ডাক্তার পেটাতে অনেক সুখ, কেউ কিছু বলবে না
Breaking News
ডাক্তার পেটাতে অনেক সুখ, কেউ কিছু বলবে না

রুবাইয়াত সাইমুম চৌধুরী

ডাক্তার পেটাতে অনেক সুখ, কেউ কিছু বলবে না

Other

মাঝে মাঝে ডাক্তারদের পক্ষে আর বাংলাদেশের চিকিৎসা খাতের বিপক্ষে লিখি দেখে বেশ কিছু কটু কথা শুনতে হয়। আজকে বাংলাদেশ সরকারের নিজেদের একটা গবেষণাপত্র থেকে কিছু ডাটা দেই।  

তাহলে বুঝা যাবে কেন আমি সাধারণত বাংলাদেশের ডাক্তারদের পক্ষে আর চিকিৎসা খাতের বিপক্ষে বলি। একটা ব্যাপার সাধারণ মানুষ বুঝেই না।

সেটা হলো ডাক্তার মানেই চিকিৎসা খাত না। ডাক্তার চিকিৎসা খাতের একটা অংশ। যাই হোক ডাটাতে যাই।  

১৯৯৭ সালে ব্যাক্তি নিজের পকেট থেকে স্বাস্থ্য ব্যায় করতো ৫৫% আর সরকার বহন করতো ৩৭%। ২০২০ সালে ব্যাক্তি ব্যায় করে ৬৮.৫% আর সরকার ২৩.৩%।  

সহজ ভাষায় মানুষের চিকিৎসা খরচ বেড়েছে। আগে সে ৫৫ টাকা খরচ করলে এখন ৬৮.৫ টাকা করে। এখন তাহলে দেখি চিকিৎসা খাতের কোনো কোন জায়গায় খরচ হয়।  

যদি কেউ ১০০ টাকা খরচ করে চিকিৎসার জন্য তাহলে তার মাঝে ঔষধ কিনতে খরচ ৬৪ টাকা, হাসপাতালের বিল ১২ টাকা, ল্যাবটরির টেস্ট খরচ ৮ টাকা , ডাক্তারের জন্য খরচ ৫ টাকা। মানে ডাক্তার ১০০ টাকা খরচের মাত্র ৫ টাকা পায়। কিন্তু মাইর খেতে হয় তাকেই।  

অন্য দেশে খরচের অবস্থাটা কি একটু দেখি। ভারতকে ধরি। কারণ বাংলাদেশের মানুষ ভারতে চিকিৎসা করতে খুব ভালোবাসে।  ভারতে ঔষধের জন্য খরচ ২৮ টাকা, পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য ৪.৩ টাকা, হাসপাতালের বিল ৫১.৬ টাকা।  

বাংলাদেশ নাকি আবার ঔষধে প্রায় স্বয়ংসম্পূর্ণ। স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশে এত বেশী খরচ বাড়ার প্রভাব কি? তেমন কিছু না। প্রয়োজন হলেও ৩ কোটি মানুষ হাসপাতাল বা চিকিৎসকের কাছে যান না। এই তথ্য কিন্তু বাংলাদেশ সরকার নিজে দিচ্ছে। অন্য কেউ না।  

মানে ৩ কোটি মানুষের চিকিৎসা দরকার। কিন্তু তাদের টাকা নাই । তাই তারা চিকিৎসা করান না। বিনা চিকিৎসাতে মারা যান।  আমাদের গড় আয় ২৫০০ ডলার ( এটা এমনি বল্লাম। কোনো কারণ নাই)।


আরও পড়ুন: 

তাদের আন্দোলন রাজপথে নয়, ফেসবুকে: ওবায়দুল কাদের

ফখরুল বললেন, আন্দোলন-আন্দোলন-আন্দোলন

ধর্ষণ মামলায় জামিন: ক্ষমা চাইলেন বিচারক

ব্যাটিং ব্যর্থতায় শেষ ম্যাচেও এলো না বড় পুঁজি


যারা চিকিৎসা করান তাদের জন্যও খারাপ খবর আছে। খরচের ভার বহন করতে যেয়ে ৮৬ লাখের বেশী মানুষের আর্থিক অবস্থা খারাপ হয়ে যায়। মানে রাফলি ৪ কোটি মানুষ আসলে ঠিক মতো চিকিৎসা পাচ্ছে না। জনসংখ্যার ২৫%। চার ভাগের এক ভাগ।  মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে ব্যাপারটা বেশ আনন্দের।

আমাদের দেশপ্রেম ক্রিকেটের গ্যালারিতে আর যে কোনো কিছুর প্রতিকার ডাক্তার পেটানো পর্যন্তই। ডাক্তার পেটাতে অনেক সুখ। কেউ কিছু বলবে না। মাঝ থেকে শান্তি আসে মনের মাঝে। মনের শান্তি আসল শান্তি।

news24bd.tv নাজিম

;