৪০০ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর
৪০০ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর

৪০০ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর

অনলাইন ডেস্ক

ছয় মাস ধরে চার'শ জনেরও বেশি ব্যক্তি ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ করেছেন ১৬ বছরের এক কিশোরী। এমনকি থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়েও এক পুলিশকর্মীর হাতেও ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে দাবি করেছেন ওই কিশোরী। বর্তমানে দু’মাসের অন্তঃসত্ত্বা ওই নির্যাতিতা। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মহারাষ্ট্রের বীড জেলায়।

  

আজ সোমবার আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এ খবর। এতে বলা হয়েছে,  চলতি সপ্তাহে অভিযোগ দায়ের হয়েছে পুলিশে। বীড জেলার পুলিশ সুপার রাজা রামাস্বামী জানিয়েছেন, নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে তিন জনকে গ্রেফতারও করা হয়েছে।  

গতকাল রবিবার বীড জেলার পুলিশ সুপার রাজা বলেছেন, ‘‘নির্যাতিতার অভিযোগের ভিত্তিতে শিশুবিবাহ, ধর্ষণ, যৌননিগ্রহ এবং পকসো আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ছ’মাসে ৪০০ জন নাবালিকাকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ। এক পুলিশকর্মীও ধর্ষণে অভিযুক্ত। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। ’’ 

এতে আরো বলা হয়েছে, নির্যাতিতা কিশোরীর মা মারা গেছে বেশ কয়েক বছর আগে। আট মাস আগে তার বাবা বিয়ে দিয়ে দেন। ওই কিশোরীর অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাকে মারধর করে। খারাপ ব্যবহার করে। সেখান থেকে পালিয়ে বাবার কাছে ফিরে এসেছিল সে। কিন্তু বাবা আশ্রয় দেননি। তার পর বীড জেলার আম্বাজোগাই বাসস্ট্যান্ডে বাধ্য হয়ে ভিক্ষা চাইতে শুরু করে সে। এই সময় থেকেই তার উপর অত্যাচার শুরু হয়েছিল।

আরও পড়ুন:


ফোন কল রেকর্ড করছে কেউ? যেভাবে বুঝবেন

আমি মাথা উঁচু করেই কথা বলব: ডা. মুরাদ


‘‘বহু লোক আমাকে নির্যাতন করেছে। আমি আম্বাজোগাই থানায় অভিযোগ জানাতে অনেক বার গিয়েছি। কিন্তু অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি। এক পুলিশকর্মীও আমার উপর অত্যাচার করেছে। ’’ এই তথ্য জানান ওই কিশোরী।   

news24bd.tv রিমু 

 

;