ত্বহার ওয়াজে বাধা, ফরিদপুরে তুলকালাম
ত্বহার ওয়াজে বাধা, ফরিদপুরে তুলকালাম

ফাইল ছবি

ত্বহার ওয়াজে বাধা, ফরিদপুরে তুলকালাম

ফরিদপুরে একটি ওয়াজ মাহফিলে ইসলামি বক্তা আবু ত্বহা মুহাম্মদ আদনানকে বক্তব্য দিতে না দেওয়ার অভিযোগে মহাসড়ক অবরোধ ও পুলিশ ফাঁড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছে।

গতকাল রাতে সদরের কানাইপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চলছে মামলার প্রস্তুতি।

স্থানীয় লোকজন জানান, লক্ষ্মীপুর এলাকায় নির্মাণাধীন আমজাদ সরদারের জুট মিল মাঠে মারকাজুত তাকওয়া ইসলামি মাদ্রাসা ও সরদারবাড়ি জামে মসজিদের উদ্যোগে বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

মাঠে প্রায় ১০ হাজার শ্রোতা উপস্থিত ছিলেন।

মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেওয়ার কথা ছিল ইসলামি বক্তা আবু ত্বহা মুহাম্মদ আদনানের। রাত সাড়ে ৯টার দিকে মাহফিল মঞ্চে থেকে ঘোষণা দেওয়া হয় যে প্রশাসনের আপত্তির কারণে আবু ত্বহা বক্তব্য দেবেন না। পরে ওয়াজ মাহফিল সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।  

এ ঘোষণার পরপর মাহফিলের মাঠে উপস্থিত শ্রোতাদের একটি অংশ বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। পরে তারা পাশের ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করেন। একপর্যায়ে বিক্ষোভকারী একটি অংশ ঘটনাস্থল থেকে প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে অবস্থিত করিমপুর পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালায়। এসময় তারা ইট ছুড়তে থাকে। ফাঁড়িতে থাকা পুলিশের দুটি গাড়ি ও একটি অ্যাম্বুলেন্সের কাচ ভেঙে ফেলে তারা।  

পরে ফরিদপুর থেকে দাঙ্গা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ২২টি গুলি ছুড়ে রাত সোয়া ১২টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় তিনজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

করিমপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত কর্মকর্তা পরিদর্শক আবদুল্লাহ আল মামুন শাহ বলেন, পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও পুলিশ সদস্যদের আহত হওয়ার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

ওয়াজ মাহফিল আয়োজনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে থাকা আমজাদ সরদারের ছেলে রকিব আল হাসান সরদার বলেন, ‘পুলিশ সীমিত পরিসরে ঘরোয়াভাবে আমাদের এই অনুষ্ঠান করার অনুমতি দিয়েছিল। তবে ওয়াজ মাহফিল চলাকালে গতকাল রাত সাড়ে আটটার দিকে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ওসি ফোন করে বাবাকে বলেন, আবু ত্বহাকে মঞ্চে ওঠানো যাবে না। আমরা ওয়াজ মাহফিলে আগতদের উদ্দেশে মাফ চেয়ে নিলে সমবেতদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ’

হামলার বিষয়ে রকিব আল হাসান সরদারের ভাষ্য, যারা পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা করেছে, সড়ক অবরোধ করেছে, তারা গুটিকয়েক উগ্রপন্থী। তাদের সঙ্গে ওয়াজ মাহফিলের আয়োজকদের কোনো সম্পর্ক নেই।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন রঞ্জন সরকার বলেন, ওয়াজ মাহফিল করতে হলে উপজেলা থেকে অনুমতি নিতে হয়। ত্বহাকে আনার ব্যাপারে কোনো অনুমতি প্রশাসন দেয়নি। ওই স্থানে ওয়াজ মাহফিলের ব্যাপারে কোনো অনুমতি ছিল না।


আরও পড়ুন:

ব্যাংক লেনদেনে মিথ্যা তথ্য দিলে জেল-জরিমানা

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় দেশে তিনজনের মৃত্যু

পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রী ও সন্তানকে গলা কেটে হত্যা, স্বামী আটক


ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ওসি এম এ জুয়েল বলেন, যে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়নে করা হয়েছে। এ ঘটনায় করিমপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত কর্মকর্তা পরিদর্শক আবদুল্লাহ আল মামুন শাহ বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

news24bd.tv/ নাজিম