ইভ্যালির গ্রাহকদের অপেক্ষা করতে হবে ৬ মাস

ইভ্যালির গ্রাহকদের অপেক্ষা করতে হবে ৬ মাস

টাকা ফেরত পেতে ইভ্যালির গ্রাহকদের অপেক্ষা করতে হবে অন্তত ৬ মাস। অনলাইন এই প্লাটফর্ম থেকে কী পরিমাণ অর্থ পাচার হয়েছে তা নিয়েও কাজ চলছে পুরোদমে। এসব তথ্য জানিয়েছেন ইভ্যালি পরিচালনায় হাইকোর্ট গঠিত কমিটির চেয়ারম্যান সাবেক বিচারপতি এইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান জানান, বাংলাদেশ ব্যাংকে যে একশ কোটি টাকা পাওয়ার কথা জানা যাচ্ছে, তা প্রয়োজনীয়তার ভিত্তিতে দেয়া শুরু করলে কিছুটা হলেও, আস্থা ফিরবে গ্রাহকদের।

 

ই-কর্মাস প্রতিষ্ঠান ই-ভ্যালি কীভাবে চলবে, গ্রাহকরা টাকাই বা পাবে কীভাবে সেই পথ খুঁজতে কাজ করছে হাইকোর্ট গঠিত ৫ সদস্যের কমিটি।

ইভ্যালির অন্তবর্তীকালীন চেয়ারম্যানের দায়িত্বে আছেন সাবেক বিচারপতি এইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। তিনি জানান, তিনটি গুদাম থেকে বিভিন্ন পণ্য পেয়েছেন তারা। এছাড়া হিসাব রক্ষণ বিভাগে নতুন করে নিয়োগ দেয়া হয়েছে, পুরাতন দুই কর্মকর্তাকে।

এইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক জানান, 'তিনটি সিন্দুক পাওয়া গেছে, কোড না জানায় খোলা যায়নি, রাসেলের সাথে জেলখানায় দেখা করা হয়, তার ডায়রি ধানমন্ডির বাড়ির মালিক চুরি করেছিল, তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ' 

তিনি আরও জানান, 'প্রতিষ্ঠানের এমডি রাসেল বিদেশে কত টাকা পাচার করেছে, তা নিয়েও কাজ চলছে পুরোদমে। ' টাকা ফেরত আনতে আন্তর্জাতিক সংস্থার সহায়তাও নেয়ার কথা জানালেন তিনি।  

গ্রাহকদের ব্যাপারে এইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক জানান, গ্রাহকরা যেন সব ডকুমেন্ট সংরক্ষিত রাখেন, হাইকোর্ট বলেছে ৬ মাসের আগে গ্রাহকরা টাকা ফেরত পাবে না। ' এছাড়া সাবেক এই বিচারপতি জানান, অডিট শেষ হলেই জানা যাবে, গ্রাহকের সংখ্যা আর বকেয়ার পরিমাণ।  

আরও পড়ুন: 


অমিতাভের বাড়িতে থাকবেন কৃতি!


অনলাইন ব্যবসায় গ্রাহকের আস্থা ফেরাতে, নানা পরামর্শ  দিয়েছে টিআইবি।  

শুধু  ইভ্যালি নয়; রেজিস্ট্রেশন ছাড়া  ই-কর্মাস প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধেও কঠোর হওয়ার সুপারিশ করা হবে বলেও জানিয়েছে, হাইকোর্ট গঠিত কমিটি।

news24bd.tv রিমু