পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীকে দেখে ফেলে স্বামী, অতঃপর...
পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীকে দেখে ফেলে স্বামী, অতঃপর...

প্রতীকী ছবি

পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীকে দেখে ফেলে স্বামী, অতঃপর...

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীর ডেমরায় চাম্পা আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। গত ১ ডিসেম্বর রাতে চাম্পাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। হত্যার পর স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে ফেলে পালিয়ে যান স্বামী মামুন।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা হজরত সরদার বাদী হয়ে ডেমরা থানায় মেয়ে জামাতা মামুনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

শনিবার নাটোরের সিংড়া থানা এলাকা থেকে মামুনকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিকভাবে হত্যায় দায় স্বীকার করেছেন মামুন। ডেমরা থানার পরিদর্শক (অপারেশনস) সুব্রত কুমার পোদ্দার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এসময় তিনি বলেন, চাম্পা ও মামুন দুজনেই পোশাক শ্রমিক ছিলেন। তারা ডেমরার পূর্ব বক্সনগর মাইনুদ্দীনের বাড়ির ভাড়াটিয়া ছিলেন। মামুনের বাড়ি নাটোরের সিংড়া থানার লাল বানু বেওয়ানায়। চাম্পার বাড়ি নওগাঁর আত্রাই থানার আম চন্দ্রবাটিতে। চাম্পা গত প্রায় আট বছর ধরে পরিবারের সঙ্গে থেকে গাজীপুরে একটি কারখানায় কাজ করতেন। বাবার অমতে পাঁচ মাস আগে মামুনের সঙ্গে বিয়ের পর তারা ডেমরায় বসবাস শুরু করেন। বিয়ের পর তারা দুজন স্থানীয় একটি গার্মেন্টে কাজ শুরু করেন।

স্বামী মামুনকে রেখেই আরও এক ছেলের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন চম্পা। আর বিষয়টি জানতে পারেন মামুন। দিন ১০ আগে চম্পা বাড়ি যাওয়া কথা বলে ওই প্রেমিকের সঙ্গে ঘুরতে বের হন। আর তা দেখে ফেলেন মামুন। ১ ডিসেম্বর রাতে রান্না শেষ করে পরকীয়ার বিষয়ে তারা আলোচনা শুরু করেন। এ সময় তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে মামুন গলায় রশি পেঁচিয়ে চাম্পাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। গতকাল মামুন আদালতে ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

আরও পড়ুন


আ.লীগ কর্মী হত্যা মামলার প্রধান আসামিই পেল নৌকার টিকিট

news24bd.tv এসএম