মুশফিককে যে নিষেধাজ্ঞা দিলো বিসিবি
মুশফিককে যে নিষেধাজ্ঞা দিলো বিসিবি

মুশফিককে যে নিষেধাজ্ঞা দিলো বিসিবি

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ দল যখন পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি লড়াইয়ে ব্যস্ত, তখন গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে, মুশফিকুর রহিমকে শোকজ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। পাকিস্তানের বিপক্ষে চলমান টি-টোয়েন্টি সিরিজে নেই মুশফিকুর রহিম। নির্বাচকরা বলেছেন, তাকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মুশফিক গণমাধ্যমের কাছে দাবি করেন, তাকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

এ নিয়ে সংবাদমাধ্যমের কাছে বোর্ড ও নির্বাচকদের সমালোচনা করায় তাকে শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

টি-টোয়েন্টি দল থেকে বাদ দেয়া নিয়ে মিডিয়ার সামনে মুশফিক যে বক্তব্য নিয়েছে, তা নাকি ভালোভাবে নেয়নি বিসিবি। সে কারণেই কারণ দর্শানোর নোটিশ।

আজ মিরপুরে এসে বসেছিলেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির প্রধান আকরাম খানের অফিসে। সেখানে অবশ্য নিজের মন্তব্যের পক্ষে যুক্তি দাঁড় করিয়ে পার পেয়েছেন মুশফিককে। এবারের মতো মুশফিককে সতর্ক করেছে বিসিবি। সংবাদ মাধ্যমে আপাতত কথা বলায় নিষেধাজ্ঞাও দেয়া হয়েছে সাবেক অধিনায়ককে।   

ক্রিকেট অপারেশন্স প্রধান আকরাম খানের কক্ষে জবাবদীহি করতে হয় মুশফিককে। শুনানিতে উপস্থিতি ছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ও বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন সুজন। সেখানে শুনানিতে মুশফিকের স্বপক্ষ শোনার পর তাকে বোর্ডের বিরুদ্ধে কথা বলায় সতর্ক থাকতে বলা হয়। এছাড়া সংবাদ মাধ্যমেও কথা না বলার জন্য বলা হয়েছে।

পরিষ্কার ভাবে বিশ্রামের কথা জানানো হলেও মুশফিক কেন বাদ পড়ার বিষয়টি সামনে আনেন সে ব্যাপারে ব্যাখ্যা জানতে চাওয়া হয় তার কাছে।

প্রসঙ্গতঃ বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পর বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়। সে হিসেবে মুশফিককেও দল থেকে বাদ দেয়া হয়। যদিও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু দাবি করেছেন, মুশফিককে বাদ নয়, বিশ্রাম দেয়া হয়েছে। কিন্তু কয়েকটি মিডিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎকারে মুশফিক দাবি করেন, তাকে বিশ্রাম নয়, বাদ দেয়া হয়েছে। আর বাদ পড়েছেন ধরে নিয়েই তিনি ফেরার জন্য অনুশীলন করছেন। এছাড়া মুশফিক দাবি করেন, নির্বাচকরা নাকি বলেছেন, তিনি নিজেই টি-টোয়েন্টি খেলতে চাননি।

আরও পড়ুন:


সেই স্কুলছাত্রীকে দিহানের ‘পাশবিক নির্যাতনে’ মৃত্যু

নাচের তালে দর্শকের হৃদয়ে কম্পন ধরালো নোরা


 

দুই পক্ষের পরস্পর বিরোধী বক্তব্যের কারণে যে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে, আকরাম খান মুশফিকের সঙ্গে আলোচনা করে, সেটাই দুর করার চেষ্টা করেছেন। সে সঙ্গে ভবিষ্যতে মিডিয়ায় কথা বলার ক্ষেত্রে একটা অঘোষিত সেন্সরশিপও হয়তো আরোপ করে দিয়েছেন!

news24bd.tv/আলী