মরিয়মকে বাস থেকে ফেলে দেওয়া হয়
Breaking News
মরিয়মকে বাস থেকে ফেলে দেওয়া হয়

মরিয়মকে বাস থেকে ফেলে দেওয়া হয়

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীতে ফুটপাত থেকে শিশু মরিয়ম আক্তারের (১০) লাশ উদ্ধার ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে র‍্যাব। র‍্যাব জানিয়েছে, রাস্তায়-বাসে ফুল বিক্রি করা শিশুটিকে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেওয়া হয়। সড়কে ছিটকে পড়ে তার মৃত্যু হয়। ওই বাসের চালক ও হেল্পারকে গ্রেপ্তারের পর এ তথ্য জানিয়েছে র‍্যাব।

গতকাল শনিবার দুপুরে কারওয়ান বাজারে এক সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন বলেন, প্রগতি সরণিতে রাইদা পরিবহনের একটি বাসে ওঠে মরিয়ম। কিন্তু হেলপার তাকে বাস থেকে নেমে যেতে বলেন। চালক বাসের গতি না কমিয়ে মরিয়মকে নামিয়ে দেন। এ সময় ছিটকে পড়ে মাথায় গুরুতর আঘাত পায় শিশু মরিয়ম।

এদিকে গত শুক্রবার রাতে র‍্যাব টঙ্গী থেকে রাইদা পরিবহনের ওই বাসের চালক রাজু মিয়া (২৫) এবং আব্দুল্লাহপুর থেকে হেলপার ইমরান হোসেনকে (৩৩) গ্রেপ্তার করে। র‍্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা স্বীকার করেছেন, বাস ভাঙচুর এবং মারধরের ভয়ে বাস না থমিয়ে তাঁরা দ্রুত চলে যান। পরে মেয়েটির মৃত্যুর খবর পেয়ে তাঁরা আত্মগোপন করেন।  

এ ব্যাপারে র‍্যাব কর্মকর্তারা জানান, শিশুটি ফুল বিক্রি করত এবং হাতে আবেদনসংবলিত কাগজ নিয়ে পথচারী ও বাসযাত্রীদের কাছে আর্থিক সাহায্য চাইত। খিলক্ষেত থানার কুড়াতলী এলাকায় পরিবারের সঙ্গে থাকত মরিয়ম।

 আরও পড়ুন:

নিষিদ্ধ হচ্ছে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের কনটেন্ট

গত ৯ নভেম্বর ভোরে বাসা থেকে বের হয় মরিয়ম। এরপর প্রগতি সরণিতে ফুটপাতে ময়লার স্তূপ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে সড়ক দুর্ঘটনার তথ্য পেয়ে সড়ক পরিবহন আইনে একটি মামলা করেন তার বাবা রনি মিয়া।

news24bd.tv রিমু