পর্ন ভিডিওতে নিজেকে দেখে চমকে গেলেন পাকিস্তানী নারী এমপি!
পর্ন ভিডিওতে নিজেকে দেখে চমকে গেলেন পাকিস্তানী নারী এমপি!

পাকিস্তানের নারী সংসদ সদস্য (এমপি) সানিয়া আশিক

পর্ন ভিডিওতে নিজেকে দেখে চমকে গেলেন পাকিস্তানী নারী এমপি!

অনলাইন ডেস্ক

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি পর্ন ভিডিওতে পাকিস্তানের নারী সংসদ সদস্য (এমপি) সানিয়া আশিক নিজেকে আবিষ্কার করে চমকে উঠেন। পরে তিনি বুঝতে পারেন যে তিনি মারাত্মক সাইবার অপরাধের শিকার হয়েছেন।

পুলিশের কাছে অভিযোগ করে তিনি বলেছেন, ওই পর্নো ভিডিওর নারী চরিত্রটির মুখের ওপর তার মুখের ছবি সুপার ইমপোজ করে বসানো হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পাকিস্তানের সংবাদ মাধ্যম জিও টিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নওয়াজ শরিফের মেয়ের বান্ধবী সানিয়া পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের তক্ষশীলার সংসদ সদস্য। অক্টোবর মাসে সানিয়া এ সম্পর্কে জানতে পারেন। এরপরই তিনি সরকার ও কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থাকে এ বিষয়ে অবহিত করেন।

আরও পড়ুন:


টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে ছাদ থেকে পড়ে কিশোরের মৃত্যু

এবার ত্রিশালে দুই যুবলীগ নেতা বহিস্কার


গত ২৬ অক্টোবর অভিযোগ দায়ের করে সানিয়া জানান, সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি পর্নো  ভিডিওতে নিজেকে আবিষ্কার করেছেন তিনি। ওই অশ্লীল ভিডিওতে তার মুখ কেটে বসানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি।

তদন্তের পর পুলিশ এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে। তবে তদন্তের ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু প্রকাশ করা হয়নি। তবে, জিজ্ঞাসাবাদে ওই অভিযুক্ত ব্যক্তি ইন্টারনেটে সানিয়ার ভিডিও এবং ছবি শেয়ার করার কথা স্বীকার করেছে বলে জানা গেছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করা হয়েছে ভিডিওতে থাকা নারীটি সানিয়া নিজেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ কয়েকজন নেটিজেনও দাবি করেছেন ভিডিওর ওই নারী সানিয়া নিজেই। যদিও সানিয়া ওই দাবি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন।

সানিয়ার অভিযোগের পর পাঞ্জাব প্রদেশের পুলিশ তিন সপ্তাহের তদন্তের পর লাহোর থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তার ওই ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

এমনকি ভিডিওর ওই নারী সানিয়া নাকি অন্য কেউ তাও নিশ্চিত করেনি পুলিশ। এ ব্যাপারে আরও তদন্ত চলছে বলে পুলিশের তরফ থেকে বলা হয়েছে।

সানিয়া তার হয়রানির বিস্তারিত বিবরণ সোশ্যাল মিডিয়ায়ও লেখেন। ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারের কাছেও এই বিষয়ে অভিযোগ করেছেন সানিয়া। সানিয়া জানিয়েছেন, তিনি হুমকি ফোনও পেয়েছেন।  

সানিয়াকে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজের ঘনিষ্ঠ বলে দাবি করা হয়। বিভিন্ন ইস্যুতে ইমরান সরকারকে সরাসরি আক্রমণ করেন সানিয়া।

অভিযোগে সানিয়া উল্লেখ করেছেন যে, কয়েক মাস ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় আসল এবং কাল্পনিক নামের একাধিক অ্যাকাউন্ট থেকে তার মানহানি করা হচ্ছে এবং তাকে ব্ল্যাকমেল করা হচ্ছে।

তার আরও অভিযোগ, তাকে অজানা নাম্বার থেকে ফোন করে হুমকি দেওয়া হয়েছিল যে তার সম্পর্কে বাজে যৌন মন্তব্য করা হবে এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় তার নামে অশ্লীল ভিডিও শেয়ার করা হবে।

সানিয়া আশিক জাবীন একজন পাকিস্তানি রাজনীতিবিদ এবং আগস্ট ২০১৮ সাল থেকে পাঞ্জাব প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য (এমপি)। তিনি পাকিস্তানের লাহোরে জন্মগ্রহণ করেন এবং বেড়ে ওঠেন। তিনি পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফার্মেসি-ডি (ফার্মেসিতে পিএইচডি) ডিগ্রি অর্জন করেন।

২০১৮ সালের সাধারণ নির্বাচনে নারীদের জন্য সংরক্ষিত একটি আসনে পাকিস্তান মুসলিম লীগ (এন) (পিএমএল-এন) প্রার্থী হিসেবে পাঞ্জাবের প্রাদেশিক পরিষদে নির্বাচিত হন। মাত্র ২৫ বছর বয়সে তিনি এমপি হন। পাঞ্জাব আইনসভার সর্বকনিষ্ঠ সদস্য তিনি।

 news24bd.tv/ কামরুল 

;