মাঠে যারা পাকিস্তানের পতাকা উড়িয়েছে তারা সোজা-সরল ছাগল
Breaking News
মাঠে যারা পাকিস্তানের পতাকা উড়িয়েছে তারা সোজা-সরল ছাগল

গুলজার হোসাইন উজ্জ্বল

মাঠে যারা পাকিস্তানের পতাকা উড়িয়েছে তারা সোজা-সরল ছাগল

Other

একটা দল যখন আন্তর্জাতিক কোন প্রতিযোগিতায় খেলতে নামে তখন তার নাম হয় দেশের নামে। যখন জিতে যায় আমরা বলি অস্ট্রেলিয়া জিতেছে, পাকিস্তান জিতেছে বা বাংলাদেশ জিতেছে। হারলেও তাই বলি। তারা ন্যাক্কারজনক কোন ঘটনা ঘটালে বলি "দেশের নাম ডোবালো"।

তাই খেলা এখানে শুধুই খেলা নয়। এখানে দেশের নাম একাকার হয়ে আছে। এখানে জাতীয়তাবাদ মেশানো। জাতীয়তাবাদের উর্ধে যদি যেতে চান তাহলে খেলার মাঠে কোন পতাকাই আপনাকে টানবার কথা না। না পাকিস্তান না বাংলাদেশ। সেরকম  হলে আলাদা কথা।

বাংলাদেশ-পাকিস্তান খেলায় যারা পাকিস্তানের পতাকা উড়িয়েছে তারা আত্মপরিচয় নিয়ে সংকটে ভুগছে। বাংলাদেশ এদের কাছে স্রেফ বৃহত্তম মুসলিম দেশ ভেংগে যাবার ফল। যা আবার ঘটেছে ভারতের সহযোগিতায়। ধর্মীয় জাতীয়তাবাদ যার কাছে বড় তার পক্ষে এই ভাংগন মেনে নেওয়া কঠিন। তাই বছরের পর বছর এই দৃশ্য আমাদের দেখতে হবে। এই দ্বৈত সত্ত্বার সাথে লড়াই করতে হবে। এই নিয়তি আমি মেনে নিয়েছি।

অহেতুক পাকিস্তানপ্রীতিকে আমরা ছাগলামি বলি। যারা সেটা প্রকাশ করে তাদের ছাগল বা ছাগু বলি। পাকিস্তানের জাতীয় পশু ছাগল (মারখোর)। তাদের পেয়ারের দেশের জাতীয় পশুর নামে নাম। নিশ্চয়ই এই নামে মিশে আছে তাদের ভালবাসার পাবন্দি। এতে নাখোশ হবার কিছু নেই।

যারা পাকিস্তানের পতাকা উড়িয়েছে তারা সরল ভাবেই নিজেদের অবস্থান প্রকাশ করেছে। মানসিকভাবে এরা নিম্নশ্রেনীর, সোজা-সরল ছাগল। কিন্তু যারা "ক্রিকেট মানে দেশপ্রেম না" বলে প্রচার করছে- এরা উন্নত জাতের সংকর ছাগল। এরা উচ্চপ্রজননশীল, প্রতিকূল পরিবেশে সহজে বেঁচে থাকতে পারে এবং উচ্চতর প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত। সাবধানে থাকবেন।

আরও পড়ুন


বাসা থেকে ডেকে নিয়ে বন্ধুকে হত্যা করে বন্ধু

news24bd.tv এসএম

;