২১ নভেম্বর পর্যন্ত বিশেষ অভিযানে পুলিশ
২১ নভেম্বর পর্যন্ত বিশেষ অভিযানে পুলিশ
বিশেষ অভিযান চলছে নিবন্ধনহীন মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধেও

২১ নভেম্বর পর্যন্ত বিশেষ অভিযানে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সারাদেশে ঝুলে আছে প্রায়  সাড়ে ৪ লাখ গ্রেফতারি পরোয়ানা। যার মধ্যে ৮৮ হাজারের বেশি রয়েছে জিআর (থানায় করা) এবং সিআর (আদালতে দায়ের করা) মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি। এসব পরোয়ানাভুক্ত আসামিকে দ্রুত গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করার লক্ষ্যে সাত দিনের বিশেষ অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে সার্বিক আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, মাদকদ্রব্য, চোরাই ও রেজিস্ট্রেশনবিহীন মোটরসাইকেল আটক ও উদ্ধারের বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

পুলিশের সর্বশেষ হিসাব বলছে, (৩০ জুন পর্যন্ত) মোট ৪ লাখ ৭০ হাজার ২৩৩টি পরোয়ানা তামিলের অপেক্ষায় আছে। যার মধ্যে ৮৮ হাজার ৫৭০ জন জিআর ও সিআর মামলায় আদালত থেকে সাজাপ্রাপ্ত আসামি। এসব পরোয়ানা তামিলে নিয়মিত অভিযানের পাশাপাশি দেশজুড়ে সাত দিনের বিশেষ অভিযান শুরু হয়েছে।

পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (অপারেশন) মোহাম্মদ এহ্সান সাত্তার স্বাক্ষরিত বিশেষ অভিযান পরিচালনা সংক্রান্ত চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে আগামী ২১ নভেম্বর পর্যন্ত সাত দিন অবৈধ অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার, চোরাই ও রেজিস্ট্রেশনবিহীন মোটরসাইকেল আটক/উদ্ধার, নিয়মিত মামলার আসামি গ্রেফতার ও গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিলের নিমিত্তে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো। ’ 

পুলিশ সদর দফতর থেকে প্রাপ্ত পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, চলতি বছরের প্রথম দিনে (১ জানুয়ারি) গ্রেফতারি পরোয়ানা (জিআর) ছিল ২ লাখ ৩৩ হাজার ২০৯টি।  

আরও পড়ুন:

বাংলাদেশ-পাকিস্তান সিরিজে গ্যালারিতে ফিরছে দর্শক, জানা গেলো টিকিটের মূল্য

প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বিকেলে

পাকিস্তানের পতাকা লাগিয়ে কীসের প্র্যাকটিস: তথ্য প্রতিমন্ত্রী


 

এত বিশাল সংখ্যক গ্রেফতারি পরোয়ানা ঝুলে থাকা সম্পর্কে জানতে চাইলে পুলিশ সদর দফতরের আইজি মো. কামরুজ্জামান বলেন, ‘পরোয়ানা তামিলে পুলিশ সব সময়ই সচেষ্ট। বিভিন্ন ইউনিটকে এ বিষয়ে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে পরোয়ানা তামিল করার জন্য বলা হয়ে থাকে। কিছু ক্ষেত্রে হয়তো আদালতের সঙ্গে পুলিশের তথ্যে কিছুটা পার্থক্য থাকে। কারণ আদালত থেকে আসামি জামিন পেলে বা খালাস পেলে সেটার তথ্য নানা কারণে সমন্বয়ে বিলম্ব হয়। এক্ষেত্রে পরোয়ানা হয়তো কিছু বেশি দেখাচ্ছে।  

news24bd.tv/আলী