একই পরিবারের চার নারীকে ধর্ষণ, ৫ জনের যাবজ্জীবন
একই পরিবারের চার নারীকে ধর্ষণ, ৫ জনের যাবজ্জীবন

সংগৃহীত ছবি

একই পরিবারের চার নারীকে ধর্ষণ, ৫ জনের যাবজ্জীবন

অনলাইন ডেস্ক

একই পরিবারের চার নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় পাঁচজনকে দুই মেয়াদে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার বড় উঠান ইউনিয়নে ডাকাতি করতে গিয়ে এই অপরাধ ঘটায় তারা। একইসঙ্গে অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় এক আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মঈন উদ্দিন এ রায় ঘোষণা করেন।

সেই রায়ে ডাকাতির দায়ে পাঁচ আসামিকে যাবজ্জীবন ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ বছরের কারাদণ্ড এবং ধর্ষণের দায়ে যাবজ্জীবন ও ১ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ২ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম সেন্টু বলেন, আদালত এই মামলায় পাঁচজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের এবং একজনকে বেকসুর খালাসের আদেশ দিয়েছেন। এদের মধ্যে চারজন হাজতে রয়েছেন। পলাতক রয়েছেন একজন।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো—মিজান মাতব্বর প্রকাশ শহিদুল ইসলাম (৪৫), আবু সামা (৩৭), মহিদুল ইসলাম মুন্সী প্রকাশ রুবেল (৩১), জহিরুল ইসলাম প্রকাশ জহিরুল হাওলাদার (২৪), ইলিয়াছ শেখ প্রকাশ সুমন (৩৬)। এদের মধ্যে ইলিয়াছ শেখ পলাতক রয়েছেন। হাজতে থাকলেও রায়ে খালাস পান আবদুল হান্নান মেম্বার।

আরও পড়ুন

বিদায় নিলেন অ্যাঙ্গেলা মার্কেল

চীনের কারাগারে বন্দি সিটিজেন সাংবাদিকের স্বাধীনতা পুরস্কার লাভ

প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন বুরকিনা ফাসোর রাষ্ট্রপতি

২০১৭ সালের ১২ ডিসেম্বর রাতে কর্ণফুলী উপজেলার বড় উঠান ইউনিয়নে এক প্রবাসীর বাড়ির গ্রিল কেটে ভেতরে প্রবেশ করে ডাকাতরা। তারা ওই পরিবারের চার নারীকে ধর্ষণের পর মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যায়। ধর্ষণের শিকার নারীরা ঘটনার পরদিন মামলা করতে গেলে ঠিকানা জটিলতার কথা বলে মামলা নিতে পুলিশ গড়িমসি করলেও পরে স্থানীয় সাংসদ ও ভূমিমন্ত্রীর নির্দেশে মামলা নেয় পুলিশ। ভিকটিমের আত্মীয় রহমত উল্লাহ বাদী হয়ে এ মামলা করেন। পরে মামলাটি পিবিআই তদন্ত করে ১৯ সালের ৩০ আগস্ট চার্জশিট দাখিল করে ৷

news24bd.tv/এমি-জান্নাত