজ কোর্ট মোড়ে টিটু, হ্যাপী, খাইরুলদের ছুরিকাঘাত করে জখম করে। এ ঘটনার সঙ্গে যুবলীগের বর্ধিত সভার কোনো সম্পর্ক নেই। তারা কোনো রাজনৈতিক দলের মতাদর্শের কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: 


পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে


যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আব্দুর রশিদ ছুরিকাঘাতে আহত পাঁচজন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে বলে জানিয়েছেন। খায়রুল ইসলাম নামে একজনার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে

ফখরুল হাসান পলাশ, দিনাজপুর

পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে

নলশীষা নদীর তীরে মরদেহ

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায় জয়পুর ইউনিয়নের নলশীষা নদীর পাড় থেকে আলী হোসেন সৌরভ (২৩) নামে এক যুবকের পায়ের রগকাটা অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করেছে নবাবগঞ্জ থানা-পুলিশ।

আজ বুধবার (১ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চামুন্ডা গ্রাম সংলগ্ন নলশীষা নদীর তীর থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত সৌরভ ওই এলাকার চামুন্ডাই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে। পেশায় তিনি একজন ব্যবসায়ী।

নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন


রাস্তায় নেমে গাড়ি ভাঙচুর শিক্ষার্থীদের কাজ নয়: প্রধানমন্ত্রী


 

পুলিশ জানান, উপজেলার আফতাবগঞ্জ এলাকা দিয়ে বহমান নলশিষা নদীর তীরে এক যুবকের মরদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পরে ওই স্থান থেকে ওই যুবকের মরদেহটি সুরতহাল শেষে উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার পায়ের রগ কাটা ছিলো। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানানো যাবে।

news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর

৯৯৯ এ ফোন কলে

ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক

ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

প্রতীকী ছবি

‘জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে এক কলারের ফোন কলে মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে আটক করেছে নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানাধীন বন্দর ফাঁড়ির পুলিশ।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে ৯৯৯ নম্বরে একজন কলার জানান, নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানাধীন বন্দর পৌরসভার কাছাকাছি ছদকার বাড়ি এলাকার একটি মাদ্রাসার এক শিক্ষক মাদ্রাসার ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে। 

কলার আরও জানান, তিনি ঘটনাস্থলের কাছাকাছি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী, বর্তমানে এলাকার লোকজন ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ মিলে ভুক্তভোগী দরিদ্র শিশুটির পরিবারকে ডেকে এনে মিমাংসার চেষ্টা করছে। কলার আশঙ্কা করছেন দরিদ্র পরিবারটি ন্যয়বিবচার থেকে বঞ্চিত হতে পারে।

আরও পড়ুন


বাসে আগুন দেয়ার ঘটনায় মামলা, আসামি ৮ শতাধিক

বিদেশে পালাতে চেয়েছিলেন মেয়র আব্বাস


৯৯৯ থেকে তাৎক্ষণিক ভাবে বিষয়টি বন্দর থানায় জানিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। সংবাদ পেয়ে বন্দর থানাধীন বন্দর ফাঁড়ি পুলিশের একটি দল দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়।

পরে বন্দর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর (পরিদর্শক) সঞ্জয় সরকার ৯৯৯ কে ফোনে জানান, তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে ভুক্তভোগী নয় বছর বয়সী শিশুকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন এবং ধর্ষণের অভিযোগে জামিয়া আরাবিয়া দারুল কুরআন মাদ্রাসার শিক্ষক মো. রাকিবুল ইসলাম (২১) কে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন।

এ বিষয়ে বন্দর থানায় নারী ও  শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নিয়ে কটূক্তি

বিদেশে পালাতে চেয়েছিলেন মেয়র আব্বাস

অনলাইন ডেস্ক

বিদেশে পালাতে চেয়েছিলেন মেয়র আব্বাস

র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার মেয়র আব্বাস আলী

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল স্থাপন নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে এরই মধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে মেয়র আব্বাস আলী। তাকের গ্রেপ্তারের পর র‌্যাব জানায় দেশত্যাগের পরিকল্পনা ছিল মেয়র আব্বাসের।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর কাকরাইলের ঈশা খাঁ হোটেলের সামনে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন নিয়ে কটূক্তিমূলক মন্তব্য করার অভিযোগে কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এরপর গত ২৩ নভেম্বর থেকে তিনি আত্মগোপন করেন। আমরা তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান পরিচালনা করি। সর্বশেষ গতকাল আমরা জানতে পারি, তিনি এই হোটেলে অবস্থান করছেন।

তিনি আরও বলেন,  আমাদের কাছে তথ্য ছিল আব্বাস আলী দেশত্যাগের পরিকল্পনা করছেন। তার সঙ্গে আমরা পাসপোর্ট পেয়েছি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে তিনি বিষয়টি স্বীকার করেছেন। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে অডিও ফাঁস হয়েছে, এটা তারই কথা বলে জানিয়েছেন। তবে কতদিন আগে কথাটি বলেছিলেন সে বিষয়ে কিছু বলতে পারেননি।

এর আগে আজ বুধবার সকালে কাকরাইলের ঈশা খাঁ হোটেল থেকে মেয়র আব্বাস আলীকে গ্রেফতার করে র‍্যাব।

আরও পড়ুন


মানুষের আয় কমলেও আয়কর রিটার্ন জমা বেড়েছে

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

পরাজিত প্রার্থীকে কুপিয়ে আহত করলো দুর্বৃত্তরা

অনলাইন ডেস্ক

পরাজিত প্রার্থীকে কুপিয়ে আহত করলো দুর্বৃত্তরা

পরাজিত মেম্বার প্রার্থী কামরুল ফকিরকে (৫০) কুপিয়ে মারাত্মক আহত করেছে দুর্বৃত্তরা।  নড়াইলের কালিয়া উপজেলার চাচুড়ী ইউনিয়নে গতকাল সোমবার রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

হামলার ঘটনাটি ঘটেছে সুমেরুখোলা গ্রামে মহানন্দ বিশ্বাসের চায়ের দোকানের সামনে। আহত কামরুল বর্তমানে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত কামরুল ফকির কালিয়া উপজেলার চাচুড়ি ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের সুমেরুখোলা গ্রামের রসুল ফকিরের ছেলে। ৩য় দফা ইউপি নির্বাচনে ওই ওয়ার্ড থেকে মোরগ প্রতীক নিয়ে মেম্বার পদে নির্বাচন করে টিউবওয়েল প্রতীকের মনিরুল ইসলামের কাছে পরাজিত হন।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আহত কামরুল ইউপি নির্বাচনে হেরে গেলে বিজয়ী প্রার্থী মনিরুল ইসলামের দুই সমর্থকের সঙ্গে গতকাল সোমবার বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পরেন।

এ ঘটনার জের ধরে বিজয়ী মেম্বর মনিরুল ইসলামের সমর্থকরা রাত ৯টার দিকে সুমেরুখোলা গ্রামে মহানন্দ বিশ্বাসের চায়ের দোকানের সামনে কামরুলকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে নেয়, পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ওই রাতেই তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন:

পৃথিবীর নতুন প্রজাতন্ত্র হিসেবে পরিচিতি পেলো বার্বাডোজ

তানজানিয়ায় বিষাক্ত কচ্ছপের মাংস খেয়ে ৭ জনের মৃত্যু

হাফ ভাড়া কার্যকর করতে মালিক সমিতির শর্তসমূহ

কালিয়া থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মো. আব্দুল গফুর জানান, এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। তবে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর