ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি খুলেছে, প্রাণে প্রাণ মিলেছে

অনলাইন ডেস্ক

ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি খুলেছে, প্রাণে প্রাণ মিলেছে

ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি খুলেছে, প্রাণে প্রাণ মিলেছে। করোনার কারণে দীর্ঘ আঠারো মাস বন্ধ থাকার পর ১ নভেম্বর সোমবার সাভারের আশুলিয়ায় সবুজে ঘেরা ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাসে যেন আনন্দের বান ডেকেছিল। করোনা-সতর্কতা মেনে সকাল নয়টা বাজার আগেই শত শত শিক্ষার্থীর পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে মায়াবী ক্যাম্পাস। বহুদিন পর প্রিয় বন্ধুকে কাছে পেয়ে সত্যিই যেন নতুন করে প্রাণ ফিরে পেল প্রাণচাঞ্চল্যে ভরপুর নবীন-প্রবীণ শিক্ষার্থীরা।

ক্যাম্পাসে সবার আগে চলে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সহিদ আকতার হুসাইন। ঢাকার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শিক্ষার্থীবোঝাই বাসগুলো একে একে ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণে প্রবেশ করলে তিনি এগিয়ে গিয়ে শিক্ষার্থীদের হাসিমুখে বরণ করে নেন। উপাচার্য স্যারের অভ্যর্থনা পেয়ে শিক্ষার্থীদের আনন্দ যেন বহুগুণ বেড়ে যায়।

প্রাথমিক কুশল বিনিময়ের পর শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ ক্লাসে উপস্থিত হন। এ সময় উপাচার্য, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, জ্যেষ্ঠ শিক্ষক ও রেজিস্ট্রারসহ ঊর্ধ্বতন কর্তকর্তারা বিভিন্ন ক্লাস পরিদর্শন করেন। ক্লাসে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দিকনির্দেশনামূলক পরামর্শ দেন উপাচার্য।

আরও পড়ুন


বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতি ও জাতীয় চার নেতার কবরে আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা

আওয়ামী লীগের একমাত্র বিপদ ও শত্রু সাম্প্রদায়িকতা: ওবায়দুল কাদের

ফাতির ম্যাজিকে স্বপ্ন বেঁচে রইল বার্সার

পার্লামেন্টে দেয়া ব্রিটিশ এমপির বক্তব্যের কড়া জবাব দিলেন মাওলানা আজহারী


বেলা তিনটার দিকে ক্লাস শেষ হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মাঠে এক অভূতপূর্ব পরিবেশ সৃষ্টি হয়। ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত চেয়ারম্যান ও উপাচার্যের নেতৃত্বে সব বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারা একঝাঁক বেলুন আকাশে উড়িয়ে দেন। তখন ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির গোটা আকাশজুড়ে এক আনন্দময় মুহুর্ত তৈরি হয়। সবাই গাইতে থাকেন - ‘আহা কি আনন্দ আকাশে বাতাসে’।

উপাচার্য ড. সহিদ আকতার হুসাইন বলেন, ‘ইউজিসি ও শিক্ষামন্ত্রণালয়ের যাবতীয় নির্দেশনা মেনেই আমরা বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দিলাম। আমাদের শিক্ষার্থীদের বেশিরভাগই করোনার টিকা নিয়েছে’। এখনো যারা টিকা নেয়নি তাদের অতি দ্রুত টিকা নেয়ার পরামর্শ দিয়ে উপাচার্য বলেন, করোনাকালের যাবতীয় দুঃখ-বেদনাগুলো বেলুনের সাথে উড়ে যাক দূর দেশে। আর যেন কখনোই ফিরে না আসে। তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের সন্তানদের জন্য একটি নিরাপদ পৃথিবী চাই’।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

কেএসআরএমের হুইল চেয়ার পেলো ১০ প্রতিবন্ধী

অনলাইন ডেস্ক

কেএসআরএমের হুইল চেয়ার পেলো ১০ প্রতিবন্ধী

জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবসে কেএসআরএমের হুইল চেয়ার পেলেন ১০ প্রতিবন্ধী।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ‘গ্রামীণ প্রতিবন্ধী উন্নয়ন কেন্দ্র (সিআরডিডি)’ আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়।

টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে হুইল চেয়ার বিতরণ করেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মনছুরুল আলম।  অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন টাঙ্গাইল পৌরসভা মেয়র এসএম সিরাজুল হক আলমগীর। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলী, কেএসআরএমের জিএম কর্নেল (অব.) আশফাকুল ইসলাম, সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. শাহ আলম, কেএসআরএমের এজিএম মো. নাজমুল করিম, টিএসও দেওয়ান সেলিম ও পারভেজ মামুন প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি এইচ ইউসুফজাই তনু।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

পাঠাও বাইকে এখন দেশের সর্বনিম্ন কমিশন রেট

নিজস্ব প্রতিবেদক

পাঠাও বাইকে এখন দেশের সর্বনিম্ন কমিশন রেট

বাংলাদেশের বাইক রাইড শেয়ারিং এ মার্কেট লিডার ‘পাঠাও’ কমিশন ১০ শতাংশে কমিয়ে এনেছে। এই সিদ্ধান্তের ফলে চালকরা ‘ট্রিপ’ এর ভাড়া থেকে সর্বোচ্চ ৯০ শতাংশ আয় করতে পারবেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) থেকে নতুন এই নীতি কার্যকর হচ্ছে। এদিন থেকে পিক আওয়ারে (সকাল ৮টা থেকে সকাল ১১টা এবং বিকেল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত) পাঠাও বাইকে ১০ শতাংশ করে কমিশন নেবে। এছাড়া, অফ-পিক আওয়ারে নেবে সর্বোচ্চ ১৫ শতাংশ কমিশন। এটি বাংলাদেশের সকল রাইড শেয়ারিং প্ল্যাটফর্মের মধ্যে সর্বনিম্ন কমিশন।

এর আগে, পাঠাও বাইকে ঢাকায় ১৫% এবং চট্টগ্রাম ও সিলেটে ২৫% কমিশন প্রযোজ্য ছিলো। নতুন নির্ধারিত এই কমিশন সারাদেশের জন্য প্রযোজ্য হবে।

পাঠাওয়ের এই পদক্ষেপের ফলে যাত্রীদের জন্য পাঠাও বাইক আরো বেশি নির্ভরযোগ্য ও সহজলভ্য হবে। বিশেষ করে পিক আওয়ারে যখন রাইড শেয়ারিং সার্ভিসের চাহিদা তুলনামূলকভাবে অনেক বেড়ে যায় তখন যাত্রীরা আরো সহজে সেবা পাবেন এবং চালকরাও নিজেদের আয় বাড়াতে সক্ষম হবেন।

এ প্রসঙ্গে পাঠাও এর সিইও অ্যান্ড ম্যানেজিং ডিরেক্টর ফাহিম আহমেদ বলেন, “চালকদের আয় বৃদ্ধি এবং তাদের জীবনমানের উন্নয়নে পাঠাও সুযোগ তৈরি করেছে। এরি ফলশ্রুতিতে পাঠাও এর সাথে থাকা বিশাল রাইডার কমিউনিটির ইনকাম আরো বাড়াতে এবং তাদের নিরাপদ ও নির্ভরযোগ্য রাইড শেয়ারিং সেবা প্রদানের স্বীকৃতি স্বরূপ পাঠাও বাইকে কমিশন কমিয়ে আনা হয়েছে।’’

আরও পড়ুন


নির্বাচনে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে সেই মাসুদকে হত্যা করা হয়

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

সাতকানিয়ায় বনফুলের নতুন শাখার উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাতকানিয়ায় বনফুলের নতুন শাখার উদ্বোধন

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় বনফুল এন্ড কোম্পানীর কেরানীহাট শাখার উদ্বোধন করা হয়ে। শাখাটির উদ্বোধন করেন, বনফুল ও কিষোয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান এম.এ মোতালেব।

শনিবার (১৩ নভেম্বর) বিকালে সাতকানিয়ায় বনফুল এন্ড কোম্পানীর (পরিবেশক-শাহ জাব্বারিয়া ফুডস) কেরানীহাট শাখার উদ্বোধন করেন তিনি।

এসময় তিনি বলেন, বনফুল প্রতিষ্ঠার পর থেকে খাবারের গুনগত মান নিয়ে কোন আপোষ করেনি। সবসময় গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী খাবার পরিবেশন করে আস্থা অর্জনের পাশাপাশি দেশ-বিদেশে সুনাম কুড়িয়েছেন। যতদিন এ কোম্পানী থাকবে ততদিন গ্রাহকের ভালবাসা পাথেয় হয়ে থাকবে।

বনফুল এন্ড কোম্পানী জি.এম আমানুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, সাতকানিয়া পৌরসভার মেয়র মো. জোবায়ের, সাতকানিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন, বনফুল এন্ড কোম্পানীর এম.ডি ওয়াহিদুল ইসলাম, এ.জি.এম. আলাউদ্দীন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের অর্থ সম্পাদক মো. সেলিম।

দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পুরানগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আ.ফ.ম মাহবুবুল হক সিকদার, কেঁওচিয়া ইউ.পি চেয়ারম্যান মনির আহমদ, নলুয়া ইউ.পি চেয়ারম্যান তসলিমা আকতার, শিল্পপতি আলহাজ নেজাম উদ্দীন, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা এড. শাহারিয়ার, উত্তর সাতকানিয়া স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এরফানুর রহমান সুমন, সাধারণ সম্পাদক আবু ছালেহ শান, কেরানীহাট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ফেরদৌস আলম, কেঁওচিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সামশুল ইসলাম, রিয়াজউদ্দীন বাজার বণিক সমিতির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুক আজম, আওয়ামী লীগ নেতা মো. ইসলাম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. আবছার উদ্দীন, শাহ জাব্বারিয়া ফুডসের স্বত্তাধিকারী ফরিদুল ইসলাম, ওয়াহিদুল ইসলাম জাবেদ, লিয়াকত আলী রোকন, ছাত্রলীগ নেতা জমির উদ্দীন, কামরুল হাসান ছুট্টু, ওয়াজেদ আলী ছোটন, মো. মিজান, আবু ইউসুফ মানিক, মো. শিপু, মো. শরিফুল ইসলাম, মো. মিশকাত, মো. বেলাল, হারুনুর রশিদ, প্রীতম দাশগুপ্ত, শোয়াইব আহমদ আনছারী, মো. ফারুক, মো. সাকিব, মো. ফয়সাল ও মো. রাকিব প্রমুখ।

আরও পড়ুন


আবারো হাসপাতালে খালেদা জিয়া

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

তাসের এক ‘রাজা’র গোঁফ নেই কেন?

অনলাইন ডেস্ক

তাসের এক ‘রাজা’র গোঁফ নেই কেন?

বিশ্বব্যাপী জনিপ্রয় একটি খেলা হলো তাস। তাসের ৫২টি কার্ডের মধ্যে চারটি রাজা। এ আর নতুন কি! ‘কিং অব স্পেডস’, ‘কিং অব ক্লাবস’ ‘কিং অব ডায়মন্ডস’ এবং ‘কিং অব হার্টস’। শোনা যায় তাসের ঘরের এই চার রাজার প্রতীক  প্রাচীনকালের চার মহান রাজাকেই প্রতিনিধিত্ব করে। কিন্তু কখনও খেয়াল করে দেখেছেন কি? এরমধ্যে একটি রাজারই কেবল গোঁফ নেই! খবর আনন্দবাজার।

মনে করা হয়, কিং অব স্পেডস-এর ছবিটি ইসরায়েলের রাজা ডেভিডের। এই রাজার অন্যতম গুণ হলো তিনি কখনোই আবেগের বশবর্তী না হয়ে বুদ্ধি বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নিতেন। কিং অব ক্লাবস-এর ছবিটিকে মনে করা হয়, ম্যাসিডোনিয়ার রাজা সিকান্দার দ্য গ্রেটের। কিং অব ডায়মন্ডস কার্ডে যে রাজার ছবি রয়েছে, মনে করা হয় তিনি রোম সম্রাট অগাস্টাস সিজার এবং কিং অব হার্টস-এ যে ছবি রয়েছে, তিনি ৮০০ খ্রিস্টাব্দে ইউরোপের অর্ধেক জয় করে ফেলা বিখ্যাত রাজা শার্লেমেন।

ডায়মন্ড, হার্ট, স্পেড এবং ক্লাব তাসে এই চার ধরনের প্রতীক সর্বপ্রথম ব্যবহার শুরু হয় ষোড়শ শতকে। এক ফরাসি ব্যক্তি এই প্রতীক ব্যবহার করেন। অষ্টাদশ শতকের শেষে তাসের কার্ডের পুনর্নকশা করা হয়। তখন কিং অব হার্টস-এর ছবিতে গোঁফ বাদ দেওয়া হয়।

দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন অনুযায়ী, তাসের ৫২টি কার্ডের যখন নকশা করা হচ্ছিল, তখন ভুলবশত কিং অব হার্টস-এর ছবিতে রাজার গোঁফ দিতে ভুলে গিয়েছিলেন শিল্পী। তার পর থেকে কিং অব হার্টস-এর ছবিতে রাজা গোঁফ ছাড়াই রয়ে গেছেন। সেটার পরিবর্তন করা হয়নি। তবে ছবি বদল না করার পেছনেও নাকি একটি কাহিনী আছে।

আরও পড়ুন

প্রায় দুই মাস ধরে লা পালমা দ্বীপের অগ্নুৎপাত চলছে

আরবী পড়তে গিয়ে যৌন নিপীড়নের শিকার শিশু!

সম্পূর্ণ নতুন আলোয় সৌদির পর্যটন স্থান দেখার সুযোগ

স্বল্প খরচে ৪০ হাজার কর্মী নেবে রোমানিয়া


 

ফ্যাঙ্কদের রাজা শার্লেমেন নাকি দেখতে খুব সুন্দর ছিলেন। নিজের রূপের আলাদা পরিচিতির জন্য তিনি নাকি গোঁফ কেটে ফেলেছিলেন। ঘটনাচক্রে, সম্রাট শার্লেমেনকে ‘কিং অব হার্টস’-এর ছবি উৎসর্গ করেই নাকি শিল্পী সেই ছবিতে পরে আর গোঁফ লাগাননি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে গোলাম রাব্বানীর ৭৫টি সেলাই মেশিন বিতরণ

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে গোলাম রাব্বানীর ৭৫টি সেলাই মেশিন বিতরণ

বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে ৭৫টি সেলাই মেশিন বিতরণ করেছেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর হাতিরপুলে ৭৫জন অসহায় মানুষকে নিজ উদ্যোগে এসব সেলাই মেশিন বিতরণ করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে দুস্থ ও অসহায় মানুষের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণের আয়োজন বলে জানান তিনি। এসময় সেলাই মেশিন নিতে আসা অসহায় মানুষরা তার এই উদ্যোগের প্রশংসা করেন। কান্নায় ভেঙে পড়ে এক অসহায় মা গোলাম রাব্বানীকে জড়িয়ে ধরে দোয়া করেন। বলেন, এমন আরো মানুষকে সাহায্যের সুযোগ করে দিক আল্লাহ।

আরও পড়ুন


প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আইইউবিতে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচী

বিমানবালার ভাইরাল সেই নাচ দেখা হল ৬ কোটি বার! (ভিডিও)

আবারও কুয়াকাটা সৈকতে মৃত ডলফিন

শিক্ষর্থীদের চুল কেটে দেওয়া সেই শিক্ষিকার পদত্যাগ, তদন্ত কমিটি গঠন


ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবতার জননী। তার জন্মদিনে মানবতাকে এগিয়ে দিতে এই উদ্যোগ। অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করলে তা একটি দিনের জন্য হতো। অসহায় এসব মানুষ  একদিনের জন্য হাসতো। কিন্তু, এই একটি সেলাই মেশিন অসহায় এসব মানুষের দীর্ঘ দিনের কাজের ব্যবস্থা করে দেবে। তারা কিছু একটা করতে পারবে।

সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানে ব্যতিক্রমী এই সেবামূলক উপহার পেয়ে সবাই প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর