লিটনের কবজি ও গোড়ালি কেটে নিল দুর্বৃত্তরা
লিটনের কবজি ও গোড়ালি কেটে নিল দুর্বৃত্তরা

আহত লিটন কবিরাজ

লিটনের কবজি ও গোড়ালি কেটে নিল দুর্বৃত্তরা

অনলাইন ডেস্ক

দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় প্রতিপক্ষ এক যুবককে কুপিয়ে হাতের কবজি ও পায়ের গোড়ালি কেটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। হামলায় আহত ওই যুবকের নাম লিটন কবিরাজ। বুধবার (৮ ডিসেম্বর) রাত ৮টার দিকে শরিয়তপুরের জাজিরা পৌরসভার কবিরাজ কান্দি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত লিটনকে উদ্ধার করে প্রথমে জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর রাত ৯টার দিকে তাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়। বর্তমানে তিনি জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) চিকিৎসা নিচ্ছেন।

জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান জানান, লিটন কবিরাজের বাম হাতের কবজি, ডান পায়ের গোড়ালি ও ডান হাতের তিনটি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

পুলিশকে আহত লিটন কবিরাজ বলেন, জাজিরা পৌরসভার সাবেক মেয়র আবদুল হক কবিরাজ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সেকান্দার সাকিদারের সমর্থকেরা এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আবদুল হক কবিরাজ। তিনি জানান, আমি কোনো সন্ত্রাসী নই। লিটনের ওপর হামলার ঘটনায়ও আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। রাজনৈতিক কারণে আমাকে জড়ানো হচ্ছে।

আর ওয়ার্ড সদস্য সেকান্দার সাকিদার বলেন, সন্ধ্যা থেকে আমি ও আবদুল হক কবিরাজ অস্ত্রের লাইসেন্স নবায়ন করার জন্য থানায় ছিলাম। সেখানে বসেই লিটনের ওপর হামলার কথা জানতে পেরেছি। আমরা এই হামলায় জড়িত নই।

শরীয়তপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নড়িয়া-জাজিরা সার্কেল) মিজানুর রহমান জানায়, গত বছর জাজিরা পৌরসভা নির্বাচনের পর থেকেই বিরোধ চলে আসছিলো। আহত লিটন আবদুল হক কবিরাজ ও সেকান্দার সাকিদারের প্রতিদ্বন্দ্বী সিরাজ কবিরাজের সমর্থক ছিলেন। আহত লিটন পুলিশকে জানিয়েছে, পৌর নির্বাচনের বিরোধ নিয়ে তার ওপর হামলা হয়েছে। তিনি পুলিশের কাছে দুজনের নাম বলেছে। এ ঘটনায় ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধারের জন্য ও অভিযুক্ত ব্যক্তিদের আটক করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। এখনো থানায় মামলা হয়নি।

আরও পড়ুন


ফের অসুস্থ কাজী হায়াৎ, হাসপাতালে ভর্তি

news24bd.tv এসএম