কলেজ ছাত্র মফিজুল হত্যায় ১ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৯ জনের যাবজ্জীবন
কলেজ ছাত্র মফিজুল হত্যায় ১ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৯ জনের যাবজ্জীবন

প্রতীকী ছবি

কলেজ ছাত্র মফিজুল হত্যায় ১ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৯ জনের যাবজ্জীবন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:

নারায়ণগঞ্জের সোনারঁগায়ে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে কলেজ ছাত্র মফিজুল ইসলাম হত্যা মামলার রায়ে এক জনকে ফাঁসির দড়িতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে ফাসির দণ্ডপ্রাপ্তকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেছে।

একই মামলার রায়ে দুই নারীসহ আরও ৯ জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত প্রত্যেককে ৩০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড করা হয়েছে।

রোববার (১২ ডিসেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক সাবিনা ইয়াসমিনের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সহ ৩ জন পলাতক ও ৭ জন আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জাহিদুল ইসলাম জাহিদ (৩৮) তার ছোট ভাই যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আলমগীর (৩৫) ও বাসিত (২৮) পলাতক রয়েছে। তারা মুছারচর এলাকার মৃত.জুলহাস মিয়ার ছেলে।

আদালতে উপস্থিত ছিলেন যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসাদ, শাহ জামাল, জুয়েল, মমতাজ বেগম, কল্পনা বেগম, কামাল ও নজরুল ইসলাম।

আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট জাসমীন আহমেদ রায় ঘোষণার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ২০১১ সালের ৯ নভেম্বর রাতে সোনারগাঁয়ের মুছারচর এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে উল্লেখিত আসামিরা শহীদুল্লার বাড়িতে টেটা ও ধারালো ছুরিসহ হামলা চালায়।  

আরও পড়ুন:

 

ডাবের পানির সঙ্গে বিষ খাইয়ে স্ত্রী হত্যা, স্বামীর ফাঁসির আদেশ

 

এ সময় শহীদুল্লার কলেজ পড়ুয়া ছেলে মফিজুল ইসলামকে টেটা দিয়ে খুচিয়ে হত্যা করে। একই সময় বাড়িঘরে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। এতে আরও কয়েকজন আহত হয়।  

এ ঘটনায় শহীদুল্লার বাদী হয়ে সোনারগাঁও থানায় ১০ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় আদালত সাক্ষ্যপ্রমান গ্রহন করে রায় ঘোষণা করেছেন। মামলার বাদী আদালতের রায়ে সন্তুষপ্রকাশ করে উপরের আদালতে রায় বহালেন দাবি জানিয়েছেন।

news24bd.tv/ কামরুল