ঢাকার যানজটেই শেষ জিডিপির প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা
ঢাকার যানজটেই শেষ জিডিপির প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা

ফাইল ছবি

ঢাকার যানজটেই শেষ জিডিপির প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা

অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা শহরে যানজটের কারণে বছরে বিপুল পরিমাণ অর্থ ক্ষতি হচ্ছে। দেশের মোট দেশজ উৎপাদন জিডিপির ২.৫ শতাংশ ক্ষতি হচ্ছে। এই ক্ষতির পরিমাণ যদি টাকার অঙ্কে পরিমাপ করা হয় তাহলে তা দাঁড়ায় প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) উন্নয়নবিষয়ক বার্ষিক সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়।

রাজধানীর একটি হোটেলে সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে ‘ঢাকার অসম সম্প্রসারণ ও এর পরিণতি’ শীর্ষক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) পরিচালক আহমেদ আহসান। আজ শুক্রবার স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী এই সম্মেলন শেষ হবে।

আহমেদ আহসান যানজটের কারণে জিডিপির ২.৫ শতাংশ ক্ষতির যে তথ্য দিয়েছেন তাকে টাকায় রূপান্তর করা হয়েছে ২০১৫-১৬ অর্থবছরকে ভিত্তি ধরে সর্বশেষ জিডিপির আকার থেকে। চলতি অর্থবছরে জিডিপির আকার ৩৪ লাখ ৮৪ হাজার কোটি টাকা।

আহমেদ আহসান জানান, বাংলাদেশে অন্যান্য শহরে উন্নয়নের ঘাটতি থাকায় সব কিছু এখন ঢাকাকেন্দ্রিক। ফলে এখানে যানজটসহ নানা অব্যবস্থাপনা আছে। ঢাকার অতিরিক্ত বৃদ্ধি সার্বিকভাবে নগর উন্নয়নকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। প্রতিবছর এই ক্ষতির পরিমাণ দেশের মোট জিডিপির ৬ শতাংশ। এ ছাড়া প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে মাথাপিছু আয়ের ক্ষতি হচ্ছে ৫.৮ শতাংশ।

আহমেদ আহসান বলেন, বাংলাদেশের যত মানুষ শহরে বাস করে, তার বেশির ভাগেরই বসবাস ঢাকায়। প্রধান শহরগুলোতে দেশের মোট জনসংখ্যার ৩১.৯ শতাংশ বসবাস করে। ঢাকায় বাস করে ১১.২ শতাংশ। ১০ লাখের মতো মানুষ বাস করে এমন শহর মাত্র পাঁচটি।

চীন ও ভারতের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‘চীনের মোট জনসংখ্যা প্রায় ১৩৮ কোটি। এর মধ্যে শহরে বাস করে মাত্র ৩.১ শতাংশ। ১০ লাখের মতো মানুষ বাস করে এমন শহর আছে ১০২টি। ভারতের জনসংখ্যা প্রায় ১৩৩ কোটি। এর মধ্যে শহরে বাস করে ৬ শতাংশ মানুষ। সবচেয়ে বড় শহরে বাস করে ২ শতাংশ মানুষ। ১০ লাখের বেশি মানুষের বসবাসের মতো শহর রয়েছে ৫৪টি। ’

পিআরআইয়ের পরিচালক বলেন, দারিদ্র্য নিরসনের হারও শহরে কম, গ্রামে বেশি। এ ছাড়া শ্রমিকদের মজুরি হারের প্রবৃদ্ধি শহরে কমছে। আগে যেখানে প্রবৃদ্ধির হার ১২ শতাংশ ছিল, এখন সেটি কমে ৮ শতাংশ হয়েছে।

বিআইডিএসের মহাপরিচালক ড. বিনায়ক সেনের সভাপতিত্বে গতকাল দ্বিতীয় দিনে প্রায় ১৫টির মতো গবেষণাপত্র উপস্থাপন করা হয়। বিনায়ক সেন বলেন, ঢাকার অতিরিক্ত বৃদ্ধি ও অর্থনৈতিক খরচের বিষয়গুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নীতিনির্ধারকদের উচিত একে খুবই গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অর্থনীতিবিদ মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ঢাকায় নিয়মিত যানজটের কারণে দেশের অনেক ক্ষতি হচ্ছে। যানজটের কারণে জ্বালানি তেল, গ্যাস বেশি ব্যবহার করা হচ্ছে। মানুষের কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে। মানুষ ধৈর্য হারাচ্ছে। এ সব কিছুর একটা মূল্য আছে। ’

যানজট থেকে শিগগিরই উত্তরণের কোনো চেষ্টা আছে কি না জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মুনিবুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ঢাকায় যানজটের কারণে বছরে জিডিপির ২.৫ শতাংশ ক্ষতি হচ্ছে বলে বিআইডিএসের গবেষণা প্রতিবেদনটি আজ মিডিয়ার মাধ্যমে আমার চোখে পড়েছে। প্রতিবেদনটি সংগ্রহের চেষ্টা করছি। প্রতিবেদন পেলে সেটি যাচাই-বাছাই করে আগামী দিনে কিভাবে যানজট থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায় সেই চেষ্টা করব আমরা। ’

আরও পড়ুন


আফ্রিকার ৭ দেশ থেকে এলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন

news24bd.tv এসএম