নোয়াখালীতে চাচাকে হত্যার দায়ে ভাতিজার মৃত্যুদণ্ড
নোয়াখালীতে চাচাকে হত্যার দায়ে ভাতিজার মৃত্যুদণ্ড

নোয়াখালীতে চাচাকে হত্যার দায়ে ভাতিজার মৃত্যুদণ্ড

Other

নোয়াখালীর চাটখিলে চাচাকে হত্যার দায়ে ভাতিজাকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। বুধবার দুপুরে নোয়াখালী জেলা ও দায়রা জজ সালেহ উদ্দিন আহমদ এ মৃত্যুদণ্ডের রায় দেন। একই সাথে ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেছে আদালত।  

মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত আসামি হলেন বিধান চন্দ্র দাস ওরফে সাইফুল ইসলাম (৩৩) বিধান চন্দ্র দাস সনাতন ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

বিধান চন্দ্র দাস মধ্য দশঘরিয়া দাস বাড়ির নেপাল চন্দ্র দাসের ছেলে।  

নিহত পূর্ণ চন্দ্র দাস ও বিধান চন্দ্র দাস সম্পর্কে চাচা ভাতিজা ছিলেন। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী পলি চন্দ্র দাস বাদি হয়ে চাটখিল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বিধান চন্দ্র দাস সনাতন ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। এরপর তিনি সাইফুল ইসলাম নামেই পরিচিত হন। নিহত পূর্ণ চন্দ্র দাস ও বিধান চন্দ্র দাসের মধ্যে বাড়ির সিমানা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।  

তারই জেরে ২০১৭ সালের ১০ জানুয়ারি দুপুর পৌঁনে ১২টার দিকে দশঘরিয়া বাজারে মাছ বিক্রি করা অবস্থায় পূর্ণ চন্দ্র দাসকে হঠাৎ করে পেছন থেকে এসে একটি ছোরা দিয়ে পূর্ণ দাসের গলা কেটে দেয় বিধান চন্দ্র দাস।  

এরপর সে পূর্ণের বুকে ও পিঠে আরও দু’টি কোপ দেয়। এ সময় বাজারে উপস্থিত লোকজন বিধানকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। আহত পূর্ণকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।  

আরও পড়ুন


বাড়তি ভাড়া আদায় ঠেকাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

নারীর সঙ্গে পরকীয়া, এ নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া অতঃপর...


এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী পলি চন্দ্র দাস বাদী হয়ে চাটখিল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় বিধানকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করলে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন বিধান। এ ঘটনায় ১২জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষগ্রহণ করা হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পিপি গুলজার আহমেদ জুয়েল জানান, বুধবার আসামি বিধানের উপস্থিতিতে স্বাক্ষীদের স্বাক্ষগ্রহণ শেষে বিজ্ঞ বিচারক হত্যার ঘটনায় তাকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেন।

news24bd.tv/ কামরুল 

;