মাদারীপুরে রাতের আধাঁরে দফায়-দফায় হামলা বসতবাড়ি ভাংচুর
মাদারীপুরে রাতের আধাঁরে দফায়-দফায় হামলা বসতবাড়ি ভাংচুর

হামলা চালিয়ে ভাংচুর

ইউপি নির্বাচনের জের

মাদারীপুরে রাতের আধাঁরে দফায়-দফায় হামলা বসতবাড়ি ভাংচুর

Other

মাদারীপুরের কালকিনিতে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিজয়ী প্রার্থীর লোকজনেরা পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রতিপক্ষ সমর্থকের বসতবাড়িতে দফায়-দফায় হামলা চালিয়ে ভাংচুর চালিয়েছে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।  

এ নিয়ে ওই এলাকায় চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

শুক্রবার রাত ৯টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায় দ্বিতীয় ধাপের সদ্য অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে কালকিনি উপজেলার লক্ষিপুর ইউপিতে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেন সাবেক চেয়ারম্যান ফজলুল হকের স্ত্রী মৌসুমি হক সুলতানা ও নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী তোফাজ্জেল হোসেন গেন্দু কাজী। এ নির্বাচনে বিজয়ী হন মো. ফজলুল হকের স্ত্রী মৌসুমী হক সুলতানা।  

আরও পড়ুন:


ইউপি নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে নৌকা পেলেন যারা


এর জের ধরে বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থী মৌসুমি সুলতানার লোকজন দেশী অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পরাজিত প্রার্থী তোফাজ্জেল হোসেন গেন্দু কাজীর সমর্থক খোকন মেম্বার, সাজাহান মেম্বার ও মুক্তিযোদ্ধা আবদুল কাদের মাস্টারের বাড়িরসহ অনেক বাড়ি ভাংচুর চালায়। এ সময় তাদের বাধা দিলে প্রায়৭-৮ জন আহত হন। আহতদেরকে শরীয়তপুর হাসপাতালসহ বিভিন্নস্থানে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। পরে খাসেরহাট তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী তোফাজ্জেল হোসেন গেন্দু কাজী বলেন, মৌসুমি সুলতানার স্বামী ফজলুল বেপারীর নির্দেশে রাতের আধারে আমার কর্মী সমর্থকদের বাড়ি ঘরে অতর্কিত হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করা হয়েছে। ফজলুর সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণে দেশে থাকতে পারতেছি না।

বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থী মৌসুমি সুলতানার স্বামী ফজলুল হক বলেন, এ মারামারি নির্বাচন নিয়ে হয়নি। তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে হয়েছে।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি ইসতিয়াক আসফাক রাসেল বলেন, মারামারির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

news24bd.tv/ কামরুল

;