মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯ |

আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপে খেলতে দেবে না ইসরাইল?

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপে খেলতে দেবে না ইসরাইল?

বিশ্বকাপের আগে ইসরাইলের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ বাতিল করে আর্জেন্টিনা। আর এতেই বুঝি বড়সড় ঝামেলার পড়তে হচ্ছে ল্যাটিন আমেরিকার এ দলটিকে। 

নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে ইসরাইলের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচটি বাতিল করে আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশন। এদিকে দেশটির প্রেসিডেন্টের দ্বারস্থ হয়েও ম্যাচটিকে আয়োজন করতে ব্যর্থ হন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনজামিন নেতানিয়াহু। আর এ প্রীতি ম্যাচ বাতিল করতে মদদ দেওয়ায় ফিলিস্তিনির বিরুদ্ধে ফিফায় মামলা করেছে ইসরাইলি ফুটবল ফেডারেশন। এবার আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ থেকেই বাদ দেওয়ার জন্য ফিফার কাছে যাচ্ছে ইসরাইল।

আর্জেন্টিনার টিওয়াইসি পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, আর্থিক নানা দিক দিয়ে ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ থেকেই বাদ দেওয়ার মতো অকল্পনীয় চিন্তা করছে ইসরাইল। আর এজন্যই তারা ফিফার দ্বারস্থ হচ্ছে। শনিবার ইসরাইলের জেরুজালেম স্টেডিয়ামে প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল আর্জেন্টিনার। কিন্তু বার্সেলোনায় মেসিদের অনুশীলন ক্যাম্পের বাইরে সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়ে আর্জেন্টাইন ফুটবলাররা। এ কারণে আর্জেন্টিনার ফুটবল ফেডারেশন প্রীতি ম্যাচটি বাতিল করে। আর এতেই আর্জেন্টিনার সমালোচনা শুরু করে ইসরাইল।

আরও পড়ুন: আর্জেন্টিনার সিদ্ধান্তে খুশি ফিলিস্তিনিরা

ইসরাইল-আর্জেন্টিনার এই ম্যাচের টিকিট থেকে শুরু করে আনা নেওয়ার সব দায়িত্ব ছিল কমটেক কোম্পানির। ফিফার কাছে মূলত তারাই যাচ্ছে আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ থেকে বাদ দেওয়ার জন্য। স্পন্সর, টেলিভিশন এমনকি হাজার হাজার মানুষ টিকিট কিনেছিল এই ম্যাচের। কমটেক কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়, তারা সুইজারল্যান্ডের জুরিখে যাচ্ছেন আর্জেন্টিনার এই অখেলোয়াড়সুলভ আচরণের বিচার চাওয়ার জন্য। এখান দেখার বিষয়, ফিফা এই ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত নেয়।

গত মঙ্গলবার নিরাপত্তার কারণে ইসরাইলের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ বাতিল করে আর্জেন্টিনা। আর এতে ফিলিস্তিনির সাধারণ মানুষদের প্রশংসা এবং বাহবা পেতে থাকেন মেসিরা।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য