প্রাণীটি আসলে শেয়াল
প্রাণীটি আসলে শেয়াল

প্রাণীটি আসলে শেয়াল

Other

শখ করে দোকান থেকে কিনে আনা হয়েছিল ছোট্ট কুকুরছানা। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই  প্রতিবেশীদের একের পর এক ক্ষতির ঘটনায় খোঁজ নিয়ে দেখা গেল, প্রাণীটি আসলে একটি শিয়াল। আর এমনই এক ঘটনা ঘটেছে পেরুর রাজধানী লিমায়।

রাজধানীর একটি পোষা প্রাণীর দোকান থেকে যখন মারিবেল সোটেলো কুকুরছানাটি এনেছিলেন, ঘুণাক্ষরেও টের পেয়েছিলেন না যে স্বেচ্ছায় মুরগির খামারে শেয়াল ঢুকাচ্ছেন তিনি।

ছোটবেলায় এলাকার অন্য কুকুরের সাথে আনন্দের সাথেই খেলা করতো “রান রান” নামের পোষা প্রাণীটি। কিন্তু ধীরে ধীরে যখন সে বড় হয়ে উঠলো, তখনই শুরু করলো প্রতিবেশীদের পোষা প্রাণীদের উপর আক্রমণ।

মারিবেল সোটেলো জানান, কেনার সময় সে দেখতে অনেকটা নেকড়ের মতো ছিল। তাই তারা প্রথমে ওকে হাইব্রিড ভেবেছিলো। প্রায় সাড়ে ১২ ডলার দিয়ে ওকে ক্রয় করা হয়।

এক মাস আগে এক নারী এসে জানান, তার কুকুরটি ওই নারীর তিনটি গিনিপিগ খেয়ে ফেলেছে। আর মাত্র দু-তিনদিন আগেই এক স্থানীয় বৃদ্ধা জানালেন, তার গিনিপিগকে মেরে ফেলেছে সে।

আরও পড়ুন:


ট্রাক-কাভার্ডভ্যানের ধর্মঘটের ব্যাপারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ব্যবস্থা নেবেন: কাদের

১০ ও ১২ নভেম্বর বিক্ষোভের ডাক বিএনপির

গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, ৩ স্কুলছাত্র নিহত

আ. লীগ নেতার পকেটে বোমা বিস্ফোরণে উড়ে গেল হাত


 

কয়েকদিন আগেই নিজের মালিকের বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় রান রান। তাকে বিশেষ চিড়িয়াখানায় নেওয়ার জন্য খোঁজ চালাচ্ছে পরিবেশ পুলিশ এবং রাজ্য জাতীয় বন ও বন্যপ্রাণী পরিষেবার কর্মকর্তারা।

সাধারণত দক্ষিণ কলম্বিয়া, ইকুয়েডর, চিলি, বলিভিয়া এবং আর্জেন্টিনা বসবাস করে রান রানের মতো অ্যান্ডিয়ান শিয়ালগুলো।

news24bd.tv/ তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর