পুকুর পাড়ে নিয়ে দুই বান্ধবীকে গভীর রাত পর্যন্ত ধর্ষণ, পালাতক ধর্ষক
পুকুর পাড়ে নিয়ে দুই বান্ধবীকে গভীর রাত পর্যন্ত ধর্ষণ, পালাতক ধর্ষক

পুকুর পাড়ে নিয়ে দুই বান্ধবীকে গভীর রাত পর্যন্ত ধর্ষণ, পালাতক ধর্ষক

অনলাইন ডেস্ক

চুয়াডাঙ্গায় ৭ম শ্রেণী পড়ুয়া মাদ্রাসার ছাত্রী দুই বান্ধবী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। ধর্ষক আশিক ও নিশান চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা থানার ওসমানপুর এলাকার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্র। ঘটনার পর থেকে তারা পালাতক রয়েছে।  

জানা গেছে, রোববার (৭ নভেম্বর) রাতে অভিযুক্ত নিশান (১৫) তার প্রেমিকাকে মোবাইলে ফোনে কল করে ধর্ষণের শিকার অন্য বান্ধবীকে সাথে নিয়ে বাড়ির বাইরে আসতে বলে।

দুই বান্ধবী বাড়ির বাইরে আসলে নিশান মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে ওসমানপুর-হারদি গ্রামের কানাপুকুর পাড়ের মাঠে নিয়ে যায়। সেখানে আগে থেকে অবস্থান করছিল আরেকজন। দুই বন্ধু আশিক ও নিশান দুই বান্ধবীকে বিয়ের মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে গভীর রাত পর্যন্ত বেশ কয়েক বার ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষে গভীর রাতে নিশান দুই বান্ধবীকে মোটরসাইকেল যোগে তাদের বাড়ির সামনে নামিয়ে দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।  

বিষয়টি দুই মাদ্রাসা ছাত্রী তাদের পরিবারকে জানায়। এ ঘটনায় গতকাল সোমবার রাতে আলমডাঙ্গা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার দুই বান্ধবী স্থানীয় একটি মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী। দুই বান্ধবীর মধ্যে একজনের সাথে পার্শ্ববর্তী ওসমানপুর গ্রামের ইয়াকিন আলির ছেলে  আশিক ও একই গ্রামের আনারুল ইসলামের ছেলে নিশানের সাথে অন্য জনের ৪ মাস আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

 আরও পড়ুন:

প্রাণহানি থামছেই না; এ পর্যন্ত নিহত ২৭


এদিকে ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পালাতক রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।    

এ ব্যাপারে আলমডাঙ্গা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, দুই মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগের বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দুই মাদ্রাসা ছাত্রী বর্তমানে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। অভিযুক্তদের আটকে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

news24bd.tv রিমু 

 

;