পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় গৃহবধূকে কুপিয়ে হাত-পা বিচ্ছিন্ন
Breaking News
পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় গৃহবধূকে কুপিয়ে হাত-পা বিচ্ছিন্ন

প্রতীকী ছবি

পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় গৃহবধূকে কুপিয়ে হাত-পা বিচ্ছিন্ন

অনলাইন ডেস্ক

পাবনায় হামিদা খাতুন (৩২) নামের এক গৃহবধূকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক স্বামীর বিরুদ্ধে। হত্যার পর তার দেহ থেকে এক হাত ও এক পা বিচ্ছিন্ন করা হয়। মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) সদর উপজেলার মালিগাছা ইউনিয়নের ফলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত হামিদা খাতুন সদর উপজেলার ফলিয়া গ্রামের তেজেম মোল্লার স্ত্রী।

তার এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

নিহতের ভাই হামিদুল ইসলাম বলেন, তেজেম মোল্লা পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। এর প্রতিবাদ করায় প্রায়ই তাদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ লাগত। তেজেম মোল্লা তার স্ত্রী হামিদা খাতুনকে প্রায়ই মারধর করতেন। এরই জেরে মঙ্গলবার ভোররাতে হামিদা খাতুনকে কুপিয়ে হত্যা করে তার স্বামী। হত্যার পর তার এক হাত ও এক পা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে। পরে ফোন দিয়ে সে আমার বোনকে হত্যার বিষয়টি জানিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আমরা বাড়িতে পুলিশকে খবর দেই।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন:

তিন বস্তিতে পূর্ণবয়স্কদের টিকা দেওয়া শুরু


news24bd.tv/ নকিব

;