কুষ্টিয়ায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা
কুষ্টিয়ায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা

প্রতীকী ছবি

মামলা সিআইডি বা পিবিআইতে তদন্তের দাবি পরিবারের

কুষ্টিয়ায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা

Other

কুষ্টিয়ার মিরপুর বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণীর ছাত্রী উম্মে ফাতেমার ধর্ষণ ও নৃশংস হত্যাকাণ্ডে পুলিশের ভূমিকায় অসন্তুষ্ঠ পরিবারের সদস্যরা। তারা মামলাটি সিআইডি বা পিবিআইকে দিয়ে তদন্ত করানোর দাবি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে।  

স্কুলছাত্রী উম্মে ফাতেমার চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডটি ঘটে গত ১৫ জুলাই সকালে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ভাঙা বটতলা এলাকায়। সেখানকার ভুট্টাক্ষেত থেকে তার ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

 

আরও পড়ুন


যশোরে ৬ বছর বয়সী শিশুকে ধর্ষণ শেষে হত্যা, ধর্ষক গ্রেপ্তার

বাবাকে অস্ত্র ঠেকিয়ে মেয়েকে অপহরণের চেষ্টা, আটক ৫


নিহতের বাবা দাবি করেন, একাধিক আসামির নাম দিলেও পুলিশ একজনের নামেই মামলা করেছে। তাকেই একমাত্র আসামি হিসেবে গ্রেপ্তার করেছে। জড়িত সবাইকে গ্রেপ্তারের দাবি জানান তিনি।  

কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে নিহতের বাবা বলেন, একজন আসামির পক্ষে কোনভাবেই দলবদ্ধ ধর্ষণ শেষে এমন নির্মম ও নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটানো সম্ভব নয়। ময়নাতদন্ত রিপোর্টেও সেরকম আলামত মিললেও পুলিশ তা আমলে নিচ্ছে না।

পুলিশ ঘটনার পরপরই একজন আসামিকে গ্রেপ্তার করে। সংবাদ সম্মেলন করে মিডিয়ায় জানান দেয়। এখনো সেই অবস্থানেই আছেন তারা। তবে, ডিএনএ পরীক্ষা করে আর কেউ জড়িত আছে কি-না দেখা হবে বলে জানান পুলিশ সুপার।  

পরিবারের পক্ষে করা সংবাদ সম্মেলনে ফাতেমার মা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।  

news24bd.tv/ কামরুল