সংস্কৃত না জানাদের সংস্কৃত বিভাগে আবেদন, নিয়োগ দিতে পারলো না ঢাবি
সংস্কৃত না জানাদের সংস্কৃত বিভাগে আবেদন, নিয়োগ দিতে পারলো না ঢাবি

সংস্কৃত না জানাদের সংস্কৃত বিভাগে আবেদন, নিয়োগ দিতে পারলো না ঢাবি

অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃত বিভাগের প্রভাষক পদে নিয়োগ পেতে গত অক্টোবরে ১৬ জন নিয়োগপ্রাপ্তি আবেদন করেন। একাডেমিক ফলাফলের দিক থেকেও সবার ফলাফলই সন্তোষজনক। এই ১৬ জনের মধ্যে আবার কেউ কেউ অর্নাস ও মাস্টার্সে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম।

তবে এতো ভালো ফলাফল বা প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হলেও শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষায় ফলাফল শূন্য।

কারণ তাদের কেউই ভাইভা বোর্ডে সন্তোষজনক কিছু দেখাতে পারেননি। তাদেরকে সংস্কৃত লিখতে ও পড়তে বলা হলে কেউই তা সঠিকভাবে করতে পারেননি। এমনকি অক্ষর চিনতেও সময় ক্ষেপণ করেছেন। এই অবস্থায় হতাশ হয়ে কাউকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করেননি সুপারিশ বোর্ড।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ বলেন, বিভাগগুলো তাদের নিজেস্ব পড়াশোনা করায় না। আর এই জন্যই কোন ভালো পণ্ডিত বা অনুবাদক গড়ে উঠেনি। যার কারণে এই নিয়োগ পরীক্ষাতে সংস্কৃত ভাষা বলতে ও লিখতে পারেনি কোন আবেদনকারী। এটা একটা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য দুঃখের বিষয় ও আমাদের জন্য লজ্জার বিষয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধাপক ড. আব্দুস সালাম জানান, শুধু সংস্কৃত বিভাগ নয়, ভাষাভিত্তিক বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা নিজ ভাষায় কেন ন্যূনতম দক্ষতা অর্জন করতে পারছে না, তার কারণ খতিয়ে দেখতে সংশ্লিষ্ট সেলকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
 
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির বলেন, সিন্ডিকেটে বলা হয়েছে সংস্কৃত বিভাগের জন্য কোন যোগ্য প্রার্থী পাওয়া যায়নি। সবাই প্রশ্ন তোলে এদের মধ্যে কেউই কি নিয়োগের যোগ্য ছিল না। তখন বোর্ডের সভাপতি অধ্যাপক মাকসুদ কামাল বলেন, সংস্কৃত বিভাগের এই যে ভাইভায় ১৬ জনের মধ্যে অংশগ্রহণকারী ১৪ জনের কেউই সংস্কৃত ভাষায় কথা বলতে পারছে না, অনুবাদ করতে পারছে না এ কারণে কাউকে শিক্ষক হিসেবে নেওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন


মন্ট্রিয়লের সিটি নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীদের বিজয়ী করার আহ্বান

news24bd.tv এসএম