রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে পঞ্চম শ্রেণির একছাত্রীকে ধর্ষণ
রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে পঞ্চম শ্রেণির একছাত্রীকে ধর্ষণ

রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে পঞ্চম শ্রেণির একছাত্রীকে ধর্ষণ

Other

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়নের বীর নারায়নপুর গ্রামে মাদরাসা থেকে বাড়ি ফেলার পথে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে পঞ্চম শ্রেণির একছাত্রী (১২) ধর্ষণ করার অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে।  

মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ভিক্টিমের মা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে জহির উদ্দিন (৪৫) ও হাবীব উল্যাহ (৪৩)কে আসামী করে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

শুক্রবার সকালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এদিকে  ধর্ষককে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

জানা যায়, বীর নারায়নপুর গ্রামের ডেকোরেটর দোকানদার ধর্ষক জহির এবং ওই দোকানের জায়গার মালিক হাবীব বিভিন্ন সময় ওই ছাত্রীকে মাদরাসায় যাওয়ার আসার সময় ইভটিজিং করত।  

আরও পড়ুন


যৌনাঙ্গের মুখে আঠা দিয়ে বন্ধ করে বান্ধবীর সঙ্গে মিলন, যুবকের মৃত্যু


বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই ছাত্রী মাদরাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে ডেকোরেটর দোকানের সামনে পৌঁছলে ধর্ষক জহির তাকে মুখ চেপে ধরে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে দোকানে ডুকিয়ে স্যাটার বন্ধ করে হাবিবের সহায়তায় তাকে ধর্ষণ করে।  

এ সময় ওই মাদরাসা ছাত্রীর চিৎকারে স্থানীয় কিছু এলাকাবাসী এগিয়ে এসে ধর্ষকের দোকান ঘেরাও করলে কৌশলে তারা পালিয়ে যায়। পরে রাতে এ ঘটনায় ছাত্রীর মা বাদী হয়ে দুইজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করেন।  

সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে এবং ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে শুক্রবার হওয়ায় পরীক্ষা হয়নি। শনিবার পরীক্ষা হবে।

news24bd.tv/ কামরুল