১২ বছরের ছাত্রীকে দোকানে নিয়ে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ
১২ বছরের ছাত্রীকে দোকানে নিয়ে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ

১২ বছরের ছাত্রীকে দোকানে নিয়ে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় ১২ বছর বয়সী পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রী রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে জহির উদ্দিন (৪৫) নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়নের দীন নারায়ণপুর গ্রামের জহিরের ডেকোরেটর দোকানে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনা জানতে পেরে ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা রাত ১০টার দিকে বাদী হয়ে ২ জনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলেন- দীন নারায়ণপুর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদেরের ছেলে জহির উদ্দিন (৪৫) ও তার সহযোগী একই এলাকার মৃত আলী সারেংয়ের ছেলে হাবীব উল্যাহ (৪৩)।

  

মামলা সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত জহির পেশায় একজন ডেকোরেটর ব্যবসায়ী এবং অপর আসামি হাবীব ওই জায়গার মালিক। বিভিন্ন সময় ওই ছাত্রীকে টাকা পয়সা দিয়ে প্রলোভন দেখাতেন তারা। বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই ছাত্রী মাদরাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে ডেকোরেটর দোকানের সামনে পৌঁছলে জহির মুখ চেপে ধরে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে দোকানের শাটার বন্ধ করে হাবীবের সহায়তায় তাকে ধর্ষণ করেন। এ সময় স্থানীয় কিছু বাসিন্দা বিষয়টি টের পেয়ে ধর্ষকের দোকানে হানা দিলে ধর্ষক জহির পালিয়ে যায়। পরে নির্যাতিতার মা সেনবাগ থানায় মামলা করেন।  

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী জানান, উক্ত ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

আরও পড়ুন


দুই হাত হারানো ফাল্গুনীকে বিয়ে করলো এনজিও কর্মী সুব্রত

news24bd.tv এসএম