সোভিয়েত জামানার সরকারি ছবিগুলোর সবগুলোই রিটাচ করা
Breaking News
সোভিয়েত জামানার সরকারি ছবিগুলোর সবগুলোই রিটাচ করা

ভ্লাদিমির দুরভ নামের একজন এনিম্যাল ট্রেইনারের ছবি

সোভিয়েত জামানার সরকারি ছবিগুলোর সবগুলোই রিটাচ করা

Other

ফটোশপ ওয়ান যখন রিলিজ হয় তখন সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন হচ্ছে। কিন্তু তার অনেক আগে থেকেই সোভিয়েত ইউনিয়নে ফটোগ্রাফির উপরে কাজ করে সেটাকে পরিবর্তিত করার কৌশল প্রয়োগ করতো। সোভিয়েত জামানার সরকারি ছবিগুলোর সবগুলো রিটাচ করা।  

আগেকার দিনের সোভিয়েত ম্যাগাজিন বাসায় থাকলে দেখতে পারেন, ছাপা ছবির ধরণই খুব আলাদা ছিলো।

এই ছবিটা দেখুন ভ্লাদিমির দুরভ নামের একজন এনিম্যাল ট্রেইনারের ছবি। বানরের মুখ আর চুলের দাগ গুলো দেখুন। খুব সূক্ষ্ম চাকু বা সুচ দিয়ে নিখুঁতভাবে নেগেটিভের উপরে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে কালো দাগ তুলে ফেলা হয়েছে।

যেখানে দাগ দেয়ার দরকার নেই সেইখানে ইমালশন দিয়ে ব্রাশ দিয়ে এঁকে দেয়া হতো। লেনিনের ছবি থেকে ট্রটস্কি কে মুছে ফেলা বা স্ট্যালিনের ছবি থেকে সিক্রেট পুলিশের চিফ নিকোলি ইয়েজভের মুছে ফেলার ইতিহাস আমরা জানিই।

তবে, সবচেয়ে বেশী কষ্ট করতে হতো স্ট্যালিনের ছবি নিয়ে। তার মুখে অসংখ্য ব্রণের দাগ ছিলো। সেগুলো সরিয়ে নিখুঁত মাখনের মতো চামড়ার ছবি বানানো সহজ কাজ ছিলোনা। আর তার ছিল বিখ্যাত পাকানো গোঁফ। সেই গোঁফের ছবি এতো নিখুঁত আসতো রিটাচের গুণে।

আরও পড়ুন:


তাইজুল ম্যাজিকে লিড পেলো বাংলাদেশ

হেফাজত মহাসচিব মাওলানা নুরুল ইসলাম আইসিইউতে

অন্তঃসত্ত্বা নারীকে হত্যা করে পেট চিরে বাচ্চা চুরি!


স্ট্যালিনের গোঁফ ছবিতে যেমন দেখা যায় তেমন নিখুঁতভাবে পাকানো থাকতো না কখনোই। গর্বাচভের মাথায় একটা জন্ম দাগ ছিলো। টাক থাকায় সেটা ভালোভাবে বোঝা যেতো। কিন্তু গর্বাচেভ যখন মাত্র ক্ষমতায় এলো তখন যেই অফিসিয়াল ছবি রিলিজ করা হয়েছিলো। সেখানে মাথার সেই জন্মদাগকেও রিটাচ করে মুছে ফেলা হয়েছিলো।

লেখাটি শান্তা আনোয়ার-এর ফেসবুক থেকে সংগৃহীত ( লেখাটির আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়। )

news24bd.tv নাজিম

;