৬ পুলিশ সদস্যকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে : সিএমপি কমিশনার
৬ পুলিশ সদস্যকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে : সিএমপি কমিশনার

৬ পুলিশ সদস্যকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে : সিএমপি কমিশনার

অনলাইন ডেস্ক

মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ এবং পুলিশ সদস্যের ডোপ টেস্টে পজিটিভ প্রমাণ হওয়ায় চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) ছয় সদস্য চাকরি হারিয়েছেন। আরও ৫ সদস্যের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে সিএমপি সূত্রে জানা গেছে। সর্বমোট ডোপ টেস্টে পজিটিভ ও বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে ২৭ জনকে চ্যাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

সিএমপি সূত্রে জানা গেছে, সন্দেহভাজন পুলিশ সদস্যদের মাদক সম্পৃক্ততার অভিযোগ পাওয়া যায়।

এরপরই তাদের ডোপ টেস্টের আওতায় আনা হয়। মাদক সেবন ও কেনাবেচার ব্যাপারে বাংলাদেশ পুলিশ শূন্য সহিষ্ণুতা ঘোষণা করেছে। এরই অংশ হিসেবে পুলিশ হাসপাতালে নিয়মিত ডোপ টেস্ট করা হচ্ছে। মাদকাসক্ত পুলিশ সদস্যদের শনাক্তের কার্যক্রম অব্যাহত আছে। আরও বেশ কিছু পুলিশ সদস্যের ডোপ টেস্ট করা হয়েছে। কয়েক দিনের মধ্যে এসবের ফল হাতে পৌঁছাবে। ডোপ টেস্টে মাদকাসক্তের প্রমাণ মিললে কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর সংবাদমাধ্যমকে বলেন, গত এক বছরে প্রায় ২০০ জন পুলিশ সদস্যকে ডোপ টেস্ট (মাদকাসক্তি পরীক্ষা) করানো হয়েছে। এরমধ্যে ১১ জনের পজেটিভ রিপোর্ট পেয়েছি, তাদের বিরুদ্ধে বিভাগী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ৬ জনকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:

যুক্তরাজ্যে ১০ বছরের সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি

এক বছরে ভুটানে চারটি গ্রাম নির্মাণ করেছে চীন

সাবেক মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগের পর টেনিস তারকা নিখোঁজ

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

বাকি ৫ জনের বিভাগীয় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ডোপ টেস্টের বাইরে আরও ২১ জনকে বিভিন্ন অপরাধে চ্যাকুরিচ্যুত করা হয়েছে। এর মধ্যে বিভিন্ন অপরাধ আছে। এর মধ্যে কিছু আছে ব্যক্তিগত অপরাধ। যেমন যৌতুকের মামলা, যা আদালত বা আমাদের কাছে প্রমাণিত হয়েছে। কর্মস্থলে অপরাধমূলক জড়িত থাকা বা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ায়। পুলিশের যারা মাদকের সঙ্গে যুক্ত ও অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িতদের বিন্দুমাত্র ছাড় দেওয়া হবে না।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত