সাতক্ষীরায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
সাতক্ষীরায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

প্রতীকী ছবি

সাতক্ষীরায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

মনিরুল ইসলাম মনি, সাতক্ষীরা:

সাতক্ষীরায় স্ত্রী শিপ্রা ঘোষকে হত্যার দায়ে স্বামী কার্তিক ঘোষকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যু কার্যকরের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এ মামলায় অপর ৫ আসামকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক এমজি আজম রোববার দুপুরে এই রায় ঘোষণিা করেন। রায় ঘোষণার সময় কার্তিক ঘোষ আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১০ সালের ১৩ মে তারিখে সাতক্ষীরা জেলার পাটকেলঘাটা থানার রাজেন্দ্রপুর গ্রামে যৌতুকের কারণে স্বামী কার্তিক ঘোষসহ তার মা ও বোনেদের বিরুদ্ধে স্ত্রী শিপ্রা ঘোষকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠে।

আরও পড়ুন:

বিদেশে ঠাঁই না পেয়ে, অবশেষে দেশে ফিরলেন ডা. মুরাদ

এ ঘটনায় শিপ্রা ঘোষের মা খুলনার নমিতা ঘোষ পরের দিন পাটকেলঘাটা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পাটকেলঘাটা থানার তৎকালিন এসআই নাসিরউদ্দীন কার্তিক ঘোষ, মা যুথিকা ঘোষ, বোন চায়না ঘোষ, সুন্দরী ঘোষ, ভগ্নিপতি জয়দেব ঘোষ ও চাচাতো ভাই সুভাষ ঘোষকে আসামি করে ২০১০ সালের ১৩ অক্টোবর আদালতে চার্জশীট দেন।

২০১১ সালের ২৫ জানুয়ারী এ মামলার চার্জ গঠন করা হয়। আদালতে এ ঘটনায় ১৮ জন স্বাক্ষী সাক্ষ্য দেন। বিচারে আদালত কার্তিক ঘোষকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার নির্দেশ দেন। একই সময় অপর পাঁচজনকে বেকসুর খালাস দেন।

মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে মামলার বাদী নমিতা ঘোষ জানান, আমার মেয়েকে হত্যায় কার্তিকসহ ৬ জন জড়িত। অথছ ফাঁসির আদেশ হলো একজনের। এ জন্য এ রায়ে আমি খুশি না।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌশলী এ্যাড. জহুরুল হায়দর বাবু বলেন, রাষ্ট্রপক্ষ এ মামলার আসামির অপরাধ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে। তিনি আদালতের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন।  

news24bd.tv/ কামরুল