আল্লাহর ওয়াস্তে মাফ করে দেবেন: মুরাদ হাসান
আল্লাহর ওয়াস্তে মাফ করে দেবেন: মুরাদ হাসান

ফাইল ছবি

আল্লাহর ওয়াস্তে মাফ করে দেবেন: মুরাদ হাসান

অনলাইন ডেস্ক

বিতর্কিত মন্তব্য এবং আপত্তিকর অডিও ফাঁসের পর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পদত্যাগ করেছেন ডা. মুরাদ হাসান। তবে তার এসব কর্মকাণ্ডের জন্য আবার ক্ষমা চেয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ডা. মুরাদ হাসান।

বুধবার (৮ ডিসেম্বর) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের পেজে দেওয়া এক পোস্টের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ক্ষমা চান তিনি।

ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তোলা একটি ছবি পোস্ট করে মুরাদ হাসান লিখেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পরম শ্রদ্ধেয় মমতাময়ী মা, বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা, আমি যে ভুল করেছি, তার জন্য আল্লাহর ওয়াস্তে আমাকে মাফ করে দেবেন। আপনি যে সিদ্ধান্ত দেবেন, তা আমি সবসময়ই মাথা পেতে নেব আমার বাবার মতো। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, জয় শেখ হাসিনা।  

কিছুদিন থেকেই নানা বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনায় আসে ডা. মুরাদ হাসান। বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার পরিবার নিয়ে মুরাদ হাসানের বক্তব্য সংবলিত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। ওই ভিডিওতে খালেদা জিয়ার নাতনি জাইমা রহমান সম্পর্কে ‘অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ’ মন্তব্য করতে শোনা যায় তাকে। তার ওই বক্তব্যের সমালোচনায় সোচ্চার হয়েছিলেন নারী অধিকারকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।  এছাড়াও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে প্রতিমন্ত্রী মুরাদের একটি অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছ। সেখানে মাহিকে ‘কুরুচিপূর্ণ’ কথা বলতে শোনা গেছে।

এরপর প্রধানমন্ত্রী তাকে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন। ডা. মুরাদ তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছিলেন। তীব্র সমালোচনার মুখে মঙ্গলবার দুপুরে দফতরে পদত্যাগপত্র পাঠান ডা. মুরাদ। বিকেল ৩টায় মন্ত্রিপরিষদ সচিবের দফতরে জমা দেন প্রতিমন্ত্রীর জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন। পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। মঙ্গলবার রাতে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

আরও পড়ুন


বিপিন রাওয়াত জীবিত, স্ত্রী মধুলিকার অবস্থা আশঙ্কাজনক

news24bd.tv এসএম