মায়ের লাশ বাড়িতে রেখে এইচএসসি পরীক্ষা দিল মোস্তাফিজ
মায়ের লাশ বাড়িতে রেখে এইচএসসি পরীক্ষা দিল মোস্তাফিজ

সংগৃহীত ছবি

মায়ের লাশ বাড়িতে রেখে এইচএসসি পরীক্ষা দিল মোস্তাফিজ

অনলাইন ডেস্ক

মায়ের লাশ বাড়িতে রেখে এইচএসসির রসায়ন দ্বিতীয়পত্রের পরীক্ষা দিয়েছে মো. মোস্তাফিজুর রহমান নামে এক শিক্ষার্থী। দীর্ঘদিন দূরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সারে ভোগার পর শনিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে মারা যান মোস্তাফিজুরের মা লায়লা জেসমিন মুন্নী (৪০)।  

মায়ের মৃতদেহের পাশে বারবার মূর্ছা যাচ্ছিল এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান। পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় ঘটেছে এ মর্মস্পর্শী ঘটনা।

মায়ের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতেই শোককে শক্তিতে পরিণত করে রোববার পরীক্ষা কেন্দ্রে গিয়েছে সে। সে আমানউল্লাহ কলেজ থেকে এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।  

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, নয়াখালী মাটিভাংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও গৌরীপুর ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রামের নিবাসী মরহুম বিপ্লব আকনের স্ত্রী লায়লা জেসমিন মুন্নী দীর্ঘদিন দূরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সার রোগে ভুগছিলেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতে যাওয়ার সব প্রস্ততি সম্পন্ন করে রেখেছিল পরিবার।  

ছেলের পরীক্ষা শেষ হওয়ার পরই তার ভারতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে আমানউল্লাহ মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষকরা উপস্থিত হয়ে শোকাহত মোস্তাফিজুরকে সান্ত্বনা দেন। সকালে তারা তাকে পরীক্ষার হলে নিয়ে যান।  

আরও পড়ুন:

বিদেশে ঠাঁই না পেয়ে, অবশেষে দেশে ফিরলেন ডা. মুরাদ

news24bd.tv/ কামরুল