নিষিদ্ধ হচ্ছে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের কনটেন্ট

অনলাইন ডেস্ক

নিষিদ্ধ হচ্ছে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের কনটেন্ট

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লাগতে পারে, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করে এমন কোনো উপকরণ তৈরি করে সম্প্রচার করা যাবে না। বিদেশের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের জন্য ক্ষতিকর কনটেন্ট তৈরি করে তা প্রচার করা যাবে না। এমন বিধান রেখে ‘ওভার দ্য টপ (ওটিটি) কনটেন্টভিত্তিক পরিষেবা প্রদান এবং পরিচালনা নীতিমালা-২০২১’ এর খসড়া তৈরি করেছে সরকার। এটি শিগগিরই প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করবে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়।

মূলত ওটিটি প্ল্যাটফরম হলো বিনোদনের দুনিয়া। এক সময় এই প্ল্যাটফরম বলতে শুধু টেলিভিশনকে বোঝাত। কিন্তু এখন বায়োস্কোপ, নেটফ্লিক্স, হইচই-এর মতো দেশি-বিদেশি মাধ্যমগুলোও এর অন্তর্ভুক্ত।

এ বিষয়ে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে একাধিকবার তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, এ সংক্রান্ত একটি খসড়া নীতিমালা তৈরি হয়েছে। এটি যাচাই-বাছাই করে আমরা খুব শিগগিরই প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করব।

প্রস্তাবিত খসড়ায় বলা হয়েছে- সৃজনশীলতা লালন, সৃজনশীল শিল্পকর্ম তৈরিতে সহযোগিতা এবং চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতাসহ বাকস্বাধীনতা সুনিশ্চিত করতে নীতিমালা প্রণয়নের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ পরিপন্থী, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী, রাষ্ট্রীয় শৃঙ্খলা ও অখন্ডতার প্রতি হুমকি সৃষ্টিকারী তথ্য প্রচলিত আইনের পরিপন্থী, দেশীয় সংস্কৃতিবিরোধী কোনো কনটেন্ট বা তথ্য উপকরণ তৈরি করে তা প্রচার করতে না পারে সে জন্যই নীতিমালা তৈরি করা হয়েছে। রাষ্ট্রের প্রচলিত আইন, বিধিবিধান অনুসরণ করে ওটিটি প্ল্যাটফরম প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে কিনা তা তদারকির দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের ওপর ন্যস্ত থাকবে।

এ নীতিমালার অধীনে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধন ছাড়া ইন্টারনেট বা সমমানের প্রযুক্তি ব্যবহার করে কোনো বিদেশি বা দেশি প্রতিষ্ঠান ওটিটি প্ল্যাটফরম ব্যবহার করে কোনো কনটেন্ট, বিজ্ঞাপন সম্প্রচার করতে পারবে না। ওটিটি প্ল্যাটফরম প্রতিষ্ঠান ওটিটি সেবা পরিচালনার জন্য নিবন্ধনের জন্য এ সংক্রান্ত আইন-বিধি প্রণীত না হওয়া পর্যন্ত তথ্য ও সম্প্রচার সচিব বরাবর নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হবে। ওটিটি প্ল্যাটফরম পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান কোম্পানি আইন ১৯৯৪ সালের অধীনে নিবন্ধিত হবে। প্রতিবার নিবন্ধনের মেয়াদ হবে ১-৫ বছর পর্যন্ত। প্রতি অর্থবছরে নিবন্ধনকৃত বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান ৩ লাখ টাকা এবং বিদেশি প্রতিষ্ঠান ১০ লাখ টাকা ফি দিয়ে নিবন্ধন নবায়ন করবে।

সরকারি প্রতিষ্ঠান এর আওতামুক্ত থাকবে। নিবন্ধন সংক্রান্ত সরকারের কোনো পাওনা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরিশোধে ব্যর্থ হলে, নীতিমালার এক বা একাধিক শর্ত ভঙ্গ করলে বা বিটিসিএল বা সরকারি প্রতিষ্ঠানের কোনো শর্ত ভঙ্গ করলে প্রচার বা সম্প্রচার কার্যক্রম অনধিক তিন মাস বন্ধ থাকলে নিবন্ধনের কার্যকারিতা স্থগিত বা বাতিল হবে।

 আরও পড়ুন:

যে দোয়ায় মিলবে জান্নাত

এতে আরও বলা হয়, ইচ্ছা করে কোনো উপকরণ দ্বারা জাতীয় সংগীত, জাতীয় পতাকা, রাষ্ট্রীয় মূলনীতি ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অসম্মান করা যাবে না। শিশুর অংশগ্রহণে যৌনাচার বা যৌনাচার উদ্দীপনা সৃষ্টিকারী কোনো উপকরণ তৈরি বা সম্প্রচার করা যাবে না। জাতি, ধর্ম বা কোনো সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত সৃষ্টি করতে পারে, এ ধরনের কোনো উপকরণ তৈরি বা সম্প্রচার করা যাবে না। রাষ্ট্রের প্রচলিত আইন বা উপযুক্ত আদালত কর্তৃক নিষিদ্ধ ঘোষিত কোনো উপকরণ তৈরি বা সম্প্রচার করা যাবে না।

news24bd.tv রিমু  

 

পরবর্তী খবর

ল্যান্ডিং গিয়ারে সমস্যা : চট্টগ্রামে বিমানের জরুরি অবতরণ

অনলাইন ডেস্ক

ল্যান্ডিং গিয়ারে সমস্যা : চট্টগ্রামে বিমানের জরুরি অবতরণ

ফাইল ছবি

বিমানের গিয়ার কাজ না করায় পাইলটের দক্ষতায় বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইট চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমান বন্দরে জরুরি অবতরণ করতে সক্ষম হয়েছে।আজ বুধবার রাত সাড়ে ৯টার পর বিমানটি অবতরণ করে।

ল্যান্ডিং গিয়ারে সমস্যার কারণে ৫০ মিনিট বিলম্বে জরুরি অবতরণ করে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটটি। আজ বুধবার রাত সাড়ে ৯টার পর বিমানটি অবতরণ করে।

শাহ আমানত বিমানবন্দরের পরিচালক উইং কমান্ডার ফরহাদ হোসেন খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন:

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

হাফ পাস শুধুমাত্র ঢাকায় কার্যকর হবে বললেন এনায়েত উল্লাহ

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: ৬ হামলাকারী শনাক্ত


বিমানবন্দর সূত্র জানিয়েছে, সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি ৬১৭ ফ্লাইটটি চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা হয়। চট্টগ্রামে অবতরণের আগে ল্যান্ডিং গিয়ারটি কাজ না করায় ফ্লাইটটি আকাশে বারবার চক্কর দিতে থাকে। ফ্লাইটটি পরিচালনা করছিলেন বিমানের ক্যাপ্টেন রুবায়েত। এতে ৪২ জন যাত্রী ছিলেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

সীমান্ত হত্যা নিয়ে যা বললেন দোরাইস্বামী

অনলাইন ডেস্ক

সীমান্ত হত্যা নিয়ে যা বললেন দোরাইস্বামী

ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী, ফাইল ছবি।

ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেছেন, সীমান্ত হত্যা দুঃখজনক ঘটনা, এটা অবশ্যই বন্ধ হতে হবে। সীমান্তে ভারতের দিকেই এটা হয়ে থাকে। কেননা অপরাধীরা সীমান্ত বাহিনীর ওপর আক্রমণ চালায়। সীমান্ত এলাকায় বর্ডার হাট, অর্থনৈতিক কার্যক্রম বাড়ালে সীমান্তের সমস্যা কমানো যেতে পারে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) এবং রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম ফর ডেভেলপিং কান্ট্রিজের (রিস) যৌথ আয়োজনে এক সেমিনারে এ কথা বলেন তিনি।

আরও পড়ুন: 


পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে


 

সীমান্তে যৌথভাবে মানবপাচার রোধ করতে হবে উল্লেখ করে বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেন, দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যের প্রধান সমস্যা হলো লজিস্টিক। শুধু সড়ক পথেই নয়, নদী ও রেলপথেও বাণিজ্য বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে।

news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর

চাকরি হারালেন সে-ই পাইলট

অনলাইন ডেস্ক

চাকরি হারালেন সে-ই পাইলট

বিমান।

পুরো বেতনের দাবিতে ‘কথা বলা’ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের পাইলটদের সংগঠন বাংলাদেশ এয়ারলাইনস পাইলট অ্যাসোসিয়েশনের (বাপা) সভাপতি মাহবুবুর রহমানকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সালেহ মোস্তফা কামালের স্বাক্ষর করা এক চিঠিতে তাঁকে চাকরিচ্যুতির বিষয়টি জানানো হয়।

ক্যাপ্টেন মাহবুবুর রহমান বিমানের বোয়িং ৭৮৭–এর পাইলট। তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

আরও পড়ুন: 


পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে


 

করোনা মহামারির মধ্যে বিমানের পাইলটদের বেতন কেটে নেওয়া হয়। একপর্যায়ে বেতন কাটার হার কিছুটা কমানো হলেও পুরোপুরি সমন্বয় করা হয়নি। এ নিয়ে সরব ছিলেন বিমানের পাইলটরা। সেখানে বাপা সভাপতি মাহবুবুর রহমানও ভূমিকা রেখেছিলেন।

news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর

দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে আরও ১২১ ডেঙ্গু রোগী ভর্তি

অনলাইন ডেস্ক

দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে আরও ১২১ ডেঙ্গু রোগী ভর্তি

ফাইল ছবি

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে আরও ১২১ জন নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। এ সময়ে কারও মৃত্যু হয়নি। আজ বুধবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ডেঙ্গু বিষয়ক বিবৃতিতে বলা হয়।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন ১২১ জন। এর মধ্যে ঢাকাতে ৩৯ জন এবং ঢাকার বাইরে ভর্তি হয়েছেন ৮২ জন।

আরও পড়ুন


বাসে আগুন দেয়ার ঘটনায় মামলা, আসামি ৮ শতাধিক

টেস্ট ছাড়া কেউ দেশে এলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী


বিবৃতিতে বলা হয়, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে মোট ৩২১ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকার ৪৬টি হাসপাতালে ২৪৪ জন এবং অন্যান্য বিভাগে বর্তমানে মোট ৭৭ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সর্বমোট ২৭ হাজার ৩৪৩ জন। 

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

১০ মাসে ১,১৮২টি ধর্ষণ সংক্রান্ত ঘটনা: মহিলা আইনজীবী সমিতি

অনলাইন ডেস্ক

১০ মাসে ১,১৮২টি ধর্ষণ সংক্রান্ত ঘটনা: মহিলা আইনজীবী সমিতি

জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির আয়োজনে যৌন হয়রানি প্রতিরোধ বিষয়ক গোলটেবিল আলোচনা।

দেশে চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে ধর্ষণ–সংক্রান্ত ১ হাজার ১৮২টি ঘটনা ঘটে বলে তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি (বিএনডব্লিউএলএ)।

সংস্থাটি জানায়, বছরের শুরুর ১০ মাসে ধর্ষণ হয়েছে ৯৫৫টি, দলবদ্ধ ধর্ষণ ২২০টি ও ধর্ষণের চেষ্টা ২৫৯টি। অর্থাৎ দিনে প্রায় চারটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

‌‘একই সময়ে রাস্তা, যানবাহন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, কর্মক্ষেত্র, এমনকি বাড়িতে দেশের প্রায় ৮৪ শতাংশ নারী যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন।’

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত জাতীয় দৈনিক ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত খবরের ভিত্তিতে এ পরিসংখ্যান দিয়েছে তারা।

রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে আজ বুধবার সকালে গোলটেবিলে এসব তথ্য তুলে ধরেন বিএনডব্লিউএলএর সভাপতি আইনজীবী সালমা আলী।

‘বাংলাদেশে যৌন হয়রানি: বর্তমান প্রেক্ষাপট ও প্রতিরোধে করণীয়’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় সালমা আলী বলেন, বর্তমানে দেশে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিটি ক্ষেত্রেই উদ্বেগজনক হারে বেড়ে চলেছে। এখনই সময় নারীদের রুখে দাঁড়ানোর।

বিএনডব্লিউএলএর সাধারণ সম্পাদক আইনজীবী জোবায়দা পারভিন বলেন, অপরাধীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত না করায় ধর্ষণ ও সহিংসতার ঘটনা বেড়ে চলেছে। বর্তমানে সংঘটিত সব যৌন হয়রানি ও সহিংসতায় দায়ী অপরাধীদের গ্রেপ্তার ও দ্রুত বিচার দাবি করেন তিনি।

যৌন হয়রানি নিয়ে নারীদের অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক রাশেদা আক্তার।

তিনি বলেন, নারীরা যৌন হয়রানির শিকার হলেও চাকরি হারানো এবং সামাজিকভাবে হেয় হওয়ার ভয়ে অভিযোগ করতে পারেন না। এ ক্ষেত্রে নারীর প্রতি সবার ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রাখার ওপর গুরুত্ব দেন তিনি।

গণমাধ্যমকর্মী জাইমা ইসলাম বলেন, ‘আমরা প্রতিদিনই দেখছি, নারীরা কর্মক্ষেত্রে কোনো না কোনোভাবে যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছেন। প্রতিটি কর্মক্ষেত্রে যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটি নিশ্চিত ও কার্যকর করা গেলে এই সহিংসতার ঘটনা রোধ করা সম্ভব।’

ফেয়ার ওয়ার ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধি বাবলুর রহমান বলেন, নারী-পুরুষনির্বিশেষে সবাইকে সোচ্চার হতে হবে। দেশের বিদ্যমান আইনের প্রয়োগ ও নজরদারিও খুব জরুরি।

আরও পড়ুন: 


পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে


news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর