শাশুড়িকে মারধর করে হত্যা!

অনলাইন ডেস্ক

শাশুড়িকে মারধর করে হত্যা!

আইরুন নেছা (৬২) নামে এক বৃদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগে উঠেছে তার মেয়ে জামাই রবিউল ইসলাম রবির (৩৪) বিরুদ্ধে। পাবনার ভাঙ্গুড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এতে রেবেকা নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে মারধরের ঘটনা ঘটলেও দিবাগত রাত তিনটার দিকে মারা যান। বুধবার সকালে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। দুপুরে নিহতের ছেলে বাদী হয়ে অভিযুক্তদের নামে হত্যা মামলা করে।

নিহত বৃদ্ধা উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের হেলেঞ্চা গ্রামের মৃত আইয়ুবের স্ত্রী।

নিহতের ভাই আবু সামার বরাতে জানা যায়, প্রায় চার বছরে আগে রবিউলের সঙ্গে তার বোনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই বোন ও তার জামাই তাদের বাড়িতেই থাকতো। গত আট মাস আগে রবিউল তার বোনকে ও একটি কন্যা সন্তান রেখে নিজ গ্রাম একই উপজেলার পাইকপাড়ায় চলে যায়। এর পর থেকে সে তার স্ত্রী ও কন্যার কোনো খোঁজ খবর রাখে না। আজ মঙ্গলবার দুপুরে আইরুন নেছা উপজেলার চন্ডিপুর চাল সংগ্রহ করতে যায়। সেখানে রবিউলের সাথে তার দেখা হলে সে তাকে কথা বলার জন্য তার নিজ বাড়িতে ডেকে নেয়। সেখানে তার সাথে আইরুন নেছার তর্ক হলে তিনি শাশুড়িকে মারধর শুরু করেন।

আরও পড়ুন

পতাকা টানানোর অনুমতি চাইলো পিসিবি

দিল্লিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

এক জীবনে এক ডিক্টেটরই যথেষ্ট! 

তার সাথে অভিযুক্তের মা ও বোন রেবেকা খাতুনও (৩৩) যোগ দেন। মারধরে বৃদ্ধা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে পার্শ্ববর্তী তারাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানের চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত তিনটার দিকে বৃদ্ধা মারা যায়।

ভাগুড়া থানার ওসি ফয়সাল বিন আহসান অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনায় অভিযোগের প্রেক্ষিতে একটি হত্যা মামলা হয়েছে এবং ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের ধরতে অভিযান চলছে।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

জগন্নাথপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধ’ গুলিবিদ্ধ ২৫, আহত ৫০

মো.বুরহান উদ্দিন, সুনামগঞ্জ

জগন্নাথপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধ’ গুলিবিদ্ধ ২৫, আহত ৫০

বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধরা চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌর শহরের ইসহাকপুর গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুপক্ষের বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ নারীসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ ২৫ জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ তিনজনকে আটক করেছে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) রাতে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ইসহাকপুর গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী উস্তার গণি ও একই এলাকার নিজামুল করিমের লোকজনের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার সন্ধ্যায় দুপক্ষের লোকজন বন্দুকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েন। এতে গুলিবিদ্ধ ২৫ জনকে কে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

অপর আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছেন। জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত তিনজনকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে।

আরও পড়ুন: 


পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে


news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর

রাজধানীতে শাপলা ফুলের প্রলোভনে শিশু ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীতে শাপলা ফুলের প্রলোভনে শিশু ধর্ষণ

প্রতীকী ছবি

রাজধানীর ডেমরায়  শাপলা ফুল ও চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর মা মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে অভিযুক্ত রিফাতের (১৯) বিরুদ্ধে ডেমরা থানায় মামলা করেন। 

এদিকে এ ঘটনার খবর পেয়ে এলাকাবাসী রিফাতকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। পুলিশ ওই রাতেই লম্পট রিফাতকে ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বুধবার আদালতে পাঠায়।

আরও পড়ুন


বাসে আগুন দেয়ার ঘটনায় মামলা, আসামি ৮ শতাধিক

টেস্ট ছাড়া কেউ দেশে এলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী


অন্যদিকে ভুক্তভোগী মেয়েটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসিসি) চিকিৎসার পাঠিয়েছে পুলিশ। ডেমরার পূর্ব বক্সনগর এলাকায় গত সোমবার এ ঘটনা ঘটে। 

ডেমরা থানার ওসি খন্দকার নাসির উদ্দিন জানান, ভুক্তভোগী শিশুটির প্রতিবেশী ও পাশের বাড়ির ভাড়াটিয়া লম্পট রিফাত। মেয়েটি তার ৮ বছরের চাচাতো ভাইকে নিয়ে বাড়ির সামনে খেলা করে প্রতিদিন। বিষয়টি খেয়াল করে রিফাত। 

গত সোমবার সকাল ১০টার দিকে খেলা করার সময় রিফাত ওই দুই শিশুকে চকলেট ও শাপলা ফুলের প্রলোভন দেখিয়ে তার ঘরে নিয়ে ছেলেটিকে মোবাইল দিয়ে অপর একটি ঘরে বসিয়ে দেয়। মেয়েটিকে অন্য ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে রিফাত। 

পরবর্তীতে এ ঘটনা ছেলেটি ভুক্তভোগীর মাকে পরের দিন জানায়।মেয়েটিও ভয়ে তার মাকে প্রথমে বিষয়টি জানায়নি। 

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

‌‘যুবলীগের সভা’ নিয়ে দ্বন্দ্ব, ১০ জনকে ছুরিকাঘাত

অনলাইন ডেস্ক

‌‘যুবলীগের সভা’ নিয়ে দ্বন্দ্ব, ১০ জনকে ছুরিকাঘাত

ছুরিকাঘাত, প্রতীকী ছবি।

যশোরে জেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা নিয়ে দলীয় প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে ১০জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে পাঁচজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে যশোর শহরের মাইকপট্টি, তসবীর সিনেমা হল ও জজ কোর্ট এলাকায় ছুরিকাঘাতের এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালে ভর্তিরা হলেন- ইসমাঈল হোসেন হ্যাপী (১৯), টিটু হোসেন (২১), খায়রুল ইসলাম (১৮), রাসেল (২০) ও আকিবুল (১৭)।

অন্যরা হলেন- শামীম হোসেন (১৮), রাব্বি (১৮), জয় আহমেদ (১৭), গোষ্ট গোপাল (২০) ও সোহাগ (২১)। তবে এ ব্যাপারে দায়িত্বশীল কোনো নেতৃবৃন্দের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আহতদের সূত্রে জানা গেছে, বর্ধিত সভা উপলক্ষে আসা নেতৃবৃন্দকে যশোর সার্কিট হাউস থেকে শহরের চিত্রা মোড়ে একটি অভিজাত আবাসিক হোটেলে নিয়ে যাওয়ার সময় তারা পেছনে ছিলো। এ সময় অজ্ঞাত একদল দুর্বৃত্ত তাদের ছুরিকাঘাত করে।

ডিবি পুলিশের ওসি রুপণ কুমার সরকার বলেন, ছিনতাইকারী হ্যাপি তার ব্যক্তিগত আক্রোশে দুপুরে শহরের আর এন রোডে শামিমকে ছুরিকাঘাত করে। এরই জের ধরে শামীমের লোকজন জজ কোর্ট মোড়ে টিটু, হ্যাপী, খাইরুলদের ছুরিকাঘাত করে জখম করে। এ ঘটনার সঙ্গে যুবলীগের বর্ধিত সভার কোনো সম্পর্ক নেই। তারা কোনো রাজনৈতিক দলের মতাদর্শের কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: 


পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে


যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আব্দুর রশিদ ছুরিকাঘাতে আহত পাঁচজন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে বলে জানিয়েছেন। খায়রুল ইসলাম নামে একজনার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে

ফখরুল হাসান পলাশ, দিনাজপুর

পায়ের রগকাটা মরদেহ পড়ে আছে নদীর পাড়ে

নলশীষা নদীর তীরে মরদেহ

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায় জয়পুর ইউনিয়নের নলশীষা নদীর পাড় থেকে আলী হোসেন সৌরভ (২৩) নামে এক যুবকের পায়ের রগকাটা অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করেছে নবাবগঞ্জ থানা-পুলিশ।

আজ বুধবার (১ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চামুন্ডা গ্রাম সংলগ্ন নলশীষা নদীর তীর থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত সৌরভ ওই এলাকার চামুন্ডাই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে। পেশায় তিনি একজন ব্যবসায়ী।

নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন


রাস্তায় নেমে গাড়ি ভাঙচুর শিক্ষার্থীদের কাজ নয়: প্রধানমন্ত্রী


 

পুলিশ জানান, উপজেলার আফতাবগঞ্জ এলাকা দিয়ে বহমান নলশিষা নদীর তীরে এক যুবকের মরদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পরে ওই স্থান থেকে ওই যুবকের মরদেহটি সুরতহাল শেষে উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার পায়ের রগ কাটা ছিলো। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানানো যাবে।

news24bd.tv /তৌহিদ

পরবর্তী খবর

৯৯৯ এ ফোন কলে

ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক

ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

প্রতীকী ছবি

‘জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে এক কলারের ফোন কলে মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে আটক করেছে নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানাধীন বন্দর ফাঁড়ির পুলিশ।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে ৯৯৯ নম্বরে একজন কলার জানান, নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানাধীন বন্দর পৌরসভার কাছাকাছি ছদকার বাড়ি এলাকার একটি মাদ্রাসার এক শিক্ষক মাদ্রাসার ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে। 

কলার আরও জানান, তিনি ঘটনাস্থলের কাছাকাছি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী, বর্তমানে এলাকার লোকজন ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ মিলে ভুক্তভোগী দরিদ্র শিশুটির পরিবারকে ডেকে এনে মিমাংসার চেষ্টা করছে। কলার আশঙ্কা করছেন দরিদ্র পরিবারটি ন্যয়বিবচার থেকে বঞ্চিত হতে পারে।

আরও পড়ুন


বাসে আগুন দেয়ার ঘটনায় মামলা, আসামি ৮ শতাধিক

বিদেশে পালাতে চেয়েছিলেন মেয়র আব্বাস


৯৯৯ থেকে তাৎক্ষণিক ভাবে বিষয়টি বন্দর থানায় জানিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। সংবাদ পেয়ে বন্দর থানাধীন বন্দর ফাঁড়ি পুলিশের একটি দল দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়।

পরে বন্দর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর (পরিদর্শক) সঞ্জয় সরকার ৯৯৯ কে ফোনে জানান, তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে ভুক্তভোগী নয় বছর বয়সী শিশুকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন এবং ধর্ষণের অভিযোগে জামিয়া আরাবিয়া দারুল কুরআন মাদ্রাসার শিক্ষক মো. রাকিবুল ইসলাম (২১) কে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন।

এ বিষয়ে বন্দর থানায় নারী ও  শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর