তিন শিশু সন্তান সঙ্গে নিয়ে বিষপান, বাবা-মেয়ের মৃত্যু
তিন শিশু সন্তান সঙ্গে নিয়ে বিষপান, বাবা-মেয়ের মৃত্যু

মরদেহ উদ্ধার

তিন শিশু সন্তান সঙ্গে নিয়ে বিষপান, বাবা-মেয়ের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

কক্সবাজারের টেকনাফে পারিবারিক কলহের জেরে ঘুমন্ত তিন শিশু সন্তানকে তুলে বিষপান করান বাবা আনোয়ার হোসেন (৩৫)। নিজেও করেন বিষপান। বিষক্রিয়ায় ঘরেই মারা যান বাবা ও বড় মেয়ে সুমাইয়া আকতার রাফি (৯)। আর ৩ বছর বয়সী মেজ মেয়ে মাহিমা তানিয়া ও দেড় বছরের ছেলে জাবেদ ইকবাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

রোববার (১২ ডিসেম্বর) ভোরে টেকনাফ সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীরদ্বীপ ৯নং ওয়ার্ডের জালিয়াপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

আনোয়ার হোসেন স্থানীয় মৃত ফোরকান আহমদের ছেলে। সে অনেক আগে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসা পুরোনো রোহিঙ্গা। নিহত মেয়ে রাফি শাহপরীরদ্বীপ জালিয়াপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে স্ত্রী রেহেনা আক্তারের সঙ্গে আনোয়ারের কলহ চলে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটির জেরে কলহ প্রবল হয়। বিকেলে ছোট সন্তান নিয়ে স্ত্রী বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। রাতে আনোয়ার বাড়ি ফিরে দেখেন তিন সন্তান ঘুমাচ্ছে কিন্তু স্ত্রী বাড়িতে ফেরেনি।

এ সময় আনোয়ার হোসেন জোরপূর্বক তার তিন ছেলে-মেয়েকে ঘুম থেকে তুলে বিষপান করিয়ে নিজেও বিষপান করেন। এতে আনোয়ার হোসেন ও তার ৯ বছরের মেয়ে সুমাইয়ার মৃত্যু হয়। অপর দুই সন্তানকে মুমূর্ষু অবস্থায় কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের জালিয়াপাড়ার স্থানীয় মেম্বার আব্দুস সালাম জানান, তাদের মধ্যে টুকটাক কলহ চলতো। বারণ করে বেশ কয়েকবার সমাধানও করেছিলাম। শনিবার কলহ সৃষ্টি হলে স্ত্রী ছেলে-মেয়ে রেখে দূর সম্পর্কের চাচার বাসায় চলে যান। এরই প্রেক্ষিতে গভীর রাতে বিষপানের ঘটনা ঘটায় আনোয়ার।

টেকনাফ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল আলীম জানান, পারিবারিক কলহের জেরে বিষপানের ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পেয়েছি। উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবদুল জলিল খানের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করেছে। ঘটনার মূল কারণ বের করার চেষ্টা চলছে বলে উল্লেখ করেন ওসি।

আরও পড়ুন


এবার রাজশাহীতে মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে মামলা

news24bd.tv এসএম