জনগণের অর্থে কেন সীমান্তরক্ষী বাহিনী পুষছি, প্রশ্ন মান্নার

অনলাইন ডেস্ক

জনগণের অর্থে কেন সীমান্তরক্ষী বাহিনী পুষছি, প্রশ্ন মান্নার

বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের কাছে জনগণের কল্যাণের জন্য কোনো দাবি জানানো অর্থহীন বলে মন্তব্য করে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, বোধগম্য কারণেই জ্বালানি তেলের মূল্য কিংবা বাস ভাড়া কমানোর দাবি আমরা করছি না। দেশবাসীর কাছে আমরা বলতে চাই, এমন সরকার ক্ষমতায় থাকলে পরিস্থিতি আরও ভয়ংকর পর্যায়ে চলে যাবে।

‌‘এমন লুটেরা একটি সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামানোর শপথ এবং চেষ্টা করাই হোক আমাদের যাবতীয় ক্ষোভের সবচেয়ে কার্যকর বহিঃপ্রকাশ।’

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মান্না বলেন, করোনার ভয়ংকর সংকটে দীর্ঘকাল কাটিয়েছে এ দেশের মানুষ। এ চরম সংকটের মানুষ সরকারকে তার পাশে পায়নি। করোনার সংকট শেষ হয়েছে তা বলা যায় না। কিন্তু এ মুহূর্তে কিছুটা সহনশীল পরিবেশ থাকার কারণে চরম সংকটাপন্ন মানুষ তার নিজের মতো করে আবার বেঁচে থাকার চেষ্টা শুরু করেছিল। কিন্তু সেটার পথেও বিরাট বাধা তৈরি করলো সরকার, জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে। হ্যাঁ, ‘এটা ভাত দেবার মুরোদ নেই, কিল মারার গোঁসাই সরকার’।

নাগরিক ঐক্য আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, কিছু লুটেরা ব্যবসায়ী সরকারের যোগসাজশে সবসময় জনগণের পকেট কেটেছে।

‘ভোজ্যতেলের মতো পণ্যের মূল্য আন্তর্জাতিক বাজারে বৃদ্ধি পেয়েছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে মুহূর্তেই দাম বাড়িয়ে দেওয়া হয়। যদিও নতুন মূল্যের পণ্য বাংলাদেশে আমদানি করে বাজারজাত হতে দুই মাসের বেশি সময় লাগে। আবার সেই পণ্যের দাম যখন কমে যায়, তখন কমানো হয় না সেই দাম কিংবা খুব সামান্যই সমন্বয় করা হয়। এ দেশের সেসব লুটেরা ব্যবসায়ীদের মতো আচরণ করছে সরকার। বিশ্ববাজারে মূল্যবৃদ্ধির অজুহাতে মুহূর্তেই দাম বাড়িয়েছে, কিন্তু যখন মূল্য কম থাকে বছরের পর বছর, তখন তার সমন্বয় করা হয় না।’

আরও পড়ুন


স্বল্প খরচে ৪০ হাজার কর্মী নেবে রোমানিয়া

সেদিন আমার কাছে আসলে ২ বাচ্চার মার কাছে ধরা খেতে হতো না: সুবাহ

কিশোরীকে বিয়ে করতে ব্যর্থ জোরপূর্বক ধর্ষণ

গোসলের ভিডিও ধারণ, ব্ল্যাকমেইল করে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ


 

সরকারের মন্ত্রীরা উদ্ভট কথা বলছেন মন্তব্য করে মান্না বলেন, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির জন্য আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্যবৃদ্ধি, এ কারণে ভারতে জ্বালানি তেল পাচার হবে এই অজুহাত দেওয়া হচ্ছে। সরকারের মতে, সেখানকার দাম আমাদের চাইতে বেশি, তাই এটা হবে। জ্বালানির মত একটি তরল বস্তু অন্য দেশে পাচার হতে পারে এরকম উদ্ভট কথা মন্ত্রীরা বলছেন। তর্কের খাতিরে তাদের কথা সঠিক বলে যদি ধরেও নেই তবুও জরুরি প্রশ্ন হচ্ছে— কেন তাহলে আমরা জনগণের অর্থ খরচ করে একটি সীমান্তরক্ষী বাহিনী, বিজিবি কেন পুষছি?

‘বাংলাদেশের সব সময় যা হয়, হয়েছে সেটাই। যে পরিমাণ ভাড়া বৃদ্ধির ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল, ভাড়া বেড়ে গেছে তার চাইতে অনেক বেশি। ঢাকা শহরের ভেতরে এবং আন্তঃজেলা পরিবহন গুলোতে ভাড়া বৃদ্ধির হার ৫০ থেকে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত হয়েছে। এ ভাড়া বৃদ্ধির মাধ্যমে সরকার জনগণের ওপরে প্রচণ্ড আর্থিক চাপ তৈরি করেছে। সরকার কিংবা মালিক সংগঠন কেউ তার কথা রাখেনি, এ সরকার এবং সংগঠনগুলোর চরিত্র এবং অতীত কর্মকাণ্ড দেখে জনগণ অবশ্য জানে, এদের কথা ভাবার কথা না। জ্বালানির দাম বৃদ্ধির ক্ষেত্রে ভারতের তুলনা দেওয়া হলেও দেখা যায় ভারতে ডিজেলের দাম বাংলাদেশের চেয়ে বেশি। কিন্তু সেখানে পরিবহনের খরচ বাংলাদেশের তুলনায় অনেক কম।’

বাজার ব্যবস্থা নিশ্চিতের কথা জানিয়ে মান্না বলেন, টিসিবির ২০২০ সালের ১ মার্চ ও গত বৃহস্পতিবারের বাজার দরের তালিকা পর্যালোচনা করে দেখা যায়, সে সময়ের তুলনায় এখন মোটা চালের গড় দাম সাড়ে ৩১ শতাংশ, খোলা আটার ২০ শতাংশ, খোলা ময়দার ৩০ শতাংশ, এক লিটারের সয়াবিন তেলের বোতল ৪৩ শতাংশ, চিনি ১৬ শতাংশ, মোটা দানার মসুর ডাল ৩০ শতাংশ ও গুড়ো দুধ ১৩ শতাংশ বেশি। এসব নিয়ন্ত্রণের জন্য সরকার কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। দ্রুত ব্যবস্থার জন্য শুল্ক কমানোর পরামর্শ এসেছিল, কিন্তু করা হয়নি। মজুতদারের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। সুষ্ঠু বাজার ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত কর হয়নি।

news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

রাজশাহী মহানগর আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামাল

অনলাইন ডেস্ক

রাজশাহী মহানগর আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামাল

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মাদ আলী কামাল। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন দলের প্রেসিডিয়াস সদস্য মনোনীত হওয়ায় তার স্থলে মোহাম্মাদ আলী কামালকে দায়িত্বে আনা হয়েছে।

শনিবার (২৭ নভেম্বর) বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়ার সই করা এক চিঠিতে তাকে এ দায়িত্ব দেওয়া হয়।

চিঠিতে বলা হয়, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মাদ আলী কামালকে মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেওয়ায় দলের সভাপতি শেখ হাসিনা এবং কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন মোহাম্মাদ আলী কামাল।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আমি আ.লীগের একজন সমর্থক হিসেবে থাকতে চাই :জাহাঙ্গীর

অনলাইন ডেস্ক

আমি আ.লীগের একজন সমর্থক হিসেবে থাকতে চাই :জাহাঙ্গীর

আমি আওয়ামী লীগের একজন সমর্থক হিসেবে থাকতে চাই বলে জানিয়েছেন গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক ও বরখাস্ত সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। তিনি দাবি করে বলেন, আমি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার।

শুক্রবার রাতে তিনি এসব কথা বলেন।

জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও আমার অভিভাবক যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা আমি মাথা পেতে মেনে নিয়েছি। আমি বিশ্বাস করি বঙ্গবন্ধুকন্যা একদিন আসল সত্যটা জানবেন। তখন তার ভুল ভাঙবে।

তিনি বলেন, আমি জাতির পিতাকে নিয়ে কোনো নেতিবাচক কথা বলিনি। আমার আড়াই-তিন ঘণ্টার কথাকে সুপার এডিট করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ছোটবেলা থেকেই বাবা-মায়ের মুখে জাতির পিতার কথা শুনে এবং স্কুলজীবন থেকে ছাত্ররাজনীতি- অদ্যাবধি জাতির পিতাই আমার আদর্শ। তাঁর আদর্শ নিয়েই রাজনীতি করে এসেছি। কাজেই তাঁকে কটাক্ষ করা আমার দ্বারা সম্ভব নয়। 

আরও পড়ুন:


দ. আফ্রিকার করোনার নতুন ধরন খুবই ভয়ঙ্কর : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

একই ইউপিতে বাবা-ছেলে ও আপন দুই ভাই চেয়ারম্যান প্রার্থী!

বেগম জিয়ার জন্য আলাদা আইন করার সুযোগ নেই: হানিফ


কিন্তু আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ আমার বিভিন্ন বক্তব্যকে সুপার এডিট করে আমাকে ঘায়েল করেছে। সেই সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তা ছড়িয়ে তারাও শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছে। যারা জাতির পিতার নামে এ মিথ্যাচার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দিল তাদেরও শাস্তি চাই। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

চড় মেরে এরপর জোর করে কলা খাইয়ে দিল আ.লীগ নেতা

অনলাইন ডেস্ক

চড় মেরে এরপর জোর করে কলা খাইয়ে দিল আ.লীগ নেতা

এবার ভাইরাল হলো এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মীকে চড় মারার ভিডিও। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী সেই প্রার্থীর কর্মীকে চড় মারেন স্থানীয় উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেন। ভিডিওতে চড় মারার পর ওই কর্মীকে জোর করে কলা খাইয়ে দেওয়ায় দৃশ্যও ধরা পড়ে। এই ভিডিও ভাইরাল হবার পর  নির্বাচনী মাঠে একদিকে যেমন ভীতির সৃষ্টি হয়েছে, অন্যদিকে সাধারণ মানুষের মাঝে হাস্যরসেরও সৃষ্টি হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার বিকালে নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জামনগর ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী) চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মীকে চড় মারেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেন।

শনিবার সকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সিসিটিভির একটি ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ে।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার সকালে জামনগর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী আব্দুল কুদ্দুসের নির্বাচনী প্রচারে যান বাগাতিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেনসহ কয়েকজন। এ সময় জামনগর বাজারে আনারস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা স্বতন্ত্র প্রার্থী কলেজ শিক্ষক শাহ আলমের প্রচার শেষে বাড়ি ফেরার সময় তার কর্মীকে চড়-থাপ্পড় মারেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেন। এ ঘটনাটি ধরা পড়ে ওই বাজারের একটি দোকানে বসানো সিসিটিভি ক্যামেরায়।

আরও পড়ুন:


দ. আফ্রিকার করোনার নতুন ধরন খুবই ভয়ঙ্কর : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

একই ইউপিতে বাবা-ছেলে ও আপন দুই ভাই চেয়ারম্যান প্রার্থী!

বেগম জিয়ার জন্য আলাদা আইন করার সুযোগ নেই: হানিফ


 

এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে বাগাতিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আবুল হোসেন বলেন, নিজের দলের কর্মী হওয়ায় তাকে একটি কলা খাওয়ানো হয়েছে মাত্র। এর বেশি কিছু না। 

প্রসঙ্গত, রোববার তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে নাটোরের বাগাতিপাড়ার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এখনও পাসপোর্ট হাতে পাননি খালেদা জিয়া

মারুফা রহমান

এখনও হাতে পাসপোর্ট পাননি খালেদা জিয়া। এজন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতির পাশাপশি তার পাসপোর্ট সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনে সরকারকে মানবিক সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছেন, বিএনপি নেতারা। দলের নেতারা বলছেন, লন্ডন অথবা আমেরিকায় তাঁর পরবর্তী চিকিৎসা সম্ভব। তবে এত দীর্ঘ পথের ধকল না সইতে পারলে খালেদা জিয়াকে আগে ব্যাংকক অথবা সিঙ্গাপুরে নিয়ে ডায়াগনসিস শুরু করা হবে।

সম্প্রতি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অবস্থা সংকটাপন্ন জানিয়ে তাঁর চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার অনুমতি চেয়ে ধারাবাহিক কর্মসূচী পালন করছে তাঁর দল। খালেদা জিয়ার পরিবার, ব্যক্তিগত চিকিৎসক, এবং রাজনৈতিক নানা অঙ্গন থেকেও বলা হচ্ছে যত দ্রুত সম্ভব তাঁকে দেশের বাইরে নিতে হবে। তবে অনুমতি পেলেও এখনও পার্সপোট হাতে পাননি বিএনপি নেত্রী।

অনুমতি পেলে বিএনপি চেয়ারপারসনের শারীরিক অবস্থার ওপর নির্ভর করবে তিনি কোন দেশে যাবেন। লন্ডন আমেরিকার পাশাপাশি তালিকায় থাকছে ব্যাংকক কিংবা সিঙ্গাপুরের হাসপাতাল।

বিদেশে যাওয়ার জন্য রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার বিষয়ে, বিএনপি নেতারা জানান, এমন কিছুর সম্ভাবনা নেই।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

জনগণ এখন আমাদের আ.লীগের দালাল বলে: সংসদে চুন্নু

অনলাইন ডেস্ক

জনগণ এখন আমাদের আ.লীগের দালাল বলে: সংসদে চুন্নু

‌‘সরকারের কথা বলতে গিয়ে এমন অবস্থা হয়েছে মাননীয় স্পিকার, পাবলিক এখন আমাদের আওয়ামী লীগের দালাল বলে’ জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু।

শনিবার জাতীয় সংসদে ‘মহাসড়ক বিল-২০২১’ পাসের আলোচনায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এক বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি এ কথা বলেন।

জনমত যাচাইয়ের প্রস্তাব দিয়ে মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, এই সরকার অনেক কাজ করেছে। কিন্তু ৭-৮ বছর ধরে টঙ্গী-গাজীপুর সড়কে ভয়াবহ অবস্থা। এখানে যাওয়া যায় না। ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে থাকতে হয়। ইহজগতে এই রাস্তা দিয়ে আর যাওয়া যাবে কিনা, তা তিনি সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রীর কাছে জানতে চান।

আরও পড়ুন:


দ. আফ্রিকার করোনার নতুন ধরন খুবই ভয়ঙ্কর : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

একই ইউপিতে বাবা-ছেলে ও আপন দুই ভাই চেয়ারম্যান প্রার্থী!

বেগম জিয়ার জন্য আলাদা আইন করার সুযোগ নেই: হানিফ


 

সংসদ সদস্যদের বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে সড়ক পরিবহণমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের শুধু বিরোধিতা না করে সরকারের ভালো কাজের প্রশংসা করারও আহ্বান জানান বিরোধী দলের প্রতি।

জবাবে মুজিবুল হক হক চুন্নু বলেন, আমরা সরকারের ভালো কাজের প্রশংসা করি না, এটা ঠিক নয়। তিনি বলেন, সরকারের কথা বলতে গিয়ে এমন অবস্থা হয়েছে মাননীয় স্পিকার, পাবলিক এখন আমাদের আওয়ামী লীগের দালাল বলে। আর কত বলব, বলেন। আমরা এখন দালালি নামটা মুছতে চাই। তারপরও যদি আপনাদের মন না ভরে, তাহলে তো কিছু করার নেই।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর