বগুড়ায় অপহরণের পর শিশুকে হত্যা, আসামি গ্রেপ্তার
বগুড়ায় অপহরণের পর শিশুকে হত্যা, আসামি গ্রেপ্তার

আসামি ফরিদুল

বগুড়ায় অপহরণের পর শিশুকে হত্যা, আসামি গ্রেপ্তার

আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে ২০ হাজার টাকা মুক্তিপণের দাবীতে অপহরণ করে ৯ বছরের শিশু রাজ মামুনকে হত্যার ঘটনায় মূল আসামী মোঃ ফরিদুলকে (২৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একই সাথে নিহত শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহত শিশু সারিয়াকান্দির বেড়া পাচবাড়িয়া গ্রামের সুলতান শেখ এর পুত্র। এ ঘটনায় মূল আসামী রংপুর জেলার পীরগাছা থানার চররহমত গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে মোঃ ফরিদুলকে (২৮) পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

বুধবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী  সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান।

তিনি জানান, গত ৫ ডিসেম্বর সারিয়াকান্দির বেড়া পাচবাড়িয়া গ্রামে মাগরিবের নামায আদায়ে জন্য বাড়ির পূর্ব পাশে জামে মসজিদে যায় সুলতান শেখের শিশুপুত্র রাজ মামুন। নামায শেষে রাত ৮ টার দিকে তাকে অপহরণ করে মুক্তিপণ হিসাবে ২০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে দাবি করে।

এঘটনায় থানায় মামলা হলে ডিবি পুলিশ ও সারিয়াকান্দি থানা পুলিশের অভিযানে ৭ ডিসেম্বর ঢাকার সাভার থেকে মূল আসামী ফরিদুলকে গ্রেফতার করে সারিয়াকান্দি থানাধীন বেড়া পাঁচবাড়িয়া গ্রামস্থ চর এলাকার ধান ক্ষেত থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামী ফরিদুল পুলিশকে জানায় যে, সে অনেক টাকা ঋণগ্রস্থ হওয়ায় অপহরণ পরিকল্পনা করে। ঘটনার কিছুদিন পূর্বে বগুড়া সদর থানাধীন এরুলিয়া এলাকায় ধান কাটার কাজের জন্য আসে। সে অনেক টাকা ঋণগ্রস্থ হওয়ায় ধান কাটার পারিশ্রমিকে তার চাহিদা না মেটায় সে এরুলিয়া এলাকা হতে সারিয়াকান্দি থানাধীন জামথল এলাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। ইতিপূর্বে উল্লেখিত এলাকায় কাজ করার সুবাদে উক্ত এলাকা তার পূর্ব পরিচিত।

পরবর্তীতে গত ৫ ডিসেম্বর বিকালে সারিয়াকান্দি নদী পার হয়ে জামহল গ্রামে যায়। সেখানে গিয়ে কোন কাজ না পাওয়ায় গ্রামের একটি মুদিখানা দোকানের পাশে অবস্থান করে কয়েকটি বাচ্চা ছেলেদের খেলা করতে দেখে তাদের মধ্যে হতে একজনকে অপহরণ করার জন্য পরিকল্পনা করে। সেই পরিকল্পনা মোতাবেক মুদিখানা দোকানের পাশে অবস্থান করতে থাকে।  

মাগরিবের নামায শেষে তাহাদের মধ্যে হতে রাজ মামুনকে অপহরণ করার চেষ্টা করলেও শিশুর সাথে অনেকেই থাকার কারণে সে ব্যর্থ হয়ে পরবর্তীতে এশার নামাযের জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। এশার নামায শেষে গ্রেফতারকৃত আসামী পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক রাজ মামুন (৯) কে ঘুঘু পাখির বাচ্চা দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে ধান ক্ষেত্রের পাশে গাছের নিচে নিয়ে যায়। রাত গভীর হইলে রাজ মামুন চিৎকার চেচামেচি শুরু করলে তাৎক্ষণিক মোঃ রাজ মামুনকে গলা টিপে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে মৃত দেহ ধান ক্ষেতে ফেলে রাখে। তারপর সে আজাহার আলীর মুদিখানা দোকান হতে কৌশলে দোকানদারের ফোন নম্বর নিয়ে গ্রাম থেকে চলে যায়।

সারিয়াকান্দি থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, ৫ তারিখেই শিশুকে অপহরণ করে হত্যা করে আসামী ফরিদুল। এঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় ডিবি পুলিশ ও থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে আসামী গ্রেফতার করেছে।

আরও পড়ুন


খালেদা জিয়ার অবস্থা আবারও সংকটাপন্ন: মির্জা ফখরুল

news24bd.tv এসএম